বাংলা নিউজ > ময়দান > দুই ব্যাটার একই দিকে, কী করবেন বুঝতেই পারলেন না আম্পায়ার- দেখুন পাকিস্তানের মজার রান আউট

দুই ব্যাটার একই দিকে, কী করবেন বুঝতেই পারলেন না আম্পায়ার- দেখুন পাকিস্তানের মজার রান আউট

দেখুন পাকিস্তানের মজার রান আউট

মেগ ল্যানিং ততক্ষণে বলটি ধরেন এবং বেথ মুনির দিকে ছুঁড়ে দিতে কোনও ভুল করেননি। আম্পায়াররা রিপ্লে চেক করেন এবং তারা দেখান যে দার প্রথমে ক্রিজে পৌঁছেছেন। ফলস্বরূপ, কাইনাতকে আম্পায়ার আউট দেন এবং যেভাবে রান আউট হতে হল তাতে উভয় ব্যাটারই বেশ হতাশ হয়েছিলেন।

পাকিস্তানের ক্রিকেট দলগুলি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তাদের দুর্বল ফিল্ডিং মান এবং ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মিক্স-আপের কারণে রান আউট হওয়ার প্রবণতার জন্য বিশ্ব ক্রিকেটে বেশ পরিচিত। পাকিস্তানি মহিলারাও একই রকম রানিং বিটুইন দ্য উইকেটের প্রতিলিপি করেছেন যার ফলস্বরূপ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে অদ্ভুত রানআউট হয়েছে পাকিস্তান মহিলা ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রা। তিন ম্যাচের সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়া মহিলা ও পাকিস্তান মহিলা দল একে অপরের বিরুদ্ধে নেমেছিল। বৃষ্টি-বিঘ্নিত খেলায় পাকিস্তান দল ৪০ ওভারে ১৬০/৮ রান তুলেছিল। দুর্দান্ত বোলিং-এর প্রদর্শন করেছিল অস্ট্রেলিয়া। নিদা দার ৮৮ বলে ৫৯ রান করে সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন। যাইহোক, নিদা দার ব্যাটিংয়ের চেয়ে বেশি পিচের মাঝখানে কাইনাত ইমতিয়াজের সঙ্গে তাঁর রান আউটের বিভ্রান্তির ঘটনা নিয়ে বেশি লাইমলাইটে ছিলেন।

আরও পড়ুন… শুধু টি২০-তে সফল সূর্যকেই কোহলি-রোহিতের মতন তিন ফর্ম্যাটের প্লেয়ার বলে দিলেন প্রাক্তন অধিনায়ক

আলানা রাজা ইনিংসের ৩১তম ওভারটি বল করছিলেন এবং নিদা দার ওভারের তৃতীয় বলের মুখোমুখি হওয়ার জন্য স্ট্রাইকারের প্রান্তে ছিলেন। আলানা রাজার একটি ডেলিভারিকে দার ব্যাকফুটে গিয়ে কভারের দিকে খেলেন। তিনি একটি সিঙ্গেল নিতে চেয়েছিলেন এবং এটির জন্য কল করেন, এরপরে তিনি অন্য প্রান্তের দিকে দৌড়াতে শুরু করেছিলেন। যাইহোক, তাঁর ব্যাটিং সঙ্গী কাইনাত ইমতিয়াজ সিঙ্গলস নিতে অস্বীকার করেন এবং উভয় ব্যাটারই বিভ্রান্তির মধ্যে পড়ে যান, ফলে নন-স্ট্রাইকে দুজনেই নিজেদের দৌড় শেষ করেন। মেগ ল্যানিং ততক্ষণে বলটি ধরেন এবং বেথ মুনির দিকে ছুঁড়ে দিতে কোনও ভুল করেননি। আম্পায়াররা রিপ্লে চেক করেন এবং তারা দেখান যে দার প্রথমে ক্রিজে পৌঁছেছেন। ফলস্বরূপ, কাইনাতকে আম্পায়ার আউট দেন এবং যেভাবে রান আউট হতে হল তাতে উভয় ব্যাটারই বেশ হতাশ হয়েছিলেন।

আরও পড়ুন… শ্রেয়স আইয়ারের স্পিন দেখে অবাক বিরাট কোহলি, নেটিজেনরা মুরলিধরনের কথা মনে বললেন

এদিকে ম্যাচের কথা বললে, অস্ট্রেলিয়ার মহিলা ক্রিকেট দল প্রথম ওয়ানডেতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বড় জয় পেল। ব্রিসবেনের অ্যালান বর্ডার মাঠে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে পাকিস্তান মহিলা দলকে আট উইকেটে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এই জয়ের পর ওয়ানডে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল স্বাগতিকরা। ক্যাঙ্গারু মহিলা দলের হয়ে ম্যাচ জেতাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন ডার্সি ব্রাউন, জেস জোনাসেন এবং ফোবি লিচফিল্ড। ব্রাউন এবং জোনাসেন ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করলেও লিচফিল্ড ব্যাটিংয়ে বিস্ময়কর কাজ করেছিল। এটি ছিল লিচফিল্ডের অভিষেক ম্যাচ। তিনি তাঁর অভিষেক ওয়ানডেতে অপরাজিত ৭৮ রান করে সফল হন। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের জন্য তিনি ম্যাচ সেরার পুরস্কার পান।

ব্রিসবেনের অ্যালান বর্ডার মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টস জিতে প্রথমে বোলিং নেয় অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মেগ ল্যানিং। পাকিস্তানের দল ব্যাট করতে নেমে ৪০ ওভারে আট উইকেটে ১৬০ রান করে। পাকিস্তান মহিলা দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৯ রান করেন নিদা দার। তিনি ছাড়াও ২৮ রানের ইনিংস খেলেন অধিনায়ক বিসমাহ মারুফ। এই দুই ব্যাটসম্যান ছাড়াও অতিরিক্ত ২৭ রানের অবদান ছিল। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ভালো বোলিং করার সময়, ডার্সি ব্রাউন এবং জেস জোনাসেন ২টি করে উইকেট নেন।

জয়ের জন্য ১৬১ রানের লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা ভালো হয়নি। মহিলা দলের প্রথম উইকেটের পতন হয় ৭ রানের মাথায়। ইনিংস শুরু করতে আসা বেথ মুনি এক রান করে আউট হন। এরপর তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা অধিনায়ক মিগ ল্যানিংকে দারুণ ইনিংস খেলেন। প্রায় পাঁচ মাস পর ক্রিকেটে ফিরে আসা ল্যানিং ৬৭ রানের ইনিংস খেলেন। ওপেনার ফোবি লিচফিল্ড ৯২ বলে অপরাজিত ৭৮ রান করেন। এই দুই ব্যাটসম্যানই ১৩৮ রানের জুটি গড়েন এবং সহজেই অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ম্যাচ জিতে নেন। পাকিস্তানের হয়ে ১টি করে উইকেট নেন ডায়না বেগ ও ওমাইমা সোহেল।

 

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন