অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে মানকড় আউট হলেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মহম্মদ হুররাইরা (সৌজন্যে-আইসিসি)
অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে মানকড় আউট হলেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মহম্মদ হুররাইরা (সৌজন্যে-আইসিসি)

অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ: 'মানকাডিং' বিতর্কের মাঝেই সেমিতে ভারত-পাক দ্বৈরথ

  • ৪ঠা ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে চির প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সেমিফাইনালের লড়াইয়ে নামবে। এখন দুই দেশের চোখ সেই লড়াইয়ের দিকেই।

কথায় বলে ক্রিকেট হল জেন্টালম্যান গেম। আর এই জেন্টালম্যান গেম মানকাডিং কতটা যুক্তিযুক্ত সেই নিয়ে দশকের পর দশক ধরে বিতর্ক অব্যাহত। শুক্রবার অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের কোয়াটার ফাইনালে মানকড় আউটের সাক্ষী থাকল ক্রিকেট বিশ্ব। আফগান বোলার নূর আহমেদের হাতে মানকড় আউট হলেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান মহম্মদ হুররাইরা।

যদিও এই বিতর্কিত উইকেটও পাকিস্তানের সহজ জয় আটকাতে পারেনি। দক্ষিণ আফ্রিকায় বেনোনিতে ছ উইকেটে আফগানিস্তানকে হারিয়ে সেমিফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্ধী ভারতের বিরুদ্ধে জায়গা পাকা করল পাকিস্তান।



এদিন প্রথমে ব্যাট করে মাত্র ১৮৯ রানেই শেষ হয় আফগানিস্তানের ইনিংস। মহম্মদ আমির খান(৩/৫৮) এবং ফাহাদ মুনির(২/২৯) এর ঝোড়ো বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতে পারেনি কোনও আফগান ব্যাটসম্যানই। ১৯০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে মহম্মদ হুররাইরার অর্ধশতরানের(৬৪) সুবাদে সহজেই জয় পায় পাকিস্তান।

মানকড় আউট বা মানকাডেড কী?

কোনও বোলার বল ডেলিভার করার আগে নন স্ট্রাইকিং এন্ডে থাকা ব্যাটসম্যান যদি ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে যায় তাহলে বোলিং এন্ডের স্টাম্প বা বেল ফেলে সেই ব্যাটসম্যানকে আউট করাকেই মানকাডেড বালা হয়। ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথমবার ভিনু মানকড় নন স্ট্রাইকিং এন্ডে থাকা অজি ব্যাটসম্যান বিলি ব্রাউনকে এইভাবে আউট করেছিলেন৷ ১৯৪৭ সালে ১৩ ডিসেম্বর এই ঘটনা ঘটেছিল। তাঁর নামানুসারেই এই আউটের নাম মানকড় আউট বা মানকাডেড।

এই আউট ক্রিকেটের রুলবুকে থাকলেও এটা ক্রিকেটের স্পিরিট বিরোধী কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক রয়েছে। যদিও এটা বর্তমান সময়ে নজিরবিহীন ঘটনা এমনটা বলা যাবে না। গত বছর আইপিএল রাজস্থান রয়্যালসের জোস বাটলারকে এই পদ্ধতিতে আউট করেছিলেন কিংস এলেভেন পঞ্জাবের আর অশ্বিন। আন্তর্জাতিক একদিবসীয় ক্রিকেট ম্যাচে শেষবার জোস বাটলারই মানকাডিংয়ের শিকার হয়েছিলেন ২০১৪ সালে। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে এজবাজস্টনের এই ম্যাচে সচিত্রা সেনানায়কের হাতে আউট হন বাটলার।

গত বারের অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের বিজেতা দল ভারত ৪ঠা ফেব্রুয়ারি পচেফস্ট্রুমে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সেমিফাইনালের লড়াইয়ে নামবে। কোয়াটার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে পারজিত করে ভারত।

ভারতের বিরুদ্ধে এই ম্যাচ আর পাঁচটা সাধারণ ম্যাচের মতোই দেখতে চান পাক অধিনায়ক রুহেল নাজির। তাঁর কথায়, ওটা আর একটা ম্যাচ মাত্র। ভারত খুব ভালো দল এবং আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। দর্শকরা আমাদের অনুপ্রাণিত করে এসেছেন। আমরা আশা করছি সেমিফাইনালে ভারতের বিরুদ্ধেও তাঁরা আমাদের সাপোর্ট করবেন’।

অপর সেমিফাইনালে ৬ তারিখ মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড।


বন্ধ করুন