বাংলা নিউজ > ময়দান > U19 Women’s T20 WC: অজিদের হারাতেই পিলপিল করে মাঠে ঢুকে এল বাংলাদেশের সমর্থকেরা, তার পর কী ঘটল দেখুন

U19 Women’s T20 WC: অজিদের হারাতেই পিলপিল করে মাঠে ঢুকে এল বাংলাদেশের সমর্থকেরা, তার পর কী ঘটল দেখুন

মাঠে ঢুকে পড়েন বাংলাদেশের সমর্থকেরা।

সুমাইয়া আক্তের যখন বাউন্ডারি হাঁকিয়ে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করেন, তখন ডাগ আউটে যেন উন্মাদনার বিস্ফোরণ ঘটে। উচ্ছ্বাসে একেবারে পাগলপাড়া হয়ে পড়ে বাংলাদেশ শিবির। এর মধ্যেই আবার নিরাপত্তাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে গ্যালারি থেকে পিলপিল করে মাঠে ঢুকে পড়েন বাংলাদেশের সমর্থকেরা।

অনূর্ধ্ব–১৯ মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুরুতেই ইতিহাস গড়ে ফেলল বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম। প্রথম ম্যাচে আজ অস্ট্রেলিয়াকে ৭ উইকেটে হারিয়ে চমকে দিলেন বাংলাদেশের মেয়েরা। প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা করেন ৫ উইকেটে ১৩০ রান। ১২ বল বাকি থাকতে প্রয়োজনীয় রান সংগ্রহ করে ৭ উইকেটে ম্যাচ জিতে যায় বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন: শ্বেতার দাপট, শেফালির অলরাউন্ড পারফরম্যান্স, ৭ উইকেটে বড় জয় ভারতের

সুমাইয়া আক্তের যখন বাউন্ডারি হাঁকিয়ে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করেন, তখন ডাগ আউটে যেন উন্মাদনার বিস্ফোরণ ঘটে। উচ্ছ্বাসে একেবারে পাগলপাড়া হয়ে পড়ে বাংলাদেশ শিবির। এর মধ্যেই আবার নিরাপত্তাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে গ্যালারি থেকে পিলপিল করে মাঠে ঢুকে পড়েন বাংলাদেশের সমর্থকেরা। তাঁরাও প্লেয়ারদের সঙ্গে সেলিব্রেশনে সামিল হন। সেই সময়ে নিরাপত্তরক্ষীরা কোনও ক্রমে বাংলাদেশের প্লেয়ারদের সরিয়ে নিয়ে যান। তবে এত দর্শক সহজেই মাঠে ঢুকে পড়ায় প্রশ্নের মুখে পড়ে যায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

শনিবার টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার অনূর্ধ্ব-১৯ দল ৫ উইকেটে ১৩০ রান করে। বাংলাদেশের বোলারদের দাপটে স্কোর বেশি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেনি অজিরা। ক্লেরি মোর ৫২ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন। এ ছাড়া এলা হেওয়ার্ড ৩৫ রান করেন। বাকিদের অবস্থা তথৈবচ। ২০ রানের গণ্ডি টপকাননি দলের বাকি ব্যাটাররা।

বাংলাদেশের মারুফা আক্তের এবং দিশা বিশ্বাস ২টি করে উইকেট নিয়েছেন। রাবেয়া খান নিয়েছেন ১ উইকেট।

জবাবে ব্যাট করতে নামলে শুরুতেই ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। প্রথম বলেই আউট হয়ে যান বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ওপেনার মিষ্টি সাহা। কিন্তু এর পর আফিফা প্রতেষ্টা (২৪) ও দিলারা আক্তের (৪০) দলের হাল ধরেন।

আরও পড়ুন: অজিদের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের অভিষেকেই দাপুটে জয় বাংলাদেশের

তবে আফিফা এবং দিলারা পরপর আউট হয়ে যান। ১ উইকেটে ৬৬ থেকে ৭১ রানে ৩ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। তবে সেখান থেকে শোর্না আক্তের এবং সুমাইয়া আক্তের চতুর্থ উইকেটে ৪২ বলে ৬১ রানের অপরাজিত পার্টনারশিপ করে দলকে স্মরণীয় জয় এনে দেন।

শোর্না ২৩ রানে এবং সুমাইয়া ৩১ রানে অপরাজিত থাকেন। ১৮ ওভারে ৩ উইকেটে ১৩২ রান করে বাংলাদেশ। ১২ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেটে ম্যাচ জিতে যায় তারা। দিশা বিশ্বাসের নেতৃত্বে অনূর্ধ্ব-১৯ মেয়েদের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই বাজিমাত করল বাংলাদেশ। চমকে দিল বিশ্ব ক্রিকেটকে।

অজিদের মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হারিয়ে উচ্ছ্বাসে ভাসে বাংলাদেশ। নিঃসন্দেহে প্রথম বার অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৯ মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচের প্রথম জিতে ইতিহাস লিখে ফেললেন বাংলাদেশের মেয়েরা। এটা তাঁদের কাছে বড় প্রাপ্তি।

বন্ধ করুন