বাড়ি > ময়দান > US Open: ফাইনালেও জারি বর্ণবিদ্বেষ-প্রতিবাদ, আজারেঙ্কাকে হারিয়ে আমেরিকার রানি ওসাকা
ফ্লাশিং মেডোর নয়া রানি (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
ফ্লাশিং মেডোর নয়া রানি (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

US Open: ফাইনালেও জারি বর্ণবিদ্বেষ-প্রতিবাদ, আজারেঙ্কাকে হারিয়ে আমেরিকার রানি ওসাকা

  • ফাইনালে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে বার্তা দিতে তামির রাইসের নাম লেখা মাস্ক পরে কোর্টে আসেন ওসাকা।

টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই আমেরিকার বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। তাতে ফোকাস তো টলেইনি, উলটে যে বেড়েছিল, তা আবারও প্রমাণ করলেন নাওমি ওসাকা।আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামের ফাইনালে এক সেটে পিছিয়ে পড়েও ভিক্টোরিয়া আজারেঙ্কাকে ১-৬, ৬-৩, ৬-৩ সেটে হারিয়ে কেরিয়ারের দ্বিতীয় যুক্তরাষ্ট্র ওপেন জিতলেন জাপানি ও হাইতিয়ান বংশোদ্ভূত তারকা। সবমিলিয়ে ওসাকার ঝুলিতে আছে তিনটি গ্র্যান্ডস্লাম।

ফাইনালে বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে বার্তা দিতে তামির রাইসের নাম লেখা মাস্ক পরে কোর্টে আসেন ওসাকা। ২০১৪ সালে ওহিয়োতে এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ আধিকারিকের গুলিতে মৃত্যু হয়েছিল বছর ১২-র আফ্রিকান-আমেরিকান কিশোরের।

এই মাস্ক পরেই কোর্টে এসেছিলেন ওসাকা (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)
এই মাস্ক পরেই কোর্টে এসেছিলেন ওসাকা (ছবি সৌজন্য রয়টার্স)

যদিও শনিবার রাতে ফ্লাশিং মেডোয় ওসাকার শুরুটা একেবারে মনের মতো হয়নি। প্রথম সেটে বিশ্বের প্রাক্তন এক নম্বর আজারেঙ্কার বিরুদ্ধে দাঁড়াতেই পারেননি। অসংখ্য আনফোর্সড এররের জেরে মাত্র ২৬ মিনিটেই প্রথম সেট হাতছাড়া হয় তাঁর। দ্বিতীয় সেটের শুরুতেও আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামে দাপটে দেখাচ্ছিলেন বেলারুসের তারকা। ২-০ গেমে এগিয়েও গিয়েছিলেন। তখন মনে হচ্ছিল, টেনিস কোর্টে ফিরে আজারেঙ্কার গ্র্যান্ডস্লাম জয় কার্যত সময়ের অপেক্ষা। 

তারপরই খেলায় ফেরেন ২২ বছরের ওসাকা। আজারেঙ্কার সার্ভিস টানা দু'বার ভেঙে ৪-৩ গেমে এগিয়ে যান। তারপর আর ওসাকাকে পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। দ্বিতীয় সেট ৬-৩ গেমে পকেটে পুরে নেন। তৃতীয় সেটেও আজারেঙ্কা কার্যত দাঁড়াতে পারেননি। চ্যাম্পিয়নশিপ পয়েন্টে তাঁর শট নেটে লাগতেই ওসাকার যেন এক বৃত্ত সম্পূর্ণ হয়। 

১৯৯৪ সালের পর এই প্রথম মেয়েদের সিঙ্গলস ফাইনালে প্রথম সেট হেরে গিয়েও যুক্তরাষ্ট্র ওপেন জেতার নজির গড়লেন ওসাকা। শুধু তাই নয়, চিনের লি না'কে টপকে প্রথম এশিয়ান খেলোয়াড় হিসেবে তৃতীয় গ্র্যান্ডস্লাম (২০১৮ সালের যুক্তরাষ্ট্র ওপেন এবং ২০১৯ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন) জেতার নজির গড়েন ফ্লাশিং মেডোর নয়া রানি। যিনি মহিলা ক্রমপর্যায়ে তৃতীয় স্থানে উঠে এলেন।

তবে তৃতীয় গ্র্যান্ডস্লামেই থেমে যেতে চান না ওসাকা। আরও গ্র্যান্ডস্লামের পাশাপাশি টেনিসের বাইরেও নিজের পরিচিত গড়ে তুলতে চান। অর্থাৎ ইঙ্গিতটা স্পষ্ট, বর্ণবিদ্বেষের প্রচারে লড়াই চালিয়ে যেতে চান ওসাকা। সামনে যে আরও রাউন্ড বাকি আছে। যেখানে চ্যাম্পিয়নশিপ পয়েন্ট জিতে শুনবেন - ‘বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে চ্যাম্পিয়ন ওসাকা-সহ সারা বিশ্ব’।

বন্ধ করুন