বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘কপিল-গাভাসকরদের মধ্যে এমনটা ঘটত’, কোহলি-রোহিতের সম্পর্ক নিয়ে সরব ভারতের প্রাক্তনী

‘কপিল-গাভাসকরদের মধ্যে এমনটা ঘটত’, কোহলি-রোহিতের সম্পর্ক নিয়ে সরব ভারতের প্রাক্তনী

বিরাট কোহলি এবং রোহিত শর্মা।

কোহলি এবং তাঁর ঝামেলা প্রসঙ্গে রোহিত পরিষ্কার সাংবাদিকদের এক হাত নিয়ে বলে দিয়েছেন, ‘সব কিছু আপনাদের দিক থেকেই শুরু হয়েছে। অহেতুক চর্চা বন্ধ করলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।’

রোহিত শর্মার উচিত ছিল, বিরাট কোহলি এবং তাঁর মধ্যে ঝামেলা নিয়ে যে জল্পনা মাথাচারা দিয়েছে, সেটি অনেক আগেই শেষ করে দেওয়া। এমনটাই মনে করেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার অতুল ওয়াসান। যদিও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগে এই প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক হাত নিয়েছেন রোহিত শর্মা। তবে কোহলির সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে যে গুজব, তাতে রোহিত যবনিকা টানতে বড় বেশি দেরী করে ফেলেছেন বলে মনে করেন অতুল ওয়াসন। এই নিয়ে তিনি রোহিতের সমালোচনাও করেছেন।

রোহিত পরিষ্কার সাংবাদিকদের এক হাত নিয়ে বলে দেন, ‘সব কিছু আপনাদের দিক থেকেই শুরু হয়েছে। অহেতুক চর্চা বন্ধ করলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।’ এএনআই-এর সাথে কথা বলার সময়ে অতুল ওয়াসান দাবি করেন, রোহিত এবং কোহলির মধ্যে গুজবগুলি ‘ভিত্তিহীন’ ছিল, কিন্তু এই সমস্যাটি রোহিতের আরও আগেই সমাধান করা উচিত ছিল।

অতুল ওয়াসান পরিষ্কার বলে দিয়েছেন, ‘আমি মনে করি, এই সমস্যার সমাধান অনেক আগেই করা উচিত ছিল। কারণ ভারতীয় ড্রেসিং রুম এবং ক্যাম্প থেকে দাবি উঠেছিল যে, রোহিত এবং বিরাটের মধ্যে ফাটলের বিষয়টি ভিত্তিহীন খবর। তবে আমি মনে করি, প্রতিটি খেলোয়াড়ের কিছু সমস্যা রয়েছে। তার মানেই এই নয় যে, অন্য একজন অধিনায়ক বলে আর এক জন পারফর্ম করবে না। তবে ইতিহাসে এমনটা ঘটেছে। যখন বিষেণ সিং বেদী বনাম সুনীল গাভাসকর এবং কপিল দেব বনাম সুনীল গাভাসকরের মধ্যে এমন পরিস্থিতি এসেছিল। আজকালকার ক্রিকেটাররা কিন্তু পেশাদার।’

এর সঙ্গেই অতুল ওয়াসান যোগ করেছেন, ‘ওরা একসঙ্গে খেলে। একে অপরের বিরুদ্ধেও খেলে। আইপিএল যার উদাহরণ। বছরের বেশীর ভাগ মাসেই ওরা একে অপরের সঙ্গে ট্রাভেল করে। ওরা পরিবারের মতো হয়ে যায়। যে কারণে ভালো সম্পর্ক যেমন তৈরি হয়, আবার দূরত্বও তৈরি হয়। এটা স্বাভাবিক। কিন্তু সেটা নিয়ে জল্পনা বা প্রকাশ্যে আনা ঠিক নয়, যেটা দলে প্রভাব ফেলতে পারে। রোহিত প্রকাশ্যে এই বিষয় নিয়ে কথা বলে ভালো করেছে। এবং আমি একমত যে, বিরাটকে নিয়ে বেশি কথা হচ্ছে।’

বন্ধ করুন