বাংলা নিউজ > ময়দান > ২০৩২ অলিম্পিক্স পর্যন্ত ভারতীয় কুস্তির সমস্ত দায়িত্ব নিল উত্তরপ্রদেশ সরকার
উত্তরপ্রদেশ সরকার ২০৩২ সাল পর্যন্ত ভারতীয় কুস্তির সমস্ত দায় দায়িত্ব নিয়েছে।
উত্তরপ্রদেশ সরকার ২০৩২ সাল পর্যন্ত ভারতীয় কুস্তির সমস্ত দায় দায়িত্ব নিয়েছে।

২০৩২ অলিম্পিক্স পর্যন্ত ভারতীয় কুস্তির সমস্ত দায়িত্ব নিল উত্তরপ্রদেশ সরকার

  • ছোট রাজ্য ওড়িশার দেখানো পথেই হাঁটল বড় রাজ্য উত্তরপ্রদেশের সরকার। ০৩২ সাল পর্যন্ত ভারতীয় কুস্তির সমস্ত দায় দায়িত্ব গ্রহণ করল তারা।

শুভব্রত মুখার্জি: ভারতীয় অলিম্পিক্সের ইতিহাসে হকির পরেই অন্যতম সফল খেলা কুস্তি। বিভিন্ন সময়ে এই ক্রীড়ার হাত ধরে ভারত গেমস থেকে একাধিক পদক জিতেছে। সদ্য শেষ হওয়া টোকিও গেমস থেকে কুস্তিতে ভারত দুটি পদক জিততে সমর্থ হয়েছে। আর এর পরেই ভারতীয় কুস্তির জন্য এল দারুণ এক সুখবর। হকির কায়দায় ২০৩২ সাল পর্যন্ত ভারতীয় কুস্তির সমস্ত দায় দায়িত্ব গ্রহণ করল উত্তরপ্রদেশ সরকার। আর এই কথা জানিয়েছেন ভারতীয় রেসলিং ফেডারেশনের সভাপতি ব্রিজভূষন শরন সিং।

উত্তরপ্রদেশ সরকার ভারতীয় কুস্তির পরিকাঠামো উন্নয়নের ক্ষেত্রে মোট ১৭০ কোটি টাকার বিনিয়োগ করবে। ব্রিজভূষন সিং জানান, ‘ওড়িশা সরকার যে ভাবে হকি খেলাটার পাশে দাঁড়িয়েছে, তা দেখেই আমরা অনুপ্রাণিত হই। আমরা উত্তরপ্রদেশের সরকারের কাছে আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে পৌঁছে যাই। মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথ আমাদের পরিকল্পনা মেনে নিয়েছেন। ২০২৪ সালের প্যারিস অলিম্পিক পর্যন্ত উত্তরপ্রদেশের সরকার প্রতিবছর ফেডারেশন ১০ কোটি টাকা করে মোট ৩০ কোটি টাকা দেবে। ২০২৮ অলিম্পিক্স পর্যন্ত প্রতিবছর ১৫ কোটি করে মোট ৬০ কোটি টাকা দেবে। পরবর্তীতে ২০৩২ সালের গেমস পর্যন্ত ২০ কোটি করে ৮০ কোটি টাকা দেওয়া হবে উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে।’

মূলত তথাকথিত ছোট রাজ্য ওড়িশার দেখানো পথেই হাঁটল বড় রাজ্য উত্তরপ্রদেশের সরকার। ভারতীয় রেসলিং ফেডারেশনের তরফে জানানো হয়েছে এই অর্থ শুধুমাত্র ভারতীয় এলিট কুস্তিগীরদের জন্য নয় ক্যাডেট লেভেলের কুস্তিগীরদের জন্য ও ব্যবহার করা হবে। উল্লেখ্য ২০১৮ সালে ভারতীয় রেসলিং ফেডারেশনের সাথে টাটা মোটরসের এক চুক্তি হয়। ফলে টোকিও গেমস পর্যন্ত মোট ১২ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা পেয়েছিল। যোগি সরকারের এই স্পন্সরশিপের ফলে ক্যাডেট পর্যায়ের কুস্তিগীররা ও বিদেশে গিয়ে অনুশীলন করা থেকে শুরু করে প্রতিযোডিতায় অংশ নিতে পারবে।

বন্ধ করুন