বাংলা নিউজ > ময়দান > ভিডিয়ো- ভারতের ৫০তম ODI কেন্দ্র হতে চলেছে রায়পুর, রোহিতদের দেখতে চোখে পড়ার মত উদ্দীপনা

ভিডিয়ো- ভারতের ৫০তম ODI কেন্দ্র হতে চলেছে রায়পুর, রোহিতদের দেখতে চোখে পড়ার মত উদ্দীপনা

রায়পুরে রোহিতদের উষ্ণ অভ্যর্থনা।

বুধবার হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে প্রথম খেলায় হাড্ডাবাড্ডি লড়াইয়ের পর, অবশেষে শেষ হাসি হাসে মেন ইন ব্লু। সেই সঙ্গে সিরিজে তারা ১-০ এগিয়ে যায়। সেই উচ্ছ্বাসের ধারা ধরে রেখেই রোহিত শর্মা অ্যান্ড কোং রায়পুরের টিম হোটেলে একটি আবেগপবর্ণ অভ্যর্থনা পায়।

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচের আগে রায়পুরের হোটেলে পৌঁছানোর পরে টিম ইন্ডিয়াকে দুর্দান্ত ভাবে স্বাগত জানানো হয়। বুধবার হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে প্রথম খেলায় হাড্ডাবাড্ডি লড়াইয়ের পর অবশেষে শেষ হাসি হাসে মেন ইন ব্লু। সেই সঙ্গে সিরিজে তারা ১-০ এগিয়ে যায়।

সেই উচ্ছ্বাসের ধারা ধরে রেখেই রোহিত শর্মা অ্যান্ড কোং রায়পুরের টিম হোটেলে একটি আবেগপবর্ণ অভ্যর্থনা পায়। ঐতিহ্যশালী নৃত্যের সঙ্গে রোহিতদের স্বাগত জানানো হয়। মুগ্ধ হয়ে যান টিম ইন্ডিয়ার তারকারাও। তারকা অল-রাউন্ডার হার্দিক পাণ্ডিয়া প্রথম দলের বাস থেকে নামেন। এর পর মহম্মদ সিরাজ, শার্দুল ঠাকুর এবং উমরান মালিকরাও ছিলেন।

রায়পুরে পৌঁছতেই যেমন ভক্তরা টিম ইন্ডিয়াকে উষ্ণ অভ্যর্থনায় ভরিয়ে দিয়েছিলেন, তেমনই হোটেলে পৌঁছতে নাচের পাশাপাশি উত্তরীয় পরিয়েও অভ্যর্থনা জানানো হয়।

আরও পড়ুন: অভিষেকেই চমকে দিলেন আমানজোৎ, ২৭ রানে প্রোটিয়াদের হারালেন স্মৃতিরা

হায়দরাবাদে প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিকে কিউয়ি অলরাউন্ডার মাইকেল ব্রেসওয়েলের বিধ্বংসী আক্রমণকে পরাস্ত করে ভারত ১২ রানে দুরন্ত জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ৭৮ বলে ১৪০ করেন ব্রেসওয়েল। মিচেল স্যান্টনারের সঙ্গে ১৬২ রানের পার্টনারশিপ গড়ে নিউজিল্যান্ডকে জয়ের দরজার সামনে প্রায় পৌঁছেই দিয়েছিলেন। অল্পের জন্য জিততে পারেনি কিউয়ি ব্রিগেড।

৩৫০ রান তাড়া করতে নেমে ২৯তম ওভারে নিউজিল্যান্ড ১৩১ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে থাকে। সেখান থেকে স্যান্টনারকে সঙ্গে নিয়ে কিউয়িদের প্রায় জয়ের দরজার সামনে পৌঁছে দিয়েছিলেন ব্রেসওয়েল। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।

শেষ ১০ ওভারে ভারত বেশ চাপেই পড়ে গিয়েছিল। তবে শেষ ওভারে বল করতে এসে শার্দুল ঠাকুর দ্বিতীয় ডেলিভারিতে ব্রেসওয়েলকে আউট করেন। সেই সঙ্গে নিউজিল্যান্ড ৩৩৭ রানে অলআউট হয়ে যায়।

এর আগে রোহিত টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভারতও খুব ভালো জায়গায় ছিল না। তবে শুভমন গিলের ১৪৯ বলে ২০৮ রানের ইনিংসের হাত ধরে ৩৪৯ রান করেছিল ভারত।

আরও পড়ুন: এটা করা ঠিক নয়, এটা ক্রিকেট নয়- ইশানের ওপর খচে লাল গাভাসকর

জেতার পরেও রোহিত শর্মা মেনে নেন, একটা সময়ে তাঁর উপর হারের আতঙ্ক চেপে বসেছিল। তিনি ভেবেছিলেন, ম্যাচ হাতের বাইরে বেরিয়ে গিয়েছে। ৩৪৯ করার পরেও যে এমন অবস্থা হতে পারে, রোহিত ভাবতেই পারেননি।

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচের পর রোহিত বলেছিলেন, ‘টসের পরে বলেছিলাম, নিজেদের পরীক্ষার মধ্যে ফেলতে চাই। কিন্তু এমনটা হবে ভাবিনি। কিন্তু সেটা হল। যদিও শেষ পর্যন্ত জিতলাম। আমরা জানতাম, ভালো বল করতে পারলে সহজে জিতে যাব। নইলে এই ম্যাচও হাতের বাইরে বেরিয়ে যেতে পারে। যে ভয়টা পেয়েছিলাম সেটাই প্রায় হতে যাচ্ছিল। ব্রেসওয়েল যে ভাবে মারছিল তাতে ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জিততে পেরেছি। সেটাই আনন্দের।’

তবে হায়দরাবাদের স্মৃতি ভুলে রোহিতরা রায়পুরে সিরিজ ২-০ পকেটে পোড়া। কোনও ভাবেই তারা নিউজিল্যান্ডকে সমতা ফেরাতে দিতে রাজি নয়।

বন্ধ করুন