বাংলা নিউজ > ময়দান > অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বিরাট মাত্রাতিরিক্ত স্লেজিং করত, দাবি বাংলাদেশ তারকার
কোহলিকে ফিরিয়ে রুবেলের উচ্ছ্বাস।
কোহলিকে ফিরিয়ে রুবেলের উচ্ছ্বাস।

অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বিরাট মাত্রাতিরিক্ত স্লেজিং করত, দাবি বাংলাদেশ তারকার

  • ডট বল করলেই বোলারকে নাকি গালাগাল দেন ভারত অধিনায়ক!

২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে বিরাট কোহলির উইকেট নেওয়ার পর রুবেল হোসেন কেন মাত্রাতিরিক্ত উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন, জানা গেল এতদিনে। শুধুমাত্র এই কারণে নয় যে, বিরাট বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান এবং ওঁর উইকেট অত্যন্ত মূল্যবান বলে। আসলে রুবেলের সঙ্গে কোহলির মাঠের প্রতিদ্বন্দ্বিতা দীর্ঘদিনের।

শুধু বিশ্বকাপেই নয়, একে অপরের বিরুদ্ধে যখনই বাইশগজে মুখোমুখি হন, বিরাটের সঙ্গে রুবেলের খটাখটি চলতেই থাকে। সেই অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায় থেকেই দু'জনের আদায়-কাঁচকলায় সম্পর্ক। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের আগেই দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ত্রিদেশিয় সিরিজে রুবেলের সঙ্গে বিরাটের ঝামেলা বেঁধেছিল, যা মেটাতে আম্পায়ারকে মধ্যস্থতা করতে হয়।

তামিম ইকবাল ও তাস্কিন আহমেদের সঙ্গে ফেসবুক লাইভে কথা বলার সময় রুবেল ২০০৮ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ ত্রিদেশিয় টুর্নামেন্টের কথা জানান। তিনি বলেন, ‘আমি বিরাটের সঙ্গে অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায় থেকেই ক্রিকেট খেলছি। সেই থেকেই আমাদের মধ্যে কিছু না কিছু লেগেই থাকে। অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বিরাট স্লেজিংয়ে অভ্যস্থ ছিল। ও প্রচুর কথা বলত আমাদের ব্যাটসম্যানদের। এখন অবশ্য এতটা স্লেজিং করে না। দক্ষিণ আফ্রিকায় ত্রিদেশিয় সিরিজের একটি ম্যাচে কোহলি রীতিমতো হেনস্থা করেছিল আমাদের। আমরা সেই থেকেই জানি ও কেমন। আমার সঙ্গে একবার ওর এতটাই ঝামেলা বাঁধে যে আম্পায়ারকে এগিয়ে আসতে হয়।’

আর এক বাংলাদেশ ক্রিকেটার আল আমিন হোসেন রীতিমতো অভিযোগের সুরে বলেন যে, বোলাররা ডট বল করলেই কোহলি কটুক্তি করেন। তাঁর কথায়, 'বিরাট কোহলি আপনাকে কথা শোনাবে যতবার আপনি ওকে ডট বল করবেন। ও রীতিমতো খারাপ কথা বলে, যা সবার সামনে বলার যোগ্য নয়। ও বোলারের উপর মানসিক চাপ তৈরির চেষ্টা করে। আমি ক্রিস গেইল, শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মার মতো গ্রেট ব্যাটসম্যানদের বল করেছি। ওরা কেউ কোহলির মতো নয়। ভালো বলকে ওরা সম্মান দেয়।'

বন্ধ করুন