বাংলা নিউজ > ময়দান > দিল্লিতে ফ্রি অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ব্যাঙ্ক চালু করছেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ
বীরেন্দ্র সেহওয়াগ (ছবি: টুইটার)
বীরেন্দ্র সেহওয়াগ (ছবি: টুইটার)

দিল্লিতে ফ্রি অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ব্যাঙ্ক চালু করছেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ

  • অক্সিজেনের অভাবে কারোর যেন মৃত্যু না হয়, অক্সিজেনের অভাবে কেউ যেন নিজের প্রিয় মানুষকে না হারান। এই ব্রত নিয়েই এবার এগিয়ে এলেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। নিজের চেষ্টায় চালু করলেন অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ব্যাঙ্ক। বীরুর এই উদ্যোগকে সকলেই কুর্নিশ জানাচ্ছেন।

অক্সিজেনের অভাবে কারোর যেন মৃত্যু না হয়, অক্সিজেনের অভাবে কেউ যেন নিজের প্রিয় মানুষকে না হারান। এই ব্রত নিয়েই এবার এগিয়ে এলেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। নিজের চেষ্টায় চালু করলেন অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ব্যাঙ্ক। বীরুর এই উদ্যোগকে সকলেই কুর্নিশ জানাচ্ছেন।

সারা বিশ্বে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। ভারতে এর প্রভাব খুবই ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে। মৃত্যু মিছিল দেখা দিচ্ছে সর্বত্র। স্বজন হারা মানুষের সংখ্যা দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমন অবস্থাতে দেশের চিকিৎসার অবস্থা আরও কঠিন অবস্থার দিকে এগোচ্ছে।

দেশের এমন করোনা পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করতে বহু ক্রিকেটার দেশের মানুষের পাশে থাকতে এগিয়ে এসেছেন। সচিন থেকে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, বিরাট কোহলি থেকে আর অশ্বিন সকলেই নিজেদের সাধ্য মতো  কাজ করছেন। এই তালিকয়া নতুন সংযোজন হল বীরেন্দ্র সেহওয়াগের নাম। 

দিল্লির মানুষের পাশে থাকতে বীরু এবার অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটরের একটি ব্যাঙ্ক খুললেন। বীরু জানিয়েছেন, এখান থেকে সকলে প্রয়োজন মতো অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর নিতে পারেন, দরকার শেষ হয়ে গেলে অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর এখানে ফিরিয়ে দেবেন। করোনা রোগীদের জন্য এই পরিষেবা বিনামূল্যে দিতে চলেছেন বীরু। নিজের ভিডিও বার্তার মাধ্যমে এই পরিষেবা চালু করেন সেহওয়াগ।

সেহওয়াগ নিজের বার্তায় জানান, ‘নমস্কার বন্ধুরা, আজ একটা কথা বলব, না যেটা বলব সেটা মন থেকে অনুভব করেছি। কয়েক সপ্তাহ আগে আমায় আমার অতি প্রিয় এক বন্ধু ফোন করেছিল, ওর গলা শুনে বুঝেছিলাম যে যদি শীঘ্রই কিছু না করি তাহলে একটা বন্ধুকে হারাব। অনেক জায়গায় ফোন করার পরে অনেক সমস্যার মধ্য়ে থেকে একটা অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর জোগাড় করেছিলাম। সত্যি কথা বন্ধুরা এর আগে আমি কনসেন্ট্রেটরের নামটাও জানতামনা। এখনও অনেক কিছু জানিনা, তবে এইটুকু জানি যদি কারোর অক্সিজেন মাত্রা কমে যায় তাহলে সে এটা দিয়ে নিঃশ্বাস নিতে পারে। এবং অক্সিজেন লেভেল সঠিক মাত্রায় করার জন্য এটা সাহায্য করে।’

বীরেন্দ্র সেহওয়াগ নিজের এই উদ্যোগকে নাম দিয়েছেন রাহাত কি সানস। মানে নিশ্চিন্তের নিঃশ্বাস। এই উদ্যোগককে সফল করতে একটি নম্বর নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করেন বীরু। তিনি বলেন যদি আপনার প্রিয় মানুষের অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটরের প্রয়োজন হয় তাহলে আমাদের এই  নম্বরের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। এবং  অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ফ্রিতে নিয়ে যান। তবে কাজ হয় গেলে ফেরত দিয়ে যাবেন। ওটা আবার অন্য কোনও প্রয়োজনীয় ব্যক্তির কাজে লাগতে পারে।

বীরু এই কাজকে সকলেই কুর্নিশ জানাচ্ছেন। তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও করোনার সময় সাধারণ মানুষকে খাবার দিয়ে এগিয়ে এসেছিলেন বীরু।

বন্ধ করুন