বাংলা নিউজ > ময়দান > দু' বছরের শিশুর বিরল রোগের চিকিৎসায় এগিয়ে এলেন বিরুষ্কা
বিরাট কোহলি এবং অনুষ্কা শর্মার মহৎ উদ্যোগ।
বিরাট কোহলি এবং অনুষ্কা শর্মার মহৎ উদ্যোগ।

দু' বছরের শিশুর বিরল রোগের চিকিৎসায় এগিয়ে এলেন বিরুষ্কা

  • শিরদাঁড়ার জটিল জিনঘটিত রোগের শিকার বছর দুয়েকের আয়াংস গুপ্তা। ডাক্তারি পরিভাষায় যে রোগের নাম স্পাইনাল মাসকুলার অ্যাট্রফি বা এসএমএ। এর চিকিৎসায় অপরিহার্য ইঞ্জেকশনটির নাম জোলগেন এসএমএ। তারই দাম ১৬ কোটি টাকা।

বিরল স্নায়ুরোগের চিকিৎসায় ইঞ্জেকশনের দামই ১৬ কোটি টাকা! এমন মহার্ঘ ওষুধ কিনে দুই বছরের সন্তানের চিকিৎসা করানোর সাধ্য ছিল না বাবা-মায়ের। সাহায্যের আর্জি জানিয়ে তাঁরা টুইটারে আবেদন জানান। সেই আবেদনেই সাড়া দেন দেশের অন্যতম দুই সেলেব্রিটি ভারতীয় ক্রিকেট দলের ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলি ও তাঁর স্ত্রী বলিউডি অভিনেত্রী অনুষ্কা শর্মা। তাঁদের সমবেত প্রচেষ্টা ও উদ্যোগে জোগাড় হয়ে যায় ইঞ্জেকশন কেনার প্রয়োজনীয় টাকা।

বছর দুয়েকের ওই খুদের নাম আয়াংস গুপ্তা। শিরদাঁড়ার জটিল জিনঘটিত রোগের শিকার সে। ডাক্তারি পরিভাষায় যে রোগের নাম স্পাইনাল মাসকুলার অ্যাট্রফি বা এসএমএ। এর চিকিৎসায় অপরিহার্য ইঞ্জেকশনটির নাম জোলগেন এসএমএ। তারই দাম ১৬ কোটি টাকা।

শিশুটির বাবা যোগেশ ও মা রূপাল গুপ্তার পক্ষে ব্যয়বহুল এই ওষুধ কেনার সামর্থ্য ছিল না। তাঁরা টুইটারে ‘আয়াংসফাইটসএসএমএ’ নামে একটি পেজ খোলেন। ঘটনাচক্রে ওই টুইট নজরে আসে বিরুস্কার। তাঁরা উদ্যোগী হয়ে অর্থ সংগ্রহে নামেন। তাঁদের উদ্যোগেই জোগাড় হয়ে যায় ওই ইঞ্জেকশনের অর্থ। টুইট করে বিরাট ও অনুষ্কা জানান, অবেশেষে আমরা পেরেছি। অত্যন্ত খুশির সঙ্গে জানাচ্ছি, ১৬ কোটি টাকা সংগ্রহ করা গিয়েছে। যাঁরা আমাদের সাহায্য করেছেন তাঁদের ধন্যবাদ জানাই। কার্যত বাক্যহারা যোগেশ ও রূপাল দু’জনকেই আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন। বলেছেন, ‘আমরা আপনাদের দু’জনেরই ফ্যান। কিন্তু যে উদ্যোগ আপনারা নিলেন তা আমাদের কল্পনার বাইরে। আপনাদের উদারতাকে আমরা ধন্যবাদ জানাই। ছক্কা হাঁকিয়ে জীবনের ম্যাচ জিততে আপনারা সাহায্য করলেন। আপনাদের এই ঋণ ভোলার নয়।’  

বন্ধ করুন