বাংলা নিউজ > ময়দান > ওয়ার্নার-ট্রেভিস-স্মিথের ব্যাটে ফিকে মালানের লড়াই, ইংল্যান্ডকে হারিয়ে সিরিজে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া

ওয়ার্নার-ট্রেভিস-স্মিথের ব্যাটে ফিকে মালানের লড়াই, ইংল্যান্ডকে হারিয়ে সিরিজে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া

ইংল্যান্ডকে হারাল অস্ট্রেলিয়া (ছবি-এএফপি)

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডকে ছয় উইকেটে হারিয়ে দিল অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার ও ট্রেভিস হেড একসঙ্গে জোরালো সূচনা করে ছিল। এর পর ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান স্টিভ স্মিথ।

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডকে ছয় উইকেটে হারিয়ে দিল অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার ও ট্রেভিস হেড একসঙ্গে জোরালো সূচনা করে ছিল। এর পর ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান স্টিভ স্মিথ। পুরো ম্যাচেই খেলার রাশ ধরে রেখে ছিল অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ড দল স্বাগতিকদের উপর ব্রেক ফেলতে সক্ষম হয়েছে বলে মনে হয়নি। তবেডেভিড মালান বাদে কেউ সে ভাবে খেলতে পারেননি। ডেভিড মালান দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করেছিলেন এবং কোনও খেলোয়াড়ই প্রভাব ফেলতে পারেননি। মালানের ১২৮ বলে ১৩৪ রানের ইনিংসের উপর ভর করে ৫০ ওভারে ইংল্যান্ডের স্কোর হয় ২৮৭ রান। ইংল্যান্ড একটা সময়ে ৬৬ রানে চার উইকেট হারিয়েছিল। কিন্তু মালান সেখান থেকে স্কোরকে এগিয়ে নিয়ে যান। 

আরও পড়ুন… পুনম যাদবের নেতৃত্বে সিনিয়র মহিলা আন্ত: জোনাল টি ২০তে চ্যাম্পিয়ন হল মধ্যাঞ্চল

জবাবে ডেভিড ওয়ার্নার ৮৪ বলে ৮৬ রান করেন। তাঁর এদিনের ইনিংসে ছিল ১০টি চার ও একটি ছক্কা। ওয়ার্নারের সঙ্গে ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যান ট্রেভস হেড। তিনি ৫৭ বলে ৬৯ রান করেন। তিনিও নিজের ইনিংসে ১০টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান। ওপেনিং ১৪৭ রান পার্টনারশিপের পরে ট্রেভিস হেডসের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। এরপরে দলের ২০০ রানের মাথায় ওয়ার্নারের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। এরপরে অ্যালেক্স ক্যারে ২৮ বলে ২১ রান করে আউট হন এবং মার্নাস চার রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তবে শেষ পর্যন্ত স্টিভ স্মিথের ৭৮ বলে অপরাজিত ৮০ রান করে অস্ট্রেলিয়ার জয় নিশ্চিত করেন। স্মিথকে যথার্থ সঙ্গ দিয়েছিলেন ক্যামরুন গ্রিন। ২৮ বলে অপরাজিত ২০ রানের ইনিংস খেলেন গ্রিন। 

আরও পড়ুন… ICC T20 WC 2022-এ ওয়েস্ট ইন্ডিজের লজ্জার হারের পর্যালোচনা করবেন লারা-আর্থার

ম্যাচের কথা বললে এদিন অ্যাডিলেড ওভালে টস জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক প্যাট কামিন্স। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৮৭ রান তোলে। ডেভিড মালান ইংল্যান্ডকে লড়াই-এর শক্তি দেন। কারণ একদিক থেকে জেসন রয়, ফিল সল্ট জেমস ভিনস, স্যাম বিলিং-এর উইকেট পড়ে গেলেও একা লড়াই চালিয়ে যান মালান। জোস বাটলার ৩৪ বলে ২৯ রানের ইনিংস খেলেন এরই সঙ্গে ডেভিড উইলি ৪০ বলে করেন ৩৪ রান। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বল হাতে জাম্পা ও কামিন্স তিনটি করে উইকেট নেন। মিচেল স্টার্ক ও স্টোয়নিস একটি করে উইকেট নেন। এদিন ম্যাচ হারলেও খেলার সেরা নির্বাচিত হন ডেভিড মালান।  ১৯ বল বাকি থাকতেই নিজেদের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া।

বন্ধ করুন