৪২ বছর বয়সে অবসর ঘোষণা করলেন ওয়াসিম জাফর।
৪২ বছর বয়সে অবসর ঘোষণা করলেন ওয়াসিম জাফর।

দীর্ঘ ইনিংসে দাঁড়ি, অবসর নিলেন প্রাক্তন জাতীয় ওপেনার ওয়াসিম জাফর

৪২ বছর বয়সে অবসর ঘোষণা করলেন জাফর, রঞ্জি ট্রফির ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হিসেবে যাঁকে মনে রাখবেন ক্রিকেট অনুরাগীরা।

সব ফরম্যাটের ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করলেন জাতীয় দলের প্রাক্তন ওপেনার তথা বেশ কয়েক বার রঞ্জিজয়ী দলের সদস্য মুম্বইয়ের ব্যাটসম্যান ওয়াসিম জাফর।

শনিবার অবসর ঘোষণা করলেন বছর বিয়াল্লিশের জাফর, রঞ্জি ট্রফির ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হিসেবে যাঁকে মনে রাখবেন ক্রিকেট অনুরাগীরা।

১৯৯৬-৯৭ মরশুমে রঞ্জি ট্রফিতে অভিষেক ম্যাচে সৌরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অপরাজিত ৩১৪ রান করে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন তিনি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সব মিলিয়ে ২৬০ ম্যাচ খেলে তিনি করেছেন ১৯,৪১০ রান। এই ফরম্যাটে তাঁর ব্যাটিং গড় ৫০.৬৭। ৫৭টি প্রথম শ্রেণির শতরান এবং ৯১টি অর্ধশতরানের মালিক জাফর। রঞ্জিতে প্রথমে মুম্বইয়ের হয়ে খেললেও পরে তিনি কিছু ম্যাচ বিদর্ভের হয়েও খেলেন।

জাতীয় দলের ওপেনার হিসেবে ওয়াসিম জাফর সুযোগ পান ২০০০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতের হয়ে প্রথম মাঠে নামেন জাফর। জাতীয় দলের হয়ে ২০০০-২০০৮ সালের মধ্যে তিনি ৩১টি টেস্ট এবং দুটি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন। ৩১ টেস্ট থেকে তাঁর সংগ্রহ ১,৯৪৪ রান, গড় ৩৪.০১, যার মধ্যে রয়েছে ৫টি শতরান ও ১১টি অর্ধশতরান।

২০০৬ সালে দুর্ভেদ্য টেকনিক ও অনবদ্য ব্যাটিং স্টাইলের উপর নির্ভর করেই সেন্ট জন’স-এ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত ২১২ রান করকেন জাফর। ওই বছরেই দক্ষিম আফ্রিকার বিরুদ্ধে দু’টি ওডিআই-তেও তাঁকে দেখা যায়। আইপিএল-এ রয়্যাল চ্যানেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর দলে তিনি খেলেছেন।

অবসরগ্রহণের সিদ্ধান্ত জানিয়ে টুইটারে তাঁর বিবৃতির ছত্রে ছত্রে ক্রিকেটের প্রতী তীব্র প্রেমের কথা জানিয়েছেন ওয়াসিম জাফর। কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন প্রাক্তন সতীর্থ হিসেবে সচিন তেন্ডুলকর, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, রাহুল দ্রাবিড়, বীরেন্দ্র শেহওয়াগ, সঞ্জয় মঞ্জরেকর ও মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো তারকাদের সঙ্গে সড্রেসিংরুম ভাগ করার সৌভাগ্য লাভ করেছেন বলে। বিশেষ ধন্যবাদ জানিয়েছে স্কুল থেকে পেশাদার ক্রিকেট দুনিয়া পর্যন্ত তাঁর পথপ্রদর্শক কোচদের।

২২ গজ থেকে বিদায় নিলেও ক্রিকেট তাঁর জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। সেই কারণে, অবসরের পরে কোচ অথবা ধারাভাষ্যকারের ভূমিকায় নিজেকে দেখতে চান ওয়াসিম জাফর। নিজেকে এক একনিষ্ঠ ক্রেকট-সেবক হিসেবেই রেখে যেতে চান অসংখ্য ভক্ত-হৃদয়ে।

বন্ধ করুন