বাড়ি > ময়দান > করোনা ভাইরাসের জেরে ছোটবেলার অভ্যাস বদলাতে হবে, সংশয়ে মহম্মদ শামি
রবি শাস্ত্রীর নজরদারিতে শামির অনুশীলন। ছবি- এএনআই।
রবি শাস্ত্রীর নজরদারিতে শামির অনুশীলন। ছবি- এএনআই।

করোনা ভাইরাসের জেরে ছোটবেলার অভ্যাস বদলাতে হবে, সংশয়ে মহম্মদ শামি

  • বলে লালা না লাগিয়েও কীভাবে রিভার্স সুইং করাতে হয় জানা আছে, দাবি টিম ইন্ডিয়ার তারকা পেসারের।

লকডাউনের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরলে নিষিদ্ধ হতে চলেছে বল পালিশের ক্ষেত্রে লালার ব্যবহার। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কাতেই অনিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন ক্রিকেট কমিটি আইসিসিকে লালা নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব দিয়েছে। সুতরাং বোলারদের কাছে, বিশেষ করে পেসারদের কাছে কাজ অত্যন্ত কঠিন হয়ে দাঁড়াতে চলেছে। 

লালার ব্যবহার বন্ধ হওয়ায় কাজ কঠিন হবে মেনে নিয়েও মহম্মদ শামি মনে করেন, বল রিভার্স সুইং করাতে অসুবিধা হবে না তাঁর। টিম ইন্ডিয়ার তারকা পেসার স্পষ্ট জানালেন, লালা ব্যবহার করেই হোক, অথবা না করেই হোক, মসৃণতা বজায় রাখতে পারলে তিনি বলকে রিভার্স সুইং করাতে পারবেন।

ইনস্টাগ্রামে ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা প্রসঙ্গে শামি বলেন, ‘কাজটা কঠিন হবে সন্দেহ নেই। ছেলেবেলা থেকে আমরা বলে লালা ব্যবহার করতে আসছি। এটা অভ্যাসে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। একজন পেসার নিজের অজান্তেই পালিশের জন্য বলে লালা লাগিয়ে বসে। তবে হ্যাঁ, যদি আপনি শুকনো বলের চকচকে ভাব বজায় রাখতে পারেন, অবশ্যই রিভার্স করাতে পারবেন।’

থুতু বা লালার ব্যবহার বন্ধ হলেও আইসিসি বলে ঘাম ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে। যদিও শামি মনে করছেন না এটা কার্যকরী হতে পারে। তাঁর কথায়, ‘লালা ও ঘাম বলে আলাদা প্রভাব ফেলে। আমার মনে হয় না ঘামের ব্যবহার খুব একটা লাভদায়ক হবে। আমি কখনও লালা ছাড়া বোলিং করার চেষ্টা করিনি। তবে এখন করোনা ভাইরাসের জন্য লালার ব্যবহার বন্ধ করা অত্যন্ত জরুরি।’

বন্ধ করুন