রাসেলের সঙ্গে শাহরুখ খান। ছবি- টুইটার।
রাসেলের সঙ্গে শাহরুখ খান। ছবি- টুইটার।

ইডেনের ৬০ হাজার দর্শকের সামনে ক্রিকেটকে আবেগঘন বিদায় জানাতে চান রাসেল

  • ইডেনে খেলতে নামার অনুভূতির সঙ্গে আর কোনও কিছুর তুলনা হয় না বলে জানালেন ক্যারিবিয়ান অল-রাউন্ডার।

অবসরের আগে পর্যন্ত কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়েই মাঠে নামতে চান আন্দ্রে রাসেল। বরং বলা ভালো KKR-এর হয়ে খেলেই ব্যাট-প্যাড চিরকালের মতো তুলে রাখতে চান ক্যারিবিয়ান অল-রাউন্ডার।

নাইট রাইডার্সের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাসেল জানালেন, ইডেন গার্ডেন্সে নাইট রাইডার্সের হয়ে মাঠে নামার যে অনুভূতি, তা তুলনাহীন। তিনি স্বপ্ন দেখেন একদিন ইডেনের ৬০ হাজার দর্শকের সামনে আবেগঘন বিদায় জানাবেন ক্রিকেটার জীবনকে।

জামাইকান অল-রাউন্ডার আরও জানান, তিনি নাইট রাইডার্স থেকে অনেক কিছু পেয়েছেন। তবে তাঁর প্রাপ্তির ভাঁড়ার পূরণ হয়নি। তিনি এখনও সাফল্য চান দলের হয়ে। তিনি আইপিএলের ট্রফি এনে দিতে চান নাইট রাইডার্সকে। এবার তাঁদের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে, একথা উল্লেখ করতেও ভোলেননি রাসেল।

আন্দ্রে রাসেলের কথায়, ‘আগে একটা কথা স্বীকার করে নিই, আইপিএল হল সেই টুর্নামেন্ট, যেখানে ক্রিকেট খেলতে নামলে আমার সারা শরীরে শিহরণ জাগে।ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়র লিগে খেলতে নামাও আমাকে শিহরিত করে বটে, তবে আইপিএলে বিশেষ করে ইডেন গার্ডেন্সে খেলতে নামার সঙ্গে কোনও কিছুর তুলনা চলে না।’

ক্যারিবিয়ান অল-রাউন্ডার আরও বলেন, ‘ইডেনে ব্যাট করতে নামলে প্রথম বল খেলার আগে রীতিমতো গায়ে কাঁটা দেয়। মাঠে নামার সময় দর্শকরা যেভাবে স্বাগত জানায়, এটা তারই ফল। সবাই আমার নাম ধরে চিৎকার করে। নিখাদ ভালোবাসা ছাড়া এটা হয় না। এটা আমাকে চাপে ফেলে বটে। তবে এই চাপটা অত্যন্ত ইতিবাচক, যেটা আপনাকে ভালো খেলতে সাহায্য করে।’

নাইট তারকা পরক্ষণেই বলেন, ‘যখন ম্যাচের শেষ পাঁচ ওভার বাকি থাকে এবং ওভারে ১২-১৩ রান করে প্রয়োজন হয়, তখন দর্শকদের এই সমর্থনটাই আমাকে কাজটা সম্পন্ন করতে সাহায্য করে। দর্শকরা যেন বলে, আমরা তোমার পিছনে রয়েছি। যাও নিজের কাজটা করে দেখাও। আমি জানি পরপর দু’টো ম্যাচে ব্যর্থ হলেও তৃতীয় ম্যাচে ব্যাট করার সময় একই রকমের সমর্থন পাবো দর্শকদের কাছ থেকে।'

শেষে রাসেল জানান, ‘আমি প্রিমিয়র লিগে ফুটবলারদের দেখেছি, বাস্কেটবলে (NBA) দেখেছি, যখন খেলা ছাড়ার সময় আসে তারকারা দর্শকদের কাছ থেকে বিদায় চেয়ে নেয়। ফুটবলারদের কাঁদতেও দেখেছি এই সময়টায়। এটা একটা বিশেষ মুহূর্ত। আমিও চাই একদিন ইডেনে দাঁড়িয়ে বলবো, শোনো শাহরুখ, শোনো সমস্ত KKR স্টাফেরা, এটাই আমার শেষ ম্যাচ। ইডেনের দর্শকদের কাছ থেকে বিদায় চেয়ে নিয়েই কেরিয়ারে ইতি টানার স্বপ্ন দেখি।’

বন্ধ করুন