বাংলা নিউজ > ময়দান > একসঙ্গে দু'টি জাতীয় দল গড়ার যে কী বিড়াম্বনা, হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছিল ভারত
সচিন ও সৌরভ ছিলেন আলাদা আলাদা দলে। ছবি- বিসিসিআই।
সচিন ও সৌরভ ছিলেন আলাদা আলাদা দলে। ছবি- বিসিসিআই।

একসঙ্গে দু'টি জাতীয় দল গড়ার যে কী বিড়াম্বনা, হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছিল ভারত

  • সাহারা কাপ ও কমনওয়েলথ গেমস, একূল ওকূল দু'কূল যায় টিম ইন্ডিয়ার।

বিরাট কোহলিরা ইংল্যান্ড সফরে থাকাকালীন ভারতের আরও একটি দল সীমিত ওভারের সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কায় উড়ে যাবে। বিসিসিআইয়ের তরফে একথা জানিয়ে দেওয়ার পরেই ক্রিকেট বিশ্বের চর্চায় একই সঙ্গে দু'টি জাতীয় দলের প্রসঙ্গ।

এমনটা নয় যে, একই সময় দু'টি টুর্নামেন্টে আলাদা আলাদা দল পাঠানোর পরিকল্পনা এই প্রথম। বরং এমনটা আগেও হয়েছে। ভারত এর আগেও দু'টি আলাদা টুর্নামেন্টে দু'টি দল পাঠিয়েছিল।

১৯৯৮ সালে কুয়ালালামপুরে কমনওয়েলথ গেমসের জন্য একটি দল নির্বাচন করে ভারত। সেই সঙ্গে কানাডায় সাহারা কাপের জন্য অন্য একটি দল গড়ে নেওয়া হয়। যদিও একই সঙ্গে দু'টি টুর্নামেন্টের জন্য দু'টি দল গড়ে বিড়াম্বনায় পড়তে হয়েছিল বিসিসিআইকে।

প্রথমত, সচিন, কুম্বলে, লক্ষ্মণরা অজয় জাদেজার নেতৃত্বে কমনওয়েলথ গেমসে খেলতে গিয়েছিলেন। সৌরভ, দ্রাবিড়, শ্রীনাথ, প্রসাদরা আজহারের নেতৃত্বে সাহারা কাপে মাঠে নামেন।

কমনওয়েলথ গেমসের গ্রুপ ম্যাচে ভারত অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে ও কানাডার বিরুদ্ধে জেতে। তবে অ্যান্টিগার বিরুদ্ধে ভারতের ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেস্তে যায়। ফলে গ্রুপ থেকেই বিদায় নিতে হয় ভারতকে।

অন্যদিকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সাহারা কাপের প্রথম তিনটি ম্যাচে ভারত পিছিয়ে ছিল ১-২ ব্যবধানে। তাই কমনওয়েলথ গেমস থেকে সচিনদের সরাসরি কানাডায় পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় ভারতীয় বোর্ড। যদিও পাকিস্তান তীব্র আপত্তি জানায়। প্রাথমিক স্কোয়াডের বাইরে নতুন কেউ সাহারা কাপে তাদের বিরুদ্ধে মাঠে নামুক, এটা চাননি আমির সোহেলরা।

বিসিসিআই সচিন, কুম্বলে, জাদেজা ও রবিন সিংকে কানাডায় পাঠাতে চেয়েছিল। যদিও পাকিস্তানের আপত্তিতে শেষমেশ জাদেজা আর সচিনকে স্কোয়াডে ঢোকানো সম্ভব হয়। তাও আবার সচিন পরিবার নিয়ে ছুটিতে যাওয়ায় চতুর্থ ম্যাচে একা জাদেজা মাঠে নামেন। শেষ ম্যাচে সচিনকে দলে পায় টিম ইন্ডিয়া। ভারত সিরিজ হারে ১-৪ ব্যবধানে। সুতরাং, জোড়া দল গড়ে দু'টি টুর্নামেন্টেই ভরাডুবি হয় ভারতের।

বন্ধ করুন