বাংলা নিউজ > ময়দান > লর্ডসের ব্যালকনিতে আজানের সুর! আরও এক বার ইতিহাসে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী মাঠ- ভিডিয়ো

লর্ডসের ব্যালকনিতে আজানের সুর! আরও এক বার ইতিহাসে বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী মাঠ- ভিডিয়ো

লর্ডসে ইফতার পার্টি।

২১ এপ্রিল ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ECB) জন্য একটি বিশেষ দিন ছিল। এই দিনে ইসিবি রমজান উপলক্ষে লন্ডনের লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে প্রথম বারের মতো একটি ইফতার পার্টির আয়োজন করে। এতে বহু প্রাক্তন ও বর্তমান অভিজ্ঞ মহিলা ও পুরুষ ক্রিকেটাররাও অংশ নেন।

মইন আলি থেকে আদিল খান- ইংল্যান্ড টিমে দাপিয়ে খেলছেন। কাউন্টিতেও একই ছবি। আসলে ব্রিটিশ টিমের বেশির ভাগ ক্রিকেটারই জন্মসূত্রতায় ইংল্যান্ডের নয়। যে কারণে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের মতো এত বৈচিত্র্য আর কোথাও নেই।

ইংল্যান্ডের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপেও বিভিন্ন সংস্কৃতি, বিভিন্ন ধর্মের, বিভিন্ন জাতির ক্রিকেটাররা সুযোগ পেয়ে থাকেন। সবার সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। আর তাই এ বার রামজানের ইফতার পালন করে তারা।

২১ এপ্রিল ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ECB) জন্য একটি বিশেষ দিন ছিল। এই দিনে ইসিবি রমজান উপলক্ষে লন্ডনের লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে প্রথম বারের মতো একটি ইফতার পার্টির আয়োজন করে। এতে বহু প্রাক্তন ও বর্তমান অভিজ্ঞ মহিলা ও পুরুষ ক্রিকেটাররাও অংশ নেন।

আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডের নতুন টেস্ট অধিনায়ক হচ্ছেন স্টোকস, IPL থেকে কোচ খুঁজে নিয়েছে ECB!

পার্টির আয়োজন করেন ইসিবির আইটি হেল্পডেস্কের ব্যবস্থাপক তামিনা হোসেন। লর্ডসের লং রুমে এই ইফতার হয়। এমন কী আজান থেকে নামাজ পড়া, সমস্ত নিয়মই পালিত হয়। এর ভিডিয়োটি ইসিবি তার টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করেছে।

তামিনা বলেন, ‘এই সময়ে আমি প্রাকৃতিক এবং ঐতিহাসিক জিনিস অনুভব করতে পারি। তবে আমি আরও অনুভব করতে পারি যে সকলে মানবতার সাথে সামঞ্জস্য রেখে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।’

এই ইফতার পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন ইংল্যান্ড দলের অধিনায়ক (ওডিআই এবং টি-টোয়েন্টি) ইয়ন মর্গ্যান, প্রাক্তন অধিনায়ক গ্রাহাম গুচ, লিডিয়া গ্রিনওয়ে এবং মহিলা ক্রিকেটার ট্যামি বিউমন্ট। মর্গ্যানও টুইটারে একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন এবং লিখেছেন যে, ‘গত সন্ধ্যা ভাল কেটেছে। লর্ডসে প্রথম বারের মতো ইফতার পার্টি অনুষ্ঠিত হয়।’

এই পার্টিতে যোগ দিয়েছিলেন ইসিবি সিইও টম হ্যারিসনও। তিনি বলেছেন যে, ‘এই সন্ধ্যাটি সেই সমস্ত লোকদের সম্পর্ককে আরও মজবুত করবে, যাঁরা ক্রিকেটের পাশাপাশি মানুষের ভালবাসার সঙ্গে যুক্ত হতে চলেছেন। এটি একে অপরের সংস্কৃতি সম্পর্কে গভীর ভাবে জানা এবং একে অপরকে বোঝার বিষয়ও। এটি একটি ঐতিহাসিক সন্ধ্যা।’

বন্ধ করুন