বাংলা নিউজ > ময়দান > ধোনি কীভাবে তার জায়গায় ক্যাপ্টেন হয়ে গেল, এখনও সেই নিয়ে বলে যাচ্ছেন যুবি
যুবরাজ সিং ও মহেন্দ্র সিং ধোনি
যুবরাজ সিং ও মহেন্দ্র সিং ধোনি

ধোনি কীভাবে তার জায়গায় ক্যাপ্টেন হয়ে গেল, এখনও সেই নিয়ে বলে যাচ্ছেন যুবি

  • যুবরাজ সিং বলেছেন যে,‘আমি অধিনায়ক হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ঘটল গ্রেগ চ্যাপেলের ঘটনা। সচিন এবং চ্যাপেলের মধ্যে একজনকে বেছে নিতে হয়েছিল। আমি আমার সঙ্গীকে সমর্থন করেছিলাম। কিন্তু বিষয়টি পছন্দ করেননি বিসিসিআইয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা। এরপর তারা কাউকে অধিনায়ক করা সঙ্গত মনে করলেও আমাকে করেননি।’

ধোনিকে টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক করা নিয়ে বড় প্রতিক্রিয়া দিলেন ভারতীয় দলের প্রাক্তন খেলোয়াড় এবং সিক্সার কিংস যুবরাজ সিং। দলের তারকা ব্যাটসম্যানদের তালিকায় থাকবেন যুবরাজ সিং। যিনি ৬ বলে ৬ ছক্কা মারার কীর্তি গড়েছেন। তার বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে পাগল ছিল সকলে। তিনি ২০০৭ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দলের অংশ ছিলেন। সে সময় ব্যাট হাতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।

রাহুল দ্রাবিড় এবং সিনিয়র খেলোয়াড়রা ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এরপর সিনিয়র খেলোয়াড় হিসেবে দলে ছিলেন যুবরাজ সিং। ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে অধিনায়কত্ব করার জন্য যুবরাজ সিংয়ের নাম তোলা হয়েছিল। কিন্তু নির্বাচকরা ধোনিকে অধিনায়ক করে সবাইকে অবাক করে দিয়েছিলেন।

নির্বাচকদের এই সিদ্ধান্তে বেশ অবাক ছিলেন যুবরাজ সিংও। ২০০৭ সালের বিশ্বকাপের অধিনায়কত্বের জন্যও তিনি আশা করেছিলেন,কিন্তু তা শেষ পর্যন্ত হয়নি। এই বিষয়ে যুবরাজ সিং একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন যে,‘আমি অধিনায়ক হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ঘটল গ্রেগ চ্যাপেলের ঘটনা। সচিন এবং চ্যাপেলের মধ্যে একজনকে বেছে নিতে হয়েছিল। আমি আমার সঙ্গীকে সমর্থন করেছিলাম। কিন্তু বিষয়টি পছন্দ করেননি বিসিসিআইয়ের কয়েকজন কর্মকর্তা। এরপর তারা কাউকে অধিনায়ক করা সঙ্গত মনে করলেও আমাকে করেননি।’

এমএস ধোনিকে টিম ইন্ডিয়ার সবচেয়ে সফল অধিনায়ক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তার নেতৃত্বে, টিম ইন্ডিয়া ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ এবং ২০১৩ সালে চ্যাম্পিয়ন ট্রফি জিতেছে। একটা সময় ছিল, যখন অধিনায়কত্বের দৌড়ে ধোনির নাম বেশি দূর ছিল না। শুধু যুবরাজ সিংকেই টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক করা যেতে পারে বলে মনে করা হয়েছিল। সিক্সার কিংস যুবরাজ সিং তার ব্যাটিং দিয়ে ভক্তদের হৃদয়ে গভীর ছাপ রেখে গেছেন। ভক্তরাও তাকে টিম ইন্ডিয়ার নেতৃত্বে দেখতে চেয়েছিলেন কিন্তু তা হতে পারেনি।

সেই সাক্ষাৎকারে যুবরাজ সিং জানিয়ে বলেছিলেন,‘বীরেন্দ্র সেহওয়াগ একজন সিনিয়র খেলোয়াড় ছিলেন। ইংল্যান্ড সফরে দলের অধিনায়ক ছিলেন রাহুল দ্রাবিড়। যখন আমি দলের সহ-অধিনায়ক ছিলাম। যে কারণে আমাকেই দলের অধিনায়ক করা হতে পারত। এটাই একমাত্র সিদ্ধান্ত যা আমার বিরুদ্ধে গিয়েছিল,কিন্তু আমি এতে দুঃখিত নই।’

বন্ধ করুন