বাংলা নিউজ > ময়দান > ২০১৯ সালে রবি শাস্ত্রী কেন আবার ভারতীয় দলের কোচ হয়েছিল! ব্যাখ্যা দিলেন প্রাক্তন সিএসি সদস্য
কপিল দেব ও অংশুমান গায়কোয়াড় (ছবি: গেটি ইমেজ)
কপিল দেব ও অংশুমান গায়কোয়াড় (ছবি: গেটি ইমেজ)

২০১৯ সালে রবি শাস্ত্রী কেন আবার ভারতীয় দলের কোচ হয়েছিল! ব্যাখ্যা দিলেন প্রাক্তন সিএসি সদস্য

  • সব প্রশ্ন থেকে পর্দা তুললেন ভারতীয় ক্রিকেটের উপদেষ্টা কমিটির অন্যতম সদস্য অংশুমান গায়কোয়াড়।

২০১৭ সালে রবি শাস্ত্রীকে প্রথম ভারতীয় দলের কোচিং দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এরপরে তাঁর কোচিং দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় ২০১৯ সালে। কিন্তু তাঁকে আবারও ভারতের হেড স্যারের চিয়ারে বসানো হয়েছিল। কিন্তু তার পিছনে কী কারণ ছিল? এই প্রশ্ন বহুদিন ধরেই ভারতীয় ক্রিকেট মহলে ঘুরছিল। বর্তমানে দ্রাবিড় যে ভাবে ভারতীয় দল নিয়ে কাজ করচেন তারপরে এই প্রশ্নটা আরও বেড়ে গিয়েছিল। এবার সেই সব প্রশ্ন থেকে পর্দা তুললেন ভারতীয় ক্রিকেটের উপদেষ্টা কমিটির অন্যতম সদস্য অংশুমান গায়কোয়াড়। 

তিনি হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে এই বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে জানান, ‘দেখুন, কোচিংয়ের জন্য মাঠে থাকা অন্যদের মধ্যে রবি একটি সুবিধা পেয়েছিলেন। আমি, কপিল দেব এবং শান্থা আমরা নির্বাচন করেছিলাম। ধারাভাষ্যকার হিসাবে তিনি ক্রিকেটের সংস্পর্শে ছিলেন। তিনি কেবল একটি দেশের নয়, বিশ্ব ক্রিকেটকে খুব কাছ থেকে দেখেছিলেন। তিনি জানতেন কীভাবে বিষয় চলছে। তিনি জানতেন কীভাবে ম্যাচ এবং পরিস্থিতি পরিবর্তন হয়েছিল। এটি করতে আর কী দরকার ছিল? তিনি যোগাযোগ রেখেছিলেন এবং তিনি ভারতীয় খেলোয়াড়দের খুব ভাল করেই জানতেন। এছাড়াও খেলোয়াড়রাও তাঁকে খুব ভাল করে চিনতেন।’ এই কারণেই রবি শাস্ত্রীর হাতে ভারতীয় দলের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয়েছিল।  

২০১৭ সালে দলের কোচ হয়ে ছিলেন রবি শাস্ত্রী। তাঁর মেয়াদ ২০১৯ বিশ্বকাপের পরে শেষ হয়েছিল। টিম ইন্ডিয়া বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হারের পরেও আবার রবি শাস্ত্রীকে দলের কোচ করা হয়। তবে সেই সময় তাঁকে কঠিন প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হতে হয়েছিল। মাইক হেসন এবং টম মুডির মতো কোচেরা সেই তালিকায় ছিলেন। সিএসি রবিন সিং এবং লালচাঁদ রাজপুতেরও ইন্টারভিউ নেওয়া হয়েছিল। তারপরে ভারতীয় দলের কোচ করা হয়েছিল শাস্ত্রীকে। অংশুমান গায়কোয়াড় জানিয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পক্ষে রবি শাস্ত্রী সঠিক।

বন্ধ করুন