বাংলা নিউজ > ময়দান > SC ইস্টবেঙ্গলের কর্তা-ইনভেস্টার চুক্তি বিতর্কে কি এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করবেন!
রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সামনে ইস্টবেঙ্গল কর্তা দেবব্রত সরকার (ফাইল ছবি: গুগল)
রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সামনে ইস্টবেঙ্গল কর্তা দেবব্রত সরকার (ফাইল ছবি: গুগল)

SC ইস্টবেঙ্গলের কর্তা-ইনভেস্টার চুক্তি বিতর্কে কি এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করবেন!

  • আবার কি রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ! আবার কি সবকিছু মিটমাট করতে মুখ্যমন্ত্রীকে এগিয়ে আসতে হবে। ইস্টবেঙ্গলে কর্তা ও ইনভেস্টারের লড়াইয়ে ফের অতীতের ছবিটা আরও একবার দেখতে চলেছেন লাল-হলুদ সমর্থকেরা।

আবার কি রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ! আবার কি সবকিছু মিটমাট করতে মুখ্যমন্ত্রীকে এগিয়ে আসতে হবে। ইস্টবেঙ্গলে কর্তা ও ইনভেস্টারের লড়াইয়ে ফের অতীতের ছবিটা আরও একবার দেখতে চলেছেন লাল-হলুদ সমর্থকেরা। আবারও রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ দেখা যেতে পারে ক্লাবের অন্দরে। ইস্টবেঙ্গলে এখন কর্তা ও ইনভেস্টারের লড়াই চরমে উঠেছে। শ্রী সিমেন্টের কর্ণধার হরিমোহন বাঙুর কিছুদিন আগে জানিয়েছিলেন ইস্টবেঙ্গলের সাবেকি কর্তারা এখনও চুক্তিপত্রে সই করেননি। ফলে তাঁরা দল গঠন করতে পারছেননা। ক্লাব নিয়ে কোনও ভাবনা শুরু করতে পারছেননা। ফলে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ভবিষ্যৎ তাঁর কাছে অস্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে। 

এমন অবস্থায় ক্লাবের কর্তারা জানিয়েছিলেন যদি শ্রী সিমেন্ট কোনও কাজ না করতে পারেন তাহলে তাঁরা যেন ক্লাবের রাইট কর্তাদের ফিরিয়ে দেন। বাকিটা তারা বুঝে নেবেন। এমন অবস্থায় ইনভেস্টারদের কাছে কর্তারা একটি চিঠি পাঠান, যেখানে তারা লেখেন চুক্তিপত্রটি ঠিক করতে হবে এবং ইনভেস্টরদের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে হবে।

এমন অবস্থায় SC ইস্টবেঙ্গলের ইনভেস্টররা ক্লাবের সাবেকি কর্তাদের চিঠি পাঠিয়ে জানতে চান, চুক্তিপত্রে ভুলটা কোথায়। কেনই বা তাঁরা ইনভেস্টরদের সঙ্গে বসতে চান। কারণ এর আগে তো তাঁরা মুখ্যমন্ত্রীর সামনে চুক্তিপত্রে সই করেছিলেন। ইনভেস্টরদের তরফ থেকে এই রকম চিঠি পাওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসেন লাল হলুদের ক্লাব কর্তারা। তাঁরা ইনভেস্টরদের সেই চিঠি নিয়ে আইনজীবীদের কাছে যান, এবং তাদের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা শুরু করেন। এরমাঝেই খবর আসে ফের রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলছেন লাল হলুদ কর্তারা।

সূত্রের খবর, ইস্টবেঙ্গলের চুক্তি বিতর্ক নিয়ে রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলেছেন ক্লাবের শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার। এরপর রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গেও ক্লাবের কর্তারা এবিষয়ে কথা বলেন। এখন ময়দানে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে, ইস্টবেঙ্গলে ইনভেস্টর-কর্তাদের সমস্যা মেটাতে ফের ময়দানে নামতে পারেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। সত্যি যদি তাই হয় তাহলে ফের একবার লাল হলুদের ত্রাতা রূপে আবির্ভাব হবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন