বাংলা নিউজ > ময়দান > Wimbledon Final: পুরুষদের ফাইনালে প্রথম মহিলা আম্পায়ার, ইতিহাস তৈরি করতে প্রস্তুত মারিজা
ইতিহাস গড়বেন মারিজা সিসাক (ছবি: গেটি ইমেজ)
ইতিহাস গড়বেন মারিজা সিসাক (ছবি: গেটি ইমেজ)

Wimbledon Final: পুরুষদের ফাইনালে প্রথম মহিলা আম্পায়ার, ইতিহাস তৈরি করতে প্রস্তুত মারিজা

  • পুরুষদের উইম্বলডন ফাইনালে এই প্রথম কোনো মহিলা আম্পায়ার হিসাবে ফাইনাল ম্যাচ পরিচালনা করবেন মারিজা সিসাক।

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হবে উইম্বলডন ২০২১ ফাইনাল। কোর্টের একদিকে থাকবেন নোভাক জকোভিচ অবং কোর্টের অন্যদিকে থাকবেন মাত্তেয়ো বেরেত্তিনি। সকলের চোখ থাকবে তাদের টেনিস কোর্টে। রবিবাসরীয় সন্ধ্যায় পুরষদের এই ফাইনালে যেই জিতুননা কেন এই ম্যাচে ইতিহাস গড়বেন কিন্তু এক মহিলা। ভাবছেন এটা আবার কী বলছি, কিন্তু এটাই সত্যি। এদিনের ম্যাচ দেখার সময় কিন্তু আপনারা মাঠের মাঝখানেও একটু খেয়াল রাখবেন, তাহলেই বুঝতে পারবেন সেই ইতিহাস গড়ার গল্প। 

আসলে এই ম্যাচে ইতিহাস গড়বেন মারিজা সিসাক। পুরুষদের উইম্বলডন ফাইনালে এই প্রথম কোনো মহিলা আম্পায়ার হিসাবে ফাইনাল ম্যাচ পরিচালনা করবেন মারিজা সিসাক। বলা যেতে পারে ইতিহাসের তৈরি করবেন মারিজা, সাক্ষী থাকবে গোটা টেনিস দুনিয়া। ১৮৭৭ সালে শুরু হয়েছিল উইম্বলডন। তখন থেকে এখনও পর্যন্ত কোনও মহিলা আম্পায়ারকে দেখা যায়নি পুরুষদের ফাইনালের চেয়ারে বসতে। রবিবার সেটাই করতে চলেছেন মারিজা সিসাক। জকোভিচ বনাম বেরেত্তিনি ম্যাচে দেখা যাবে তাঁকে। শনিবার ক্রোয়েশিয়ার ৪৩ বছরের মারিজার নাম চেয়ার আম্পায়ার হিসেবে জানায় অল ইংল্যান্ড ক্লাব।

ইতিহাস গড়তে তৈরি মারিজা সিসাক (ছবি: গেটি ইমেজ)
ইতিহাস গড়তে তৈরি মারিজা সিসাক (ছবি: গেটি ইমেজ)

২০১২ সাল থেকে ডব্লিউ টি এ-এর এলিট গ্রুপে রয়েছেন মারিজা। গোল্ড ব্যাজ প্রাপ্ত আম্পায়ার তিনি। ছেলেদের ফাইনালে প্রথম বার হলেও মেয়েদের ফাইনালে এর আগেও আম্পায়ার ছিলেন মারিজা। ২০১৪ সালে উইম্বলডনে মেয়েদের ফাইনালের দায়িত্ব ছিল তাঁর কাঁধে। ২০১৭ সালে মেয়েদের ডাবলসের ফাইনালেও আম্পায়ার ছিলেন মারিজা। ২০১৬ সালে রিও অলিম্পিক্সে মেয়েদের সিঙ্গলস ফাইনালও খেলিয়েছিলেন তিনি। এ বার দায়িত্ব ছেলেদের ফাইনালের। তবে এই হাই ভোল্টেজ ম্যাচে নিজের দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করার জন্য তৈরি মারিজা। আপনারাও যখন এই ঐতিহাসিক ম্যাচের সাক্ষী হবেন তখন আম্পায়ারের চেয়ারটা একবার দেখে নেবেন।

বন্ধ করুন