বাংলা নিউজ > ময়দান > ৪৩ রানে ৩ উইকেট, সেখান থেকে ৩০০ টপকে লড়াই জারি অস্ট্রেলিয়ার, দুরন্ত ইনিংস ক্যাপ্টেনের
ইংল্যান্ডের উচ্ছ্বাস। ছবি- আইসিসি।

৪৩ রানে ৩ উইকেট, সেখান থেকে ৩০০ টপকে লড়াই জারি অস্ট্রেলিয়ার, দুরন্ত ইনিংস ক্যাপ্টেনের

  • চারজন হাফ-সেঞ্চুরি করে অস্ট্রেলিয়ার বিপর্যয় রোধ করেন।

১ রানে ১ উইকেট। দলগত ৪ রানে পতন হয় দ্বিতীয় উইকেটের। দিনের প্রথম ঘণ্টায় ৪৩ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর অস্ট্রেলিয়া দিনের শেষে তিনশো রানের গণ্ডি টপকে যাবে, এমনটা আশা করা কঠিন ছিল। অথচ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মহিলা অ্যাসেজ সিরিজের একমাত্র টেস্টে ঠিক তেমনটাই করে দেখায় অজিরা।

ক্যানবেরায় টেস্টের প্রথম দিনের শেষে অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ৩২৭ রান তুলেছে। টসভাগ্য সঙ্গ দেয়নি অস্ট্রেলিয়াকে। টস জিতে ইংল্যান্ডের ক্যাপ্টেন হেথার নাইট প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান অজিদের। দিনের তৃতীয় ওভারে ক্যাথেরিন ব্রান্টের বলে উইকেটকিপার জোনসের দস্তানায় ধরা পড়েন ওপেনার অ্যালিসা হিলি। ৮ বল খেলেও খাতা খুলতে পারেননি তিনি।

পরের ওভারে বেথ মুনির উইকেট তুলে নেন শ্রুবসোল। মুনি ৩ বলে ৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। এলিস পেরি ইনিংসের ১৫তম ওভারে উইকেট দেন নাতালি সিভারকে। ৩৪ বলে ১৮ রান করেন পেরি।

এর পর রাচেল হেইন্সকে সঙ্গে নিয়ে পালটা লড়াই শুরু করেন ক্যাপ্টেন মেগ ল্যানিং। দু'জনে চতুর্থ উইকেটের জুটিতে ১৬৯ রান যোগ করেন। ল্যানিং শেষমেশ ১৩টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৭০ বলে ৯৩ রান করে সিভারের দ্বিতীয় শিকার হন। নিশ্চিত শতরান হাতছাড়া করেন অস্ট্রেলিয়ার ক্যাপ্টেন। ঠিক পরের ওভারেই আউট হন রাচেল। ১০টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১৮০ বলে ৮৬ রান করে ব্রান্টের বলে আউট হন তিনি। হেইন্সের সামনেও সেঞ্চুরি করার সুবর্ণ সুযোগ ছিল।

দিনের শেষবেলায় জোড়া উইকেট তুলে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করে ইংল্যান্ড। অ্যাশলেই গার্ডনার ৮টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৭৪ বলে ৫৬ রান করে ব্রান্টের তৃতীয় শিকার হন। সিভার তুলে নেন তালিয়া ম্যাকগ্রার উইকেট। ৭টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৮৮ বলে ৫২ রান করেন ম্যাকগ্রা। ৯৬.৬ (৯৭) ওভারে তালিয়া আউট হওয়া মাত্রই প্রথম দিনের খেলা শেষ হয়। অ্যানাবেল সাদারল্যান্ড ৭ রান করে অপরাজিত থাকেন। সুতরাং, প্রথম দিনের শেষে ইংল্যান্ডের হয়ে ৩টি করে উইকেট নেন ক্যাথেরিন ব্রান্ট ও নাতালি সিভার। ১টি উইকেট নিয়েছেন অ্যানা শ্রুবসোল।

বন্ধ করুন