বাংলা নিউজ > ময়দান > মহিলা IPL ফ্র্যাঞ্চাইজির নাম জানা যাবে এই মাসের শেষে? প্রাথমিক ভাবে বাছা হল ১০টি শহরকে

মহিলা IPL ফ্র্যাঞ্চাইজির নাম জানা যাবে এই মাসের শেষে? প্রাথমিক ভাবে বাছা হল ১০টি শহরকে

 মহিলা আইপিএলের দামামা বেশ জোরদার ভাবেই বেজে গেল।

পুরুষ আইপিএলের মতোই মহিলাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলও হবে শহর ভিত্তিক। কলকাতা, আহমেদাবাদ, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, দিল্লি, ধর্মশালা, গুয়াহাটি, ইন্দোর, লখনউ এবং মুম্বই রয়েছে এই তালিকায়। এই শহরগুলিকে বেছে নেওয়া হয়েছে, মূলত তাদের প্রধান ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শকাসনের ভিত্তিতে।

মহিলাদের আইপিএলের দামামা বেশ জোরদার ভাবেই বেজে গেল। পুরুষদের আইপিএলের মতো মেয়েদের আইপিএল-ও সফল ভাবে যাতে হয়, তার প্রস্তুতিতে কোনও ফাঁক রাখতে চায় না বিসিসিআই। আগেই ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য আগ্রহী সংস্থাগুলির কাছ থেকে দরপত্র চাওয়া হয়েছে। এ বার আগেভাগেই জানিয়ে দেওয়া হল, কোন কোন শহরে কী ভাবে খেলা হবে।

পুরুষ আইপিএলের মতোই মহিলাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি দলও হবে শহর ভিত্তিক। কলকাতা, আহমেদাবাদ, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, দিল্লি, ধর্মশালা, গুয়াহাটি, ইন্দোর, লখনউ এবং মুম্বই রয়েছে এই তালিকায়। এই শহরগুলিকে বেছে নেওয়া হয়েছে, মূলত তাদের প্রধান ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শকাসনের ভিত্তিতে। প্রতিযোগিতার ছ’টি দলের মালিকানা কারা কারা পেতে চলেছে, সেটা জানার আগ্রহ এখন তুঙ্গে। তবে এই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে, আগামী ২৫ জানুয়ারি। পাশাপাশি কোন কোন শহর দল পাবে তা নিয়েও আগ্রহ রয়েছে তুঙ্গে।

আরও পড়ুন: এত উইকেট নিও না কুলদীপ, বাদ পড়ে যাবে, রোহিতকে কটাক্ষ প্রাক্তনীর

এ দিকে বেশ কিছু সংস্থা ইতিমধ্যে দরপত্র জমা দিয়েছে বলে বোর্ড সূত্রের খবর। পুরুষদের আইপিএলের একাধিক ফ্র্যাঞ্চাইজি মহিলাদের দল কিনতে আগ্রহী বলে শোনা গিয়েছিল। প্রসঙ্গত, যে ছ’টি সংস্থা সর্বোচ্চ দর দেবে, নিয়ম অনুসারে তারাই মহিলাদের আইপিএলের ছ’টি ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানা পাবে।

প্রথম তিন বছর প্রতিযোগিতায় হবে মোট ২২টি করে ম্যাচ। লিগ পর্বের পর সেরা দুই দল সরাসরি ফাইনাল খেলবে। ২০২৬ সাল থেকে দলের সংখ্যা বাড়িয়ে ১০ করার পরিকল্পনা রয়েছে বিসিসিআই-এর। তখন ৩৩ বা ৩৪টি ম্যাচের প্রতিযোগিতা হতে পারে। সেই পরিকল্পনা অবশ্য এখনও চূড়ান্ত হয়নি। প্রতিযোগিতা থেকে বিসিসিআই যে লাভ করবে তার ৮০ শতাংশ ভাগ করে দেওয়ার হবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলিকে। আগামী ৩ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত হতে পারে মহিলাদের প্রথম আইপিএল।

আরও পড়ুন: ছক্কা হাঁকিয়ে পরের ডবল সেঞ্চুরিটা করতে চাই- টিম ম্যানেজমেন্টকে বার্তা ইশানের?

এ দিকে ২৬ জানুয়ারির মধ্যে সব খেলোয়াড়দের নাম নথিভুক্ত করার জন্য সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে বিসিসিআই। সবচেয়ে বড় বিষয় হল, পুরুষদের আইপিএলে যেমন নিলাম হয়, মেয়েদের ক্ষেত্রেও সেই রকম ভাবেই নিলামের আসর বসবে। প্রথমে ঠিক হয়েছিল, ড্রাফটের মাধ্যমে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি তাদের দল গোছাবে। তবে এখন নিয়ম বদলের কথা শোনা যাচ্ছে।

প্লেয়ারদের প্রাথমিক মূল্য কত হবে, সেটাও বলে দেওয়া হয়েছে। যাঁরা ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছেন, তাঁদের তিনটি বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম বিভাগের খেলোয়াড়দের প্রাথমিক মূল্য হবে ৫০ লক্ষ টাকা। দ্বিতীয় বিভাগের খেলোয়াড়দের দাম হবে ৪০ লক্ষ টাকা। তৃতীয় বিভাগের খেলোয়াড়দের মূল্য হবে ৩০ লক্ষ টাকা।

অন্যদিকে যে সব ক্রিকেটার ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন না বা বোর্ডের সঙ্গে কোনও চুক্তিতে নেই তাদের প্রাথমিক মূল্য দুই বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিতে না থাকা প্রথম বিভাগের মেয়েদের বেস প্রাইস ২০ লক্ষ। দ্বিতীয় বিভাগের ক্রিকেটারদের বেস প্রাইস ১০ লক্ষ টাকা। বিদেশি খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রেও এই নিয়ম কার্যকর হবে। ভাগ করা পাঁচটি বিভাগের মূল্য অনুসরণ করে তাদের কিনবে দলগুলো।

বন্ধ করুন