বাংলা নিউজ > ময়দান > বিশ্বকাপের ম্যাচ গড়াপেটা! দুই ক্রিকেটারকে ৮বছরের জন্য নির্বাসিত করল আইসিসি
দুই ক্রিকেটারকে ৮বছরের জন্য নির্বাসিত করল আইসিসি (ছবি:আইসিসি টুইটার)
দুই ক্রিকেটারকে ৮বছরের জন্য নির্বাসিত করল আইসিসি (ছবি:আইসিসি টুইটার)

বিশ্বকাপের ম্যাচ গড়াপেটা! দুই ক্রিকেটারকে ৮বছরের জন্য নির্বাসিত করল আইসিসি

  • ৮ বছর সমস্ত ক্রিকেটীয় বিষয় থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আমিরশাহির আমির হায়াত এবং আশফাক আহমেদকে। 

ভারতীয় বুকিদের থেকে টাকা নিয়ে ম্যাচ গড়াপেটা করার অভিযোগে নির্বাসিত করা হল সংযুক্ত আরব আমিরশাহির দুই ক্রিকেটারকে। ৮ বছর সমস্ত ক্রিকেটীয় বিষয় থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আমিরশাহির আমির হায়াত এবং আশফাক আহমেদকে। বৃহস্পতিবার আইসিসির তরফে জানানো হয়েছে, আমিশাহির পেসার আমির হায়াত এবং ব্যাটসম্যান আশফাক আহমেদকে ফাইভ কাউন্টে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। যার শাস্তি হিসেবে তাঁদের ৮ বছরের জন্য ক্রিকেটীয় বিষয় থেকে দূরে থাকতে হবে।

পাঁচ দফা দুর্নীতি দমন বিধি ভঙ্গের অভিযোগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা আট বছরের জন্য নির্বাসিত করল আমিরশাহির দুই ক্রিকেটার আমির হায়াত ও আশফাক আহমেদকে। ঘটনার সূত্রপাত হয়েছিল ২০১৯ সালে। টি২০ বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের ম্যাচে এই দুই ক্রিকেটার টাকা নিয়ে ম্যাচ গড়াপেটা করেছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। ‘মিস্টার ওয়াই’ নামের এক ভারতীয় বুকি দু’জনকেই চার হাজার মার্কিন ডলার ঘুষ দিয়েছিল বলে অভিযোগ। অভিযোগ ওঠার পরই তদন্ত কমিটি বসায় আইসিসি। ২০২০ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর দুই ক্রিকেটারকেই দোষী সাব্যস্ত করে আইসিসির কমিটি। তখন থেকেই তাঁদের সাসপেন্ড করে রাখা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার দুই ক্রিকেটারের মোট শাস্তির পরিমাণ জানিয়ে দেয় আইসিসি। তাঁদের আট বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে। যদিও এই শাস্তি ২০২০ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর থেকেই শুরু করা হয়েছে।

এমিরেটস ক্রিকেট বোর্ড আগেই নির্বাসিত করেছে আশফাককে। ঘটনাচক্রে যে দুই ক্রিকেটারকে আইসিসি নির্বাসনে পাঠিয়েছে তাঁরা দুজনেই পাকিস্তানের বংশোদ্ভূত। আর পাক ক্রিকেটে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের ঘটনা একেবারেই নতুন নয়। আবার যাদের কাছ থেকে এঁরা ঘুষ নিয়েছিলেন তাঁরা আবার ভারতীয় বলে দাবি আইসিসির। সেদিক থেকে দেখতে গেল এই ফিক্সিং কাণ্ডে একইসঙ্গে এশিয়ার দুই শক্তিধর ক্রিকেট খেলিয়ে দেশের নাম জড়িয়ে গেল। 

আমির ও আশফাকের বিরুদ্ধে যে পাঁচটি ধারা ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে, তাঁর মধ্যে পড়ে অর্থ বা উপহার সামগ্রির বদলে ম্যাচের ফলাফলে প্রভাবিত করা, যাকে গড়াপেটা বলাই শ্রেয়। এছাড়া ক্রিকেট জুয়ার প্রস্তাব পেয়ে তা আইসিসির দুর্নীতি দমন শাখাকে না জানানো। এবং যে কোনও ধরণের সন্দেহজনক গতিবিধি লক্ষ্য করেও তা অ্যান্টি কোরাপশন ইউনিটকে না জানানোর মতো অভিযোগও রয়েছে দুই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে।

বন্ধ করুন