বাংলা নিউজ > ময়দান > WTC FInal: ICC টুর্নামেন্টের ফাইনাল মানেই ব্যর্থ বিরাট কোহলি?

WTC FInal: ICC টুর্নামেন্টের ফাইনাল মানেই ব্যর্থ বিরাট কোহলি?

  • আইসিসি-র কোনও টুর্নামেন্টের পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে, ফাইনাল মানেই বারবার ব্যর্থ হয়েছেন বিরাট কোহলি। আর সেই পরিসংখ্যানই দেখে নিন এক নজরে।
আইসিসি টুর্নামেন্টের আরও একটি ফাইনাল। ফের ব্যর্থ বিরাট কোহলি। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ থেকে ২০২১ পর্যন্ত পরিসংখ্যান বলছে, আইসিসি-র টুর্নামেন্টের ফাইনাল মানেই ব্যর্থ হন বিরাট কোহলি। একমাত্র ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে উলটপুরাণ হয়েছিল, তবে সেই টুর্নামেন্ট ভারত হেরে গিয়েছিল। ছবি: পিটিআই
1/7আইসিসি টুর্নামেন্টের আরও একটি ফাইনাল। ফের ব্যর্থ বিরাট কোহলি। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ থেকে ২০২১ পর্যন্ত পরিসংখ্যান বলছে, আইসিসি-র টুর্নামেন্টের ফাইনাল মানেই ব্যর্থ হন বিরাট কোহলি। একমাত্র ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে উলটপুরাণ হয়েছিল, তবে সেই টুর্নামেন্ট ভারত হেরে গিয়েছিল। ছবি: পিটিআই
বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে দুই ইনিংস মিলিয়ে বিরাট কোহলির রান মাত্র ৫৭। প্রথম ইনিংসে ৪৪ রান করেছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে করেছেন ১৩ রান। দলকে ভরসা দেওয়ার বদলে দায়িত্বজ্ঞানহীন ভাবে দু'বারই আউট হয়েছেন। ছবি: পিটিআই
2/7বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে দুই ইনিংস মিলিয়ে বিরাট কোহলির রান মাত্র ৫৭। প্রথম ইনিংসে ৪৪ রান করেছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে করেছেন ১৩ রান। দলকে ভরসা দেওয়ার বদলে দায়িত্বজ্ঞানহীন ভাবে দু'বারই আউট হয়েছেন। ছবি: পিটিআই
২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে বিরাট কোহলি মাত্র ৪৯ বলে ৩৫ রান করেছিলেন। সে দিন দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি জ্বলে না উঠলে বিশ্বকাপ হাতছাড়া হয়ে যেত ভারতের। ছবি: পিটিআই
3/7২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে বিরাট কোহলি মাত্র ৪৯ বলে ৩৫ রান করেছিলেন। সে দিন দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি জ্বলে না উঠলে বিশ্বকাপ হাতছাড়া হয়ে যেত ভারতের। ছবি: পিটিআই
২০১৩ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে আবার উলটপুরাণ হয়েছিল। বিরাট কোহলি ৩৪ বলে ৪৩ রান করেছিলেন। যদিও ২০ ওভারের ম্যাচে এটি খুব ভাল পরিসংখ্যান নয়। তবু সেই ম্যাচে দু'দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ রান ছিল। ইংল্যান্ডকে ৫ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত। ছবি: রয়টার্স
4/7২০১৩ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে আবার উলটপুরাণ হয়েছিল। বিরাট কোহলি ৩৪ বলে ৪৩ রান করেছিলেন। যদিও ২০ ওভারের ম্যাচে এটি খুব ভাল পরিসংখ্যান নয়। তবু সেই ম্যাচে দু'দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ রান ছিল। ইংল্যান্ডকে ৫ রানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত। ছবি: রয়টার্স
২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেও ৫৮ বলে ৭৭ রান করেছিলেন বিরাট। কিন্তু সেই বিশ্বকাপ ভারত হেরে গিয়েছিল। ছবি: রয়টার্স
5/7২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেও ৫৮ বলে ৭৭ রান করেছিলেন বিরাট। কিন্তু সেই বিশ্বকাপ ভারত হেরে গিয়েছিল। ছবি: রয়টার্স
২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে আবার ৯ বলে ৫ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছিলেন বিরাট। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সেই টুর্নামেন্ট হেরে গিয়েছিল ভারত। ছবি: পিটিআই
6/7২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে আবার ৯ বলে ৫ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছিলেন বিরাট। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সেই টুর্নামেন্ট হেরে গিয়েছিল ভারত। ছবি: পিটিআই
এমন কী আইসিসি-র কোনও ট্রফির সেমিফাইনালে বিরাটের পরিংসংখ্যানও বেশ খারাপ। ২০১১ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২১ বলে মাত্র ৯ রান করেছিলেন। তবে ২০১৩ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ৬৪ বলে ৫৮ করেছিলেন। ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালেও সফল হন বিরাট। করেছিলেন ৪৪ বলে ৭২ রান। ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১৩ বলে ১ রান করেছিলেন। ২০১৭ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে আবার ৭৮ বলে ৯৬ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন। ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্জের বিরুদ্ধেও ৬ বলে ১ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছিলেন বিরাট। ছবি: রয়টার্স
7/7এমন কী আইসিসি-র কোনও ট্রফির সেমিফাইনালে বিরাটের পরিংসংখ্যানও বেশ খারাপ। ২০১১ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২১ বলে মাত্র ৯ রান করেছিলেন। তবে ২০১৩ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ৬৪ বলে ৫৮ করেছিলেন। ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালেও সফল হন বিরাট। করেছিলেন ৪৪ বলে ৭২ রান। ২০১৫ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১৩ বলে ১ রান করেছিলেন। ২০১৭ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে আবার ৭৮ বলে ৯৬ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন। ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্জের বিরুদ্ধেও ৬ বলে ১ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছিলেন বিরাট। ছবি: রয়টার্স
অন্য গ্যালারিগুলি