বাংলা নিউজ > ময়দান > WTC Final: পন্তের দায়িত্বজ্ঞানহীন মনোভাবের তীব্র সমালোচনা করলেন ইরফান পাঠান
এ ভাবেই ক্যাচ তুলে আউট হন ঋষভ পন্ত। ছবি: রয়টার্স
এ ভাবেই ক্যাচ তুলে আউট হন ঋষভ পন্ত। ছবি: রয়টার্স

WTC Final: পন্তের দায়িত্বজ্ঞানহীন মনোভাবের তীব্র সমালোচনা করলেন ইরফান পাঠান

  • ট্রেন্ট বোল্টকে বাউন্ডারি মারতে গিয়েই কিন্তু আউট হন পন্ত। তখন তাঁর ব্যক্তিগত রান ছিল ৪১। ভারতের ১৫৬। পন্ত আউট হওয়ায় সাত উইকেট হারিয়ে তীব্র চাপে পড়ে যায় ভারত।

দলের প্রয়োজনের সময়ে দায়িত্বজ্ঞানহীন শট খেলতে গিয়ে আউট না হয়ে বরং অনেক বেশি দায়িত্ববান হওয়া উচিত ছিল ঋষভ পন্তের। এমনটাই মনে করেন ইরফান পাঠান। একের পর এক উইকেট হারিয়ে ভারত যখন কোণঠাঁসা তখন কেন দায়িত্বজ্ঞানহীন ভাবে চার মারতে গিয়ে আউট হলেন পন্ত? এই নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়া সফরে তাঁর এই আগ্রাসী মনোভাবই প্রশংসা কুড়িয়েছিল। সাউদাম্পটনে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে সেই মনোভাবই কাল হয়ে দাঁড়াল ঋষভ পন্তের। খারাপ পরিস্থিতিতেও বারবার ঝুঁকিপূর্ণ শট খেলে আউট হওয়ার ঘটনাকে মোটেও ভাল ভাবে নিচ্ছেন না ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।

ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে বিরাট কোহলি এবং চেতেশ্বর পূজারা পরপর প্যাভিলিয়নে ফিরে গেলে ব্যাট করতে নামেন পন্ত। শুরু থেকেই টি-টোয়েন্টি মেজাজে ছিলেন ভারতের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। তবে বারবার ব্যাটের কোণায় বল লাগিয়ে বিপদে ডেকে আনছিলেন তিনি। এমন কী ব্যাট করতে নামার পর পরই টিম সাউদি যদি তাঁর ক্যাচ ফেলে না দিতেন, তা হলে অনেকেই আগেই আউট হয়ে যেতেন পন্ত। তবে পরে ট্রেন্ট বোল্টকে বাউন্ডারি মারতে গিয়েই কিন্তু আউট হন পন্ত। তখন তাঁর ব্যক্তিগত রান ছিল ৪১। ভারতের ১৫৬। পন্ত আউট হওয়ায় সাত উইকেট হারিয়ে তীব্র চাপে পড়ে যায় ভারত।

এই পরিস্থিতিতে পন্তের শট নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ইরফান পাঠান। তাঁর পরিষ্কার বক্তব্য, ‘আমি জানি ঋষভ পন্ত খুবই মারকুটে প্লেয়ার। এবং আক্রমণাত্মক মেজাজেই খেলে থাকে। কিন্তু আক্রমণান্তক মেজাজ মানে এই নয়, পেসারদের হাতে উইকেট তুলে দেওয়ার সুযোগ করে দিয়ে চার মারার চেষ্টা করা। কিছু দায়িত্ব নেওয়ারও প্রয়োজন আছে বৈকি!’

একটি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে পাঠান আরও বলেছেন, ‘আমরা যদি এই ম্যাচের ভুলগুলো খুঁজতে চেষ্টা করি এবং সঠিক কারণগুলি দেখি, সে ক্ষেত্রে দেখা যাবে, প্রথম ইনিংসের মতোই দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাটিং রীতিমতো হতাশা জনক। দ্বিতীয় ইনিংসে কিন্তু বল বেশি ঘুরছিল না বা টার্ন নিচ্ছিল না। তাই আরও বেশি দায়িত্ব নিয়ে ব্যাট করা উচিত ছিল ভারতের।’

বন্ধ করুন