বাংলা নিউজ > ময়দান > কোহলির সঙ্গে রসায়ন, অধিনায়কত্বের ফর্মুলা, শেয়ার করে নিলেন রাহানে
অজিঙ্কা রাহানে (REUTERS)
অজিঙ্কা রাহানে (REUTERS)

কোহলির সঙ্গে রসায়ন, অধিনায়কত্বের ফর্মুলা, শেয়ার করে নিলেন রাহানে

  • এখনও ভারত কোনও টেস্ট হারেনি রাহানের অধিনায়কত্বে। 

একদিকে অ্যাডিলেড টেস্টে ৩৬ রানে অল আউটের লজ্জা,তার উপরে অধিনায়ক বিরাট কোহলি পিতৃত্বকালীন ছুটির কারণে দেশে ফিরেছেন। সবমিলিয়ে অজিদের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ চলাকালীন যখন ভারতীয় দলের দায়িত্ব নিলেন আজিঙ্কা রাহানে তখন তার অবস্থা অনেকটা শাঁখের করাতের মতন। ব্যাট হাতে নিজে পারফরম্যান্স করবেন না ভেঙে পড়া একটা দলকে টেনে তুলবেন মানে ঠিক কোনদিকে তিনি যাবেন তা বুঝে উঠতেই তার অনেকটা সময় চলে যাওয়ার কথা। কিন্তু নেতা হোক বা ৪ নম্বরে বিরাটের স্থলাভিষিক্ত ব্যাটসম্যান, রাহানে সব ব্যাপারেই একেবারে ফুল মার্কস নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন।

ধীর স্থির শান্ত স্বভাবের রাহানে সাধারণত রাগেন খুব কম। মুখে সব সময়ে লেগে রয়েছে অমলীন হাসি। এমন মানুষ যে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে দাঁড়িয়ে ভারতকে এমন আক্রমণাত্মক ভঙ্গিমায় নেতৃত্ব দিয়ে অজিদেরকে ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে পাল্টা লড়াইটা ফিরিয়ে দেবেন তা হয়ত আশা করেননি অতি বড় ভারতীয় সমর্থক ও।

এই জয়কে ভারতের শ্রেষ্ঠ জয় হিসেবে ধরা হচ্ছে তার উত্তরে রাহানে জানান 'একটি অসাধারণ অনুভূতি। উত্তেজনা,উদ্দীপনার রেশ ধীরে ধীরে কাটছে । আমরা বুঝতে পারছি অজিভূমে কতটা গুরুত্বপূর্ণ একটা সিরিজ আমরা জিতেছি।এই জয় এসেছে কোন ব্যক্তিগত উদ্যোগে নয়। এই সাফল্য এসেছে দলগত উদ্যোগে।'

ব্রিসবেনে শেষ দিনের অনুভূতি নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন ' প্রথম় ঘন্টায় আমরা নর্মাল ক্রিকেট খেলাতে মনোযোগী হই। সেসময় আমরা জয়ের জন্য লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কোন ভাবনাচিন্তা করিনি। গিল এবং পূজারার একটা বেশ ভাল পার্টনারশিপ হয়। তারপর গিল আউট হতে আমি উইকেটে আসি।সেসময় আমার উদ্দেশ্য ছিল মোমেন্টামটা ধরে রাখা। তাড়াতাড়ি ৩০-৪০ টা রান করতে পারলে আমরা জেতার ব্যাপারে ভাবনা চিন্তা শুরু করতাম। আমাদের লক্ষ্য ছিল শেষ সেশনে ৩৮ ওভারে ১৫০ রান মত করতে হলে সেটা আমাদের পক্ষে তাড়া করা সুবিধাজনক ছিল। আর আমরা সেটাই করে দেখাই।'

অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন করা হলে রাহানে জানান ' ওটা আমার ইন্সটিঙ্কট।আমি সবসময় সেটাকে ব্যাক করি। আমি যে সিদ্ধান্ত নিচ্ছি,যা ভাবনা চিন্তা করছি ,যেভাবে পরিস্থিতিকে পড়ছি তার উপর নেওয়া আমার সিদ্ধান্তকে সবসময় ব্যাক করি।এটা মাঝে মাঝে কাজ করে,মাঝে মাঝে করেনা‌। তবে অধিনায়ক হিসেবে তোমার গাট ফিলিংকে সবসময় সাপোর্ট করা উচিত।

একই সঙ্গে বিরাট কোহলির সঙ্গে তাঁর সমীকরণ কেমন সেটাও জানান রাহানে। তিনি বলেন যে তাঁরা দুজনেই খুব ভালো বন্ধু, একে ওপরের কাছের। ইংল্যান্ড সিরিজে যখন কোহলি ফের অধিনায়ক হিসেবে ফিরে আসবেন, তখন তাঁর যে লাইমলাইট ছেড়ে পিছনের সারিতে যেতে কোনও অসুবিধা হবে না, তাও জানিয়ে দিয়েছেন শান্ত স্বভাবের রাহানের। 

বন্ধ করুন