বাংলা নিউজ > টেকটক > 5G Spectrum Auction: শুরু 5G স্পেকট্রামের নিলাম, উঠতে পারে ১.১ ট্রিলিয়ন টাকা, লড়াইয়ে আম্বানি-আদানিও
গৌতম আদানি এবং মুকেশ আম্বানি। (ফাইল ছবি)

5G Spectrum Auction: শুরু 5G স্পেকট্রামের নিলাম, উঠতে পারে ১.১ ট্রিলিয়ন টাকা, লড়াইয়ে আম্বানি-আদানিও

  • 5G Spectrum Auction: 5G স্পেকট্রামের নিলামে আছে মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিয়ো, গৌতম আদানির সংস্থা আদানি এন্টারপ্রাইজ, ভারতী এয়ারটেল, ভোডাফোন আইডিয়া। কে বাজিমাত করবে, তা নিয়ে উন্মাদনা বাড়ছে।

শুরু হল 5G স্পেকট্রামের নিলাম। 72 GHz (gigahertz)-এর স্পেকট্রামের লড়াইয়ে মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিয়ো, গৌতম আদানির সংস্থা আদানি এন্টারপ্রাইজ, ভারতী এয়ারটেল নাকি ভোডাফোন আইডিয়া জিতবে, তা নিয়ে উন্মাদনা বাড়ছে। সেই নিলাম সংক্রান্ত কয়েকটি তথ্য দেখে নিন -

  • সংবাদসংস্থা পিটিআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সকাল ১০ টা থেকে নিলাম শুরু হয়েছে। যা সন্ধ্যা ছ'টা পর্যন্ত চলতে পারে।  রেটিং সংস্থা ICRA লিমিটেডের পূর্বাভাস, এয়ারওয়েভস বিক্রি করে ১.১ ট্রিলিয়ন টাকা বা ১৪ মিলিয়ন ডলার উঠতে পারে।
  • নিলামের আগে ‘ডিপোজিট মানি’-র নিরিখে আদানি গ্রুপকে টেক্কা দিয়েছে জিয়ো। আম্বানির টেলিকম সংস্থার তরফে যেখানে ‘ডিপোজিট মানি’ (পোশাকি ভাষায় Earnest Money Deposit) হিসেবে ১৪,০০০ কোটি টাকা দিয়েছে, সেখানে আদানি মাত্র ১০০ কোটি টাকা দিয়েছে।
  • কেন্দ্রের টেলিকম দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, 5G স্পেকট্রাম কেনার জন্য চারটি সংস্থা ‘ডিপোজিট মানি’ জমা দিয়েছে। সর্বাধিক ১৪,০০০ কোটি টাকা জমা দিয়েছে রিলায়েন্স জিয়ো। সেই অর্থের উপরই নির্ভর করবে কোন সংস্থা কতগুলি এয়ার ওয়েভের জন্য দর হাঁকতে পারবে।
  • কেন্দ্রের টেলিকম দফতরের ওয়েবসাইট অনুযায়ী, এয়ারটেলের তরফে Earnest Money Deposit হিসেবে ৫,৫০০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। ভোডাফোন আইডিয়া দিয়েছে ২,২০০ কোটি টাকা।
  • Earnest Money Deposit হিসেবে যে অর্থ জমা পড়ে, তা থেকে সাধারণত কোনও নিলামের সময় স্পেকট্রাম কেনার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সংস্থার আগ্রহ, কৌশল এবং পরিকল্পনা বোঝা যায়। বিশেষ সার্কেলে কতগুলি স্পেকট্রাম পাওয়া যাবে, তা নির্ধারণ করে টেলিকম সংস্থাগুলি।
  • Earnest Money Deposit-র তথ্য থেকে ইঙ্গিত মিলেছে যে নিলামের জন্য 'অল-আউট অ্যাটাকে' যাবে রিলায়েন্স। অন্যদিকে, প্রাইভেট নেটওয়ার্ক তৈরি করতে ন্যূনতম কিছু পেকস্ট্রাম কিনতে পারে আদানি গ্রুপ। এমনিতে আদানি গ্রুপের তরফে আগেই স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে, মোবাইলের নেটওয়ার্কের ব্যবসায় নামবে না। বরং আদানি গ্রুপের নজরে আছে বিমানবন্দর, ডেটা সেন্টারের মতো ক্ষেত্র।

বন্ধ করুন