বাংলা নিউজ > টেকটক > সাবধান! Google Play Store-র ১৯,৩০০ অ্যাপ ফাঁস করে দিতে পারে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য
সাবধান! Google Play Store-র ১৯,৩০০ অ্যাপ ফাঁস করে দিতে পারে ব্যক্তিগত তথ্য। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য গেটি)
সাবধান! Google Play Store-র ১৯,৩০০ অ্যাপ ফাঁস করে দিতে পারে ব্যক্তিগত তথ্য। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য গেটি)

সাবধান! Google Play Store-র ১৯,৩০০ অ্যাপ ফাঁস করে দিতে পারে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য

  • কীরকম তথ্য ফাঁস হওয়ার আশঙ্কা আছে? কোন কোন অ্যাপ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে?

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অ্যাপ ডাউনলোডের জন্য গুগল প্লে স্টোরকে সবথেকে সুরক্ষিত মাধ্যম হিসেবে বিবেচনা হয়। অথচ সেই স্টোরের একাধিক অ্যাপে দেখা রয়েছে বিপদের ‘আশঙ্কা’। গুগল প্লে স্টোরে ১৯,৩০০ টির বেশি এমন অ্যাপের সন্ধান পেয়েছে বলে অ্যাভাস্ট দাবি করেছে, যা ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস করতে দিতে পারে।

ডিজিটাল সুরক্ষা সংস্থা অ্যাভাস্টের তরফে জানানো হয়েছে, গুগল প্লে স্টোরের ১৯,৩০০ টির বেশি অ্যাপের সুরক্ষার ক্ষেত্রে ফাঁকফোকর পাওয়া গিয়েছে। যে অ্যাপগুলির ফায়ারবেস ডেটাবেসে ত্রুটির কারণে গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে যেতে পারে। ফায়ারবেস এমন একটা টুল, যা অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপাররা ব্যবহারকারীদের তথ্য সংরক্ষণের জন্য ব্যবহার করে থাকেন। 

অ্যাভাস্টের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সংস্থার গবেষকরা জনসমক্ষে প্রাপ্য ১৮০,৩০০ টি ফায়ারবেস-নির্ভর অ্যাপ পরীক্ষা করে দেখেছিলেন। ১০ শতাংশেরও বেশি অ্যাপের (১৯,৩০০) ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, সেগুলির ফায়ারবেস ‘খোলা’ আছে। অ্যাপ ডেভেলপারদের মিস-কনফিগারেশনের কারণেই সেই ফাঁক থেকে গিয়েছে। যা ব্যবহারকারীদের তথ্য ফাঁস করে দিতে পারে। অনায়াসে চুরি হয়ে যেতে পারে ব্যবহারকারীদের একান্ত ব্যক্তিগত তথ্য। অ্যাভাস্টের ম্যালওয়ার গবেষক ভ্লাদিমির মার্তয়ানোভ জানিয়েছেন, প্রতিটি ‘খোলা’ ফায়ারবেসের ক্ষেত্রেই তথ্য চুরির ঘটনা যে কোনও মুহূর্তে ঘটতে পারে। সেই তথ্যে কোনওভাবে হাত পড়ে গেলে ব্যবহারকারীদের ব্যবসা, আইন সংক্রান্ত ক্ষেত্রে বিপদ তৈরি হবে।

কীরকম তথ্য ফাঁস হওয়ার আশঙ্কা আছে?

অ্যাভাস্টের তরফে জানানো হয়েছে, ব্যবহারকারীর নাম, ঠিকানা, জন্মতারিখ, অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য ফাঁস হয়ে যেতে পারে। এমনকী সুরক্ষাজনিত বিষয়ে আরও খামতি খাকলে কয়েকটি অ্যাপের ক্ষেত্রে বেহাত হয়ে যেতে পারে ব্যবহারকারীদের পাসওয়ার্ড। বিষয়টি নিয়ে গুগলকে জানানো হয়েছে, যাতে অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপাররা অবিলম্বে সেই ফাঁকফোকর ঠিক করে নিতে পারেন।

কোন কোন অ্যাপ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে?

লাইফস্টাইল, গেমিং, মেল, খাবার ডেলিভারি, ওয়ার্ক-আউট-সহ বিভিন্ন ধরনের বিভিন্ন অ্যাপের ক্ষেত্রে সেই বিপদ আছে। ইউরোপ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, লাতিন আমেরিকা-সহ বিশ্বজুড়ে সেই সমস্যা ধরা পড়েছে। 

ব্যবহারকারীদের কী করা উচিত?

১) যাচাই না করে গুগল প্লে স্টোর থেকে কোনও অ্যাপ ডাউনলোড করবেন না।

২) যে কোনও অ্যাপ ডাউনলোডের আগে ভালোভাবে বিবরণ পড়ে নিন। অসুরক্ষিত অ্যাপগুলির বিবরণ বাজেভাবে লেখা থাকবে। 

৩) যে অ্যাপগুলি সামান্য কিছু টাকা দিয়ে বা বিনামূল্যে কিছু দিতে চায়, তাতে ভরসা রাখবেন না।

বন্ধ করুন