বাংলা নিউজ > টেকটক > ওয়ার্ক-ফ্রম-হোম বন্ধ কর, নয় তো চাকরি ছাড়ো: ইলন মাস্কের টেসলা
ফাইল ছবি: রয়টার্স (via REUTERS)

ওয়ার্ক-ফ্রম-হোম বন্ধ কর, নয় তো চাকরি ছাড়ো: ইলন মাস্কের টেসলা

বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ি নির্মাতা মঙ্গলবার সংস্থার একজিকিউটিভ কর্মীদের উদ্দেশ্যে একটি ইমেল পাঠায়। ইলন মাস্কের বার্তায় স্পষ্টভাবে অফিসে ফেরার কথা বলা হয়েছে। নয় তো ছাড়তে হবে চাকরি। 

অনেক হয়েছে ওয়ার্ক-ফ্রম-হোম। এবার অফিসে এসে কাজ শুরু কর। কর্মীদের উদ্দেশে সাফ বার্তা ইলন মাস্কের সংস্থা টেসলার।

বিশ্বের সবচেয়ে দামি গাড়ি নির্মাতা মঙ্গলবার সংস্থার একজিকিউটিভ কর্মীদের উদ্দেশ্যে একটি ইমেল পাঠায়। তাতে স্পষ্টভাবে অফিসে ফেরার কথা বলা হয়েছে। টুইটারে এমনই ইমেল ভাইরাল হয়েছে।

শুধু তাই নয়, ইমেলে লেখা, 'যাঁরা যাঁরা বাড়ি থেকে কাজ করতে ইচ্ছুক তাঁদের অবশ্যই প্রতি সপ্তাহে ন্যূনতম (এবং *সর্বনিম্ন*) ৪০ ঘণ্টা অফিসে থাকতে হবে। নয় তো তাঁদের টেসলা ত্যাগ করতে হবে।'

ইলন মাস্ক উল্লেখ করেন যে ৪০ ঘণ্টার অফিসটা কোনও টেসলার মেইন অফিসই হতে হবে। চাকরির দায়িত্বের সঙ্গে সম্পর্কহীন কোনও দূরবর্তী শাখা অফিস নয়।

যদিও ইমেলটি আসল কিনা তা জানাননি ইলন মাস্ক। তবে তিনি যে এই ভাবনাতেই বিশ্বাসী, তা তাঁর টুইটার দেখলেই বোঝা যায়।

ইলনের এক ফলোয়ার বলেন, 'অফিসে গিয়ে কাজ করা একটা প্রাচীন কনসেপ্ট।' এর জবাবে ইলন মাস্ক বলেন, 'তাঁদের আমার নয়, অন্য কোথাও গিয়ে কাজ করার ভান করা উচিত্।'

বস হিসাবে বরাবরই কড়া ইলন মাস্ক

ইলন মাস্কের বহুদিনের বন্ধু ও পার্টনার কিথ রাবোইস। তিনি তাঁর বন্ধুর ম্যানেজমেন্ট পন্থার একটি উদাহরণ দেন। তিনি বলেন, স্পেসএক্সে একবার কফি খেতে গিয়ে একদল ইন্টার্নকে আড্ডা মারতে দেখেছিলেন ইলন। পরের দিনই সেখানে ক্যামেরা বসিয়ে দেন তিনি। ইন্টার্নদের উপর কড়া নজরদারির ব্যবস্থা করেন। আবার এমন আড্ডা-গল্প হলে বরখাস্ত করা হবে বলে জানিয়ে দেন।

বন্ধ করুন