বাংলা নিউজ > টেকটক > Android lockscreen opened without pin- পিন ছাড়াই অ্যান্ড্রয়েডের লকস্ক্রিন খুললেন যুবক, ৫৬ লাখ টাকা পুরস্কার দিল Google

Android lockscreen opened without pin- পিন ছাড়াই অ্যান্ড্রয়েডের লকস্ক্রিন খুললেন যুবক, ৫৬ লাখ টাকা পুরস্কার দিল Google

প্রতীকী ছবি: পেক্সেল (Pexels)

গুগলকে এই বিষয়ে অবহিত করেন তিনি। এরপর ৫ নভেম্বর ২০২২-এ একটি নতুন সিকিউরিটি প্যাচে এই সমস্যার সমাধান করে গুগল। তিনি লিখেছেন, 'আপনাদের ডিভাইস আপডেট করে নিন।'

অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্ক্রিন লক কি আদৌ নিরাপদ? এমনটাই প্রশ্ন তুলছেন এক সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ। সম্প্রতি গুগল পিক্সেল ফোনে প্রভাব ফেলতে পারে, এমন এক নিরাপত্তাগত গলদের বিষয় তুলে ধরেছেন তিনি। ফলে এই খবর অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীদের জন্য চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়াতে পারে।

সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞ ডেভিড শুটজের দাবি, এই নিরাপত্তাগত গলদের কারণে যে কেউ স্ক্রিন লক এড়িয়ে যেতে পারেন। সহজেই স্মার্টফোন আনলক করা যায়। তাঁর মতে, একটি সিম কার্ড এবং ডিভাইসটি হাতে পেলেই সেটি আনলক করে ফেলা সম্ভব বলে জানিয়েছেন তিনি।

এই বিষয়ে টুইটও করেছেন তিনি। তাতে লিখেছেন, আমি এমন একটি ত্রুটি খুঁজে পেয়েছি যাতে পাসকোড না জেনেও যেকোনও @Google Pixel ফোন আনলক করা যাবে। এটি এখনও পর্যন্ত আমার খুঁজে পাওয়া সবচেয়ে উদ্বেগজনক বাগ। আরও পড়ুন: পুরো কলকাতায় Jio 5G পরিষেবা মিলবে? জানিয়ে দিল আম্বানির সংস্থা, নজরে শিলিগুড়ি

তিনি আরও জানান যে, গুগলকে এই বিষয়ে অবহিত করেন তিনি। এরপর ৫ নভেম্বর ২০২২-এ একটি নতুন সিকিউরিটি প্যাচে এই সমস্যার সমাধান করে গুগল। তিনি লিখেছেন, 'আপনাদের ডিভাইস আপডেট করে নিন।'

কীভাবে পিন ছাড়া আনলক করেছিলেন তিনি?

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ঠিক কীভাবে এই পন্থা বের করেন, সেটি জানিয়েছেন। তিনি জানান, সিম কার্ডের পিন ভুলে যাওয়ায় তিনটি ভুল কোড লিখেছিলেন। এরপর সিম কার্ডটি নিজেই লক হয়ে যায়। এরপরে তিনি সেটি আনলক করতে সিম কার্ডে দেওয়া PUK কোডটি দেন। এদিকে মজার বিষয় হল, সিমের কোড দিতে না দিতেই ফোন হোম স্ক্রিনে ওপেন হয়। আর কোনও লকস্ক্রিনের কিছু দিতে হয়নি।

বিষয়টি দেখেই খটকা লাগে তাঁর। এরপরে বেশ কয়েকবার বিষয়টি করে দেখেন। প্রতিবারই একই বিষয় হয়। ওই ব্যক্তি এমনিতেই পেশায় এই ধরনের বাগ খোঁজেন। সফটওয়্যার কোডিংয়ের প্রতি তাঁর আগ্রহও রয়েছে। ফলে এই সুযোগ ছাড়েননি তিনি।

এরপর গুগলকে সেই বিষয়ে রিপোর্টও পাঠান তিনি। প্রথমে গুগল সেটিকে একটি ডুপ্লিকেট বাগ বলে জানালেও, পরে এক কনফারেন্স চলাকালীন তিনি গুগলের আধিকারিকদের এই বিষয়ে জানান। এরপরে গুগল সেই বাগের বিষয়ে কাজ করে।

এই ধরনের সমস্যা খুঁজে বের করার জন্য গুগল সাধারণত রিপোর্ট করা ব্যক্তিদের মোটা টাকা পুরস্কার দেয়। এমনিতেই লক স্ক্রিন বাইপাসের পদ্ধতি জানাতে পারলে গুগল ১ লক্ষ মার্কিন ডলার পুরস্কার দেয়। আরও পড়ুন: ৯৭ লক্ষ মানুষের কাছ থেকে ১ ডলার করে 'মুক্তিপণ' চাই! না হলেই ডেটা ফাঁস: রিপোর্ট

তবে এক্ষেত্রে এই ব্যক্তির আগেও একজন এই সমস্যার কথা গুগলে রিপোর্ট করেছিলেন। যদিও এই ব্যক্তির বারবার বলার পরেই গুগল এই সমস্যার সংশোধনে সচেতন হয়। আর সেই কারণেই পুরস্কার হিসাবে তাঁকে ৭০ হাজার মার্কিন ডলার পুরস্কার দেয় গুগল। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৫৬ লক্ষ টাকা।

বন্ধ করুন