বাংলা নিউজ > টেকটক > ব্যান করা হল ২০ লক্ষ ভারতীয় WhatsApp অ্যাকাউন্ট, জানুন কেন?
কেন্দ্রের নয়া সোশ্যাল মিডিয়া নীতি মেনে মাসিক রিপোর্ট প্রকাশ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। সেখানেই অ্যাকাউন্ট ব্যানের এই পরিসংখ্যান দিয়েছে ফেসবুক অধীনস্থ সংস্থা। ফাইল ছবি : রয়টার্স  (Reuters)
কেন্দ্রের নয়া সোশ্যাল মিডিয়া নীতি মেনে মাসিক রিপোর্ট প্রকাশ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। সেখানেই অ্যাকাউন্ট ব্যানের এই পরিসংখ্যান দিয়েছে ফেসবুক অধীনস্থ সংস্থা। ফাইল ছবি : রয়টার্স  (Reuters)

ব্যান করা হল ২০ লক্ষ ভারতীয় WhatsApp অ্যাকাউন্ট, জানুন কেন?

মূলত মেসেজের নেগেটিভ ফিডব্যাকের উপর ভিত্তি করেই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে।

ভুয়ো মেসেজের মাধ্যমে হিংসা, অশান্তি ছড়ানো হচ্ছে। এই অভিযোগেই প্রায় ২০ লক্ষ ভারতীয় হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট ব্যান করেছে সংস্থা। গত ১৫ মে থেকে ১৫ জুন- এক মাসের মধ্যেই এই অ্যাকাউন্টগুলি ব্যান করা হয়েছে।

কেন্দ্রের নয়া তথ্যপ্রযুক্তি নীতি মেনে মাসিক রিপোর্ট প্রকাশ করেছে হোয়্যাটসঅ্যাপ। সেখানেই অ্যাকাউন্ট ব্যানের এই পরিসংখ্যান দিয়েছে ফেসবুক অধীনস্থ সংস্থা। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে হিংসা, অশান্তি, ভুয়ো খবর, উস্কানিমূলক প্ররোচনা বন্ধ করতেই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে। হোয়্যাটসঅ্যাপ সুষ্ঠভাবে ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার বিষয়টিও মাথায় রাখা হয়েছে।

মূলত মেসেজের নেগেটিভ ফিডব্যাকের উপর ভিত্তি করেই এই পদক্ষেপ করা হয়েছে। যদিও ভাইরাল ভুয়ো মেসেজের প্রথম প্রেরক কে, তা ট্রেস করতে এখনও নারাজ হোয়্যাটসঅ্যাপ। কেন্দ্রীয় সরকার এই নীতি আনতে সচেষ্ট হওয়ায় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে সংস্থা। হোয়্যাটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষের দাবি, এক্ষেত্রে প্রতিটি সাধারণ মেসেজও ট্রেস করার অপশন তৈরি করতে হবে। যাতে পরে কোনও বিতর্কিত মেসেজ ট্রেস করে প্রথম প্রেরককে খুঁজে বের করা যায়। এক্ষেত্রে সাধারণ ব্যবহারকারীদের এনক্রিপশন বলে আর কিছু থাকবে না।

বন্ধ করুন