বাংলা নিউজ > টেকটক > কেন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল Facebook, Instagram, WhatsApp? যা জানা গিয়েছে…
থমকে দাঁড়িয়ে ছিল তিন সোশ্যাল মিডিয়া জায়েন্ট। ছবি : রয়টার্স  (REUTERS/Dado Ruvic)
থমকে দাঁড়িয়ে ছিল তিন সোশ্যাল মিডিয়া জায়েন্ট। ছবি : রয়টার্স  (REUTERS/Dado Ruvic)

কেন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল Facebook, Instagram, WhatsApp? যা জানা গিয়েছে…

  • আউটেজ বা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবহারকারীর সংখ্যা সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়নি। ফেসবুকের বিদায়ী প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা মাইক শ্রোফার 'নেটওয়ার্কিং সমস্যা'-কে দায়ী করেছেন।

সোমবার সন্ধ্যায় হঠাত্ই কাজ করছিল না ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এবং হোয়াটসঅ্যাপ। প্রায় ছয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বিশ্বব্যাপী থমকে ছিল ফেসবুক অধিনস্থ তিনটি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। সাম্প্রতিক অতীতে বৃহত্তম আউটেজ। বিশ্বব্যাপী ১.০৬ কোটি ব্যবহারকারী এতে প্রভাবিত হন।

সোমবার ফেসবুকের শেয়ার দর ৪.৯ শতাংশ হ্রাস পায়। যা গত বছর নভেম্বরের পর এটি তাদের সবচেয়ে বড় দৈনিক পতন। বিজ্ঞাপন পরিমাপক সংস্থা স্ট্যান্ডার্ড মিডিয়া ইনডেক্স অনুসারে, আউটেজ চলাকালীন ফেসবুক প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ৫,৪৫,৫০০ ডলার অ্যাড রেভেনিউ হারিয়েছে। কোম্পানির নিজস্ব ইমেল সিস্টেম সহ ফেসবুকের কিছু অভ্যন্তরীণ অ্যাপ্লিকেশনও প্রভাবিত হয়েছিল।

ফেসবুক শুরুতে ঠিক স্পষ্ট করে এই আউটেজের কারণ সম্পর্কে কিছু জানায়নি। তারা খালি বলে, 'কিছু ব্যবহারকারীর অ্যাক্সেস করতে সমস্যা হচ্ছে।' সেই সঙ্গে বলা হয়, অ্যাক্সেস পুনরুদ্ধারের জন্য কাজ চলছে। তবে পরে এ বিষয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে সংস্থা।

ফেসবুকের বিবৃতিতে কী বলা হয়েছে?

'কনফিগারেশান বদলের ত্রুটি' (faulty configuration change) এই অবস্থার জন্য দায়ী বলে জানিয়েছে সংস্থা। নিজেদের ব্লগ পোস্টে এমনটাই উল্লেখ করে সোশ্যাল মিডিয়া জায়েন্ট। এই কনফিগারেশান কাদের করা বা এটি পূর্বপরিকল্পিত কিনা সে বিষয়ে কিছু জানায়নি ফেসবুক।

আমাদের ইঞ্জিনিয়ারিং টিম জানতে পেরেছে যে রাউটারগুলিতে কনফিগারেশন চেঞ্জে গলদের ফলে আমাদের ডেটা সেন্টারগুলির মধ্যে নেটওয়ার্ক ট্র্যাফিকের সমন্বয়ে সমস্যা হচ্ছিল। এর ফলে কানেকশান ব্যাহত হয়। নেটওয়ার্ক ট্রাফিকের এই বিঘ্ন আমাদের ডেটা সেন্টারগুলির কানেকশানের পথে একটি ক্যাসকেডিং প্রভাব ফেলে। আমাদের পরিষেবাগুলি এই কারণে বন্ধ হয়ে যায়।

রয়টার্স ফেসবুকের বেশ কয়েকজন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মীকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করে। তাঁরা জানান, সম্ভবত ইন্টারনেট ডোমেইনে অভ্যন্তরীণ রাউটিং গলদের কারণে এই বিভ্রাট ঘটেছে। তাঁরা বলেন, অভ্যন্তরীণ কমিউনিকেশন টুলস এবং অন্যান্য কিছু ক্ষেত্রে সমস্যা হয়েছিল। বেশ কয়েকজন সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞের মতে, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামের বিঘ্ন একটি অভ্যন্তরীণ ত্রুটি। হার্ভার্ডের বার্কম্যান ক্লেইন সেন্টার ফর ইন্টারনেট অ্যান্ড সোসাইটির পরিচালক জোনাথন জিট্রেন টুইট করেছেন, 'ফেসবুক গাড়ির মধ্যে চাবি ফেলে রেখেই দরজা বন্ধ করে ফেলেছে!'

'ফেসবুকের বিভ্রাট DNS-এর কারণেই হয়েছে। তবে এটি সমস্যার একটি লক্ষণ মাত্র,' জানান সাইবার থ্রেট বিশেষজ্ঞ ট্রয় মুরুসক। ইন্টারনেট ইনফ্রাস্ট্রাকচার সংস্থা ক্লাউডফ্লেয়ারের সিটিও জন গ্রাহাম-কামিং বলেন, 'সম্ভবত ফেসবুক তাদের রাউটারগুলির সঙ্গে কিছু করেছে। এই রাউটারগুলিই ফেসবুক নেটওয়ার্ককে বাকি ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত করে।'

বন্ধ করুন