প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

লকডাউন চলাকালীন মাইকে আজান দেওয়া যাবে না, রায় আদালতের

আজানকে আমরা ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ হিসাবে মান্য করি। কিন্তু লাউড স্পিকারে আজান দেওয়া ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ নয়, পর্যবেক্ষণের জানালেন বিচারপতিরা

লকডাউনের মধ্যে অজান দেওয়ায় নিষেধাজ্ঞা জারি না করলেও লাউডস্পিকার বা মাইক ব্যবহার করা যাবে না। শুক্রবার এক রায়ে একথা স্পষ্ট জানাল এলাহাবাদ হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। 

শুক্রাবার বিচারপতি শশীকান্ত গুপ্তা ও বিচারপতি অজিত কুমারের ডিভিশন বেঞ্চ রায়ে জানিয়েছে, কেউ খালি গলায় আজান দিলে তাকে লকডাউন ভঙ্গ বলে ধরা যেতে পারে না। তবে আজান দেওয়ার সময় লাউডস্পিকার (মাইক) বা এমন কোনও যন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না যা মানুষের গলার আওয়াজ বাড়িয়ে দেয়।

রায়ে বিচারপতিরা বলেছেন, ‘আজানকে আমরা ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ হিসাবে মান্য করি। কিন্তু লাউড স্পিকারে আজান দেওয়া ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ নয়। ফলে তা মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে না। বরং তা সংবিধানের তৃতীয় অনুচ্ছেদে নৈতিকতা, শৃঙ্খলা ও শারীরিক প্রভাবের সঙ্গে সম্পৃক্ত।’

সঙ্গে আদালত বলে, ‘কেউ যদি কিছু শুনতে না চায় তাকে তা জোর করে শোনানো মৌলিক অধিকার হরণের সমতুল।’ 

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে উত্তর প্রদেশের গাজিপুরে মসজিদে আজান দেওয়া নিষিদ্ধ করেছিল সেরাজ্যের সরকার। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে গিয়েছিলেন স্থানীয় বসপা বিধায়ক আফজল আনসারি। 

 

বন্ধ করুন