বাড়ি > দেখতেই হবে > India And World > ফুরিয়ে আসছিল পয়সা, বাড়ি ফিরতে না পেরে কেরলে আত্মঘাতী বাঙালি যুবা
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

ফুরিয়ে আসছিল পয়সা, বাড়ি ফিরতে না পেরে কেরলে আত্মঘাতী বাঙালি যুবা

  • গত সপ্তাহে কেরল থেকে যে ট্রেনটি পশ্চিমবঙ্গে এসেছে সেটিতে ওঠার আপ্রাণ চেষ্টা করেন ওই শ্রমিক। কিন্তু পুলিশ তাঁকে উঠতে দেয়নি। এর পরই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি।

লকডাউনের জেরে বাড়ি ফিরতে না-পারায় সুদূর কেরলে আত্মঘাতী হলেন এক বাঙালি শ্রমিক। নিহত আশিক ইকবাল মণ্ডল (২২)-এর বাড়ি মুর্শিদাবাদের ডোমকলে। পাঁচ মাস আগে বাড়ি ছেড়েছিলেন তিনি। গত সপ্তাহে কেরল থেকে পশ্চিমবঙ্গে যে ট্রেনটি আসে তাতে ওঠার সুযোগ না-পেয়ে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন তিনি। শনিবার ফোনে কেরল থেকে আত্মীয়দের এমনই জানিয়েছে ইকবালের সহকর্মীরা। 

ডোমলকের জিৎপুর এলাকার শিরোপাড়ার বাসিন্দা ওই যুবকের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, লকডাউনের পর থেকে দেড় মাস জমানো টাকা খরচ করে কোনও রকমে খেয়ে পরে বেঁচে ছিলেন ইকবাল। সম্প্রতি সেই টাকায় টান পড়ে। এর পর বাড়ি ফেরার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন তিনি। গত সপ্তাহে কেরল থেকে যে ট্রেনটি পশ্চিমবঙ্গে এসেছে সেটিতে ওঠার আপ্রাণ চেষ্টা করেন ওই শ্রমিক। কিন্তু পুলিশ তাঁকে উঠতে দেয়নি। এর পরই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। শুক্রবার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

ইকবালের সঙ্গে থাকা শিরোপুরের অন্যান্য প্রবাসী শ্রমিকরা ফোনে জানিয়েছেন, যে ঘরে ইকবালরা থাকতেন তার পাশে একটি আমগাছ থেকে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। 

ঘটনায় ভেঙে পড়েছে যুবকের পরিবার। মৃতের দাদা বলেন, ‘প্রথমবার বাইরে কাজে গিয়েছিল আমার ভাই। ওর মতো অনেকে ওখানে আটকে রয়েছে। সরকার যেন তাড়াতাড়ি তাদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করে। নইলে আরও অঘটন ঘটবে।’

 

বন্ধ করুন