বাংলা নিউজ > ছবিঘর > টুকিটাকি > Kerala Youth Dies: স্কেটবোর্ডে দেশের এ মাথা থেকে ও মাথা যাবেন ভেবেছিলেন, মাঝপথে দুর্ঘটনায় সব শেষ
পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল যুবকের (ফাইল ছবি)

Kerala Youth Dies: স্কেটবোর্ডে দেশের এ মাথা থেকে ও মাথা যাবেন ভেবেছিলেন, মাঝপথে দুর্ঘটনায় সব শেষ

  • লক্ষ্য ছিল স্কেটবোর্ডে করে কন্যাকুমারী থেকে কাশ্মীর যাওয়ার। কিন্তু সেই লক্ষ্য পূরণ করা হল না কেরলের যুবকের। মাঝপথেই ট্রাকের ধাক্কায় ভেঙে গেল সব স্বপ্ন।

অনস হাজস, কেরলের এক ৩১ বছর বয়সী যুবক। তাঁর লক্ষ্য ছিল স্কেটবোর্ডে করে তিনি কন্যাকুমারী থেকে কাশ্মীর যাবেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন সফল হল কই? মাঝ পথেই থেমে গেল সবটা। হরিয়ানার পাঁচকুলা জেলার উপর দিয়ে যখন তিনি যাচ্ছিলেন তখন একটি পথ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান তিনি।

মঙ্গলবার দিন অনস হরিয়ানার পিঞ্জর থেকে পাঁচকুলা হয়ে হিমাচল প্রদেশের নালাগড় যাচ্ছিলেন। তখনই একটি ট্রাক তাঁকে পিষে দিয়ে চলে যায়। পিঞ্জর থানার পুলিশ রাম করণের মতে অনস তাঁর স্কেটবোর্ডে করে যাচ্ছিলেন। তখনই একটি ট্রাক দুরন্ত গতিতে এসে তাঁকে পিষে দেয়। এরপরই ট্রাকটি পালিয়ে যায়। ট্রাক বা ট্রাক চালককে ধরা যায় না। তবে কিছু স্থানীয় সেই ট্রাকের নম্বরটি টুকে নিতে পেরেছিল। পুলিশকে ট্রাকের নম্বর দেওয়া হয়েছে। খোঁজ করা হচ্ছে ট্রাকটির। দুর্ঘটনার পরই অনসকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। 

অনস হাজস হচ্ছেন কেরলের তিরুবনন্তপুরমের বাসিন্দা। তিনি ২৯ মে তাঁর এই ৩৫১১ কিলোমিটার লম্বা যাত্রা শুরু করেছিলেন। কিছুদিন আগেই তিনি একটি ভিডিও পোস্ট করেন সমাজ মাধ্যমে এবং লেখেন যে তিনি আর মাত্র ৬০০ কিলোমিটার দূরে রয়েছেন কাশ্মীরের থেকে। আর ১৫ দিন পরেই তিনি পৌঁছে যেতেন কাশ্মীরে। প্রতিদিন ৪০-৫০ কিলোমিটার তিনি স্কেট করছিলেন। কিন্তু স্বপ্নের কাছাকাছি পৌঁছিয়েও তাকে ধরতে পারলেন না অনস।

মাত্র তিন বছর আগেই তিনি এই স্কেটবোর্ডটি কিনেছিলেন। তারপর শুরু করেছিলেন প্রশিক্ষণ। এরপরই তিনি কন্যাকুমারী থেকে কাশ্মীর স্কেটবোর্ডে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। যাত্রা শুরুর মাত্র একদিন আগে পরিবারকে জানিয়েছিলেন এই সিদ্ধান্তের কথা। সঙ্গে নিয়েছিলেন দু'সেট জামা-প্যান্ট এবং হেলমেট। এবং ঠিক করেছিলেন তাঁর এই উদ্যোগ সফল হলে এরপর তিনি একে এক নেপাল, ভুটান এবং কম্বোডিয়া যাবেন এই স্কেটবোর্ডে চড়েই। কিন্তু সেসব স্বপ্ন অধরা থেকে গেল প্রাক্তন আইটি কর্মী অনস হাজসের।

বন্ধ করুন