বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > SSC Scam: কী করে চাকরি পেলেন সঙ্গীতা?‌ অর্পিতার ছোট বোন এবার ইডির নজরে
অর্পিতা মুখোপাধ্যায়।

SSC Scam: কী করে চাকরি পেলেন সঙ্গীতা?‌ অর্পিতার ছোট বোন এবার ইডির নজরে

  • সঙ্গীতা হঠাৎই স্কুল শিক্ষা দফতরে চাকরি পান। যেখানে আগে রান্নার কাজ করতেন তিনি। তাঁর স্বামী কল্যাণ ট্যাক্সি চালাতেন। সঙ্গীতা চাকরি পাবার পর কল্যাণ এলাকায় কেউকেটা হয়ে ওঠেন। প্রতিবেশীরা কিছু বলতে ভয় পেতেন। শরিকি বাড়ি ছেড়ে দেড় প্রথমে ভাড়া বাড়িতে চলে যান কল্যাণ–সঙ্গীতা।

এই তো সেদিনের কথা। প্রতিবেশীদের বাড়িতে ধূপকাঠি বিক্রি থেকে রান্নার কাজ করতেন তিনি। তবে এই কাজ বেশিদিন করতে হয়নি তাঁকে। কারণ ওই তরুণী শিক্ষা দফতরে সরকারি চাকরি পান। তখন বিষয়টি নিয়ে কোনও উত্তাপ তৈরি হয়নি। কিন্তু পার্থ চট্টোপাধ্যায়–অর্পিতা মুখোপাধ্যায় ইডি’‌র হাতে গ্রেফতার হতেই প্রশ্ন উঠেছে, প্রভাবশালী যোগেই কি সরকারি চাকরি?‌ বাড়ির কাছে পোস্টিংয়েও প্রভাব খাটানো হয়েছিল?‌ এই প্রশ্ন উঠেছে অর্পিতার ছোট বোন সঙ্গীতা ধরের বিরুদ্ধে।

ঠিক কী সামনে উঠে আসছে?‌ বেলঘরিয়ার কিশোর পল্লিতে বসবাস করেন সঙ্গীতা ধর। তাঁর স্বামী কল্যাণ ধর। যিনি বড় শ্যালিকা অর্পিতার গাড়ি চালাতেন। এখন বড় শ্যালিকা গ্রেফতার হতেই কিশোর পল্লির বাড়িতে পড়েছে তালা। সঙ্গীতার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। বিয়ের পর পদবি পাল্টা তিনি ধর হয়েছেন। আগে মুখোপাধ্যায় ছিলেন।

কেন প্রভাবশালী যোগের কথা উঠছে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, সঙ্গীতা হঠাৎই স্কুল শিক্ষা দফতরে চাকরি পান। যেখানে আগে রান্নার কাজ করতেন তিনি। তাঁর স্বামী কল্যাণ ট্যাক্সি চালাতেন। সঙ্গীতা চাকরি পাবার পর কল্যাণ এলাকায় কেউকেটা হয়ে ওঠেন। প্রতিবেশীরা কিছু বলতে ভয় পেতেন। শরিকি বাড়ি ছেড়ে দেড় প্রথমে ভাড়া বাড়িতে চলে যান কল্যাণ–সঙ্গীতা। তারপর শরিকি বাড়িতে নিজের অংশে নতুন বাড়ি তৈরি করেন। তিন মাস আগে নতুন বাড়ির গৃহপ্রবেশে এসেছিলেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। তাই এখন প্রভাবশালী যোগের কথা উঠছে।

কেমন পরিবর্তন আসে তাঁদের জীবনযাত্রায়?‌ সূত্রের খবর, গ্রুপ–ডি পদে চাকরি পান সঙ্গীতা। প্রথমে বিকাশ ভবনে পোস্টিং ছিল তাঁর। ৬ মাস পরই তাঁকে বেলঘরিয়ার বান্ধব নগরে স্কুলশিক্ষা দফতরের কামারহাটি সার্কলের এসআই অফিসে ডেপুটেশনে পাঠানো হয়। গত ২৬ জুলাই শেষ অফিসে গিয়েছিলেন সঙ্গীতা। তার পর থেকে আরও কোনও খোঁজ মেলেনি। এখন এই বিষয়ে তদন্তে নেমেছে ইডি।

বন্ধ করুন