বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > কেরালায় ইরাক ফেরৎ প্রাক্তন IS জঙ্গিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল এনআইএ আদালত
ইরাক থেকে ফিরে আসা প্রাক্তন আইএস জঙ্গি সুবাহানি হাজা মইদিনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল কোচির এনআইএ আদালত। ছবি: পিটিআই। (PTI)
ইরাক থেকে ফিরে আসা প্রাক্তন আইএস জঙ্গি সুবাহানি হাজা মইদিনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল কোচির এনআইএ আদালত। ছবি: পিটিআই। (PTI)

কেরালায় ইরাক ফেরৎ প্রাক্তন IS জঙ্গিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল এনআইএ আদালত

  • প্রাক্তন ইসলামিক স্টেট জঙ্গিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল আদালত। এই প্রথম কোনও ভারতীয় ১২৫ নম্বর ধারায় শাস্তি পেল।

THIRUVANANTHAPURAM : ইরাক থেকে ফিরে আসা প্রাক্তন ইসলামিক স্টেট জঙ্গিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিল কোচির এনআইএ আদালত। সেই সঙ্গে তাকে জরিমানাও করা হল। 

সোমবার সাজা ঘোষণার আগে গত শুক্রবার ইরাক ফেরৎ প্রাক্তন আইএস জঙ্গি সুবাহানি হাজা মইদিনকে (৩৪) ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৫ নম্বর ধারায় বন্ধুরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা, ১২০বি ধারায় অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র এবং ইউএপিএ আইনে দোষী সাব্যস্ত করে এনআইএ আদালত। 

দোষী জঙ্গিকে জেলে পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে দক্ষ ভাবে তদন্ত পরিচালনার জন্য কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বিভাগের প্রশংসা করে আদালত। আইন বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই প্রথম ভারতে কাউকে ১২৫ নম্বর ধারায় শাস্তি দেওয়া হল।

২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে মইদিনকে তামিল নাডুর তিরুনেলভেলি থেকে গ্রেফতার করে এনআইএ। তদন্তে জানা যায়, আদতে ইদুক্কি জেলার থোজুপুঝা অঞ্চলের এই বাসিন্দা ২০১৫ সালে সৌদি আরবে রওনা হয়ে পরবর্তীকালে তুরস্কে পৌঁছায় এবং পরে তাকে সিরিয়ার রাক্কায় সশস্ত্র জঙ্গি হিসেবে তালিম নিতে পাঠানো হয়। প্রশিক্ষণ শেষে তাকে ইরাকের মসুলে এক ফরাসিভাষী নেতার দলে নিযুক্ত করা হয়। 

এর কিছুদিন পরে এক সতীর্থ আইএস জঙ্গিকে জীবন্ত দগ্ধ হতে দেখে পালায় মইদিন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সংগঠনের অন্য সদস্যদের হাতে সে ধরা পড়ে। অবশেষে ভারতে নাশকতামূলক অভিযান চালাবে, এই আশ্বাস দেওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। 

সরকারি আইজীবী অভিযোগ করেছিলেন, ধরা পড়ার সময় মইদিন কয়েক জন বিচারক ও শীর্ষ স্থানীয় রাজনৈতিক নেতার উপরে আক্রমণের ফন্দি আঁটছিল। পরিকল্পনা সফল করতে বেশ কয়েক বার বাজি শিল্পের জন্য বিখ্যাত শিবকাশী শহরে সে সফরও করেছিল। জেরায় সে কবুল করে, ইরাকে ২০১৫ সালের প্যারিস হামলার মূল ষড়যন্ত্রী আধা বেলজিয়ান আধা মরোক্কান সন্ত্রাসবাদী নেতা আবদেন হামিদ আবাউদের অধীনে কাজ করত। 

গোয়েন্দারা জানতে পারেন, আই শাসিত এলাকা ছাড়ার পরে তুরস্কে এসে পৌঁছয় মইদিন এবং ভারতীয় দূতাবাসে ভুয়ো ওকালতনামা জমা দিয়ে অভিযোগ করে যে, তার সমস্ত নথিপত্র হজযাত্রায় গিয়ে চুরি হয়ে গিয়েছে। 

তবে প্রথমে মইদিনের কথা জানতে পারেনি এনআইএ। মহারাষ্ট্রের আইএস জঙ্গি আরিব মাজিদের সন্ধানে বেরিয়েই তার প্রতি নজর ঘোরে গোয়েন্দাদের। তদন্তে আরও জানা গিয়েছে, ভারতে সন্ত্রাসমূলক হামলা চালাতে ইতিমধ্যে ১৫ জনকে দলে নিয়েছিল মইদিন।

বন্ধ করুন