বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কোচবিহারে পালাবদল, বিজেপি–র ঘর ফাঁকা করে তৃণমূলে উৎপলকান্তি দেব ও অনুপম দে
পার্থপ্রতিম রায়ের হাত থেকে তৃণমূলের পতাকা নিচ্ছেন উৎপলকান্তি দেব ও অনুপম দে। ছবি সৌজন্য : টুইটার
পার্থপ্রতিম রায়ের হাত থেকে তৃণমূলের পতাকা নিচ্ছেন উৎপলকান্তি দেব ও অনুপম দে। ছবি সৌজন্য : টুইটার

কোচবিহারে পালাবদল, বিজেপি–র ঘর ফাঁকা করে তৃণমূলে উৎপলকান্তি দেব ও অনুপম দে

  • বিজেপি–র জেলা সভানেত্রী মালতি রাভার দাবি, যাঁরা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে গেলেন তাঁরা সকলেই ব্যক্তিগত স্বার্থে দলত্যাগ করেছেন।

কোচবিহারে একদিকে যেখানে তৃণমূলের অন্দরে সংগঠন নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে, তেমন আর একদিকে সোমবার আরও ক্ষমতা এল দলের হাতে। বিজেপি–র ঘর ফাঁকা করে দল বদলে তৃণমূলে এলেন ‌বিজেপি–র কোচবিহার জেলার সাধারণ সম্পাদক উৎপলকান্তি দেব ও জেলা বিজেপি যুব মোর্চার প্রাক্তন সভাপতি অনুপম দে। একইসঙ্গে এদিন বিজেপি ছেড়ে শাসকদল তৃণমূলে নাম লেখালেন প্রায় ২৫০ জন কর্মী।

সোমবার তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন কোচবিহারের তৃণমূল জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়। সামনের বছর লোকসভা নির্বাচনের আগে বিজেপি–র গুরুত্বপূর্ণ নেতাকর্মীদের তৃণমূলে আসা প্রসঙ্গে পার্থপ্রতিম এদিন বলেন, ‘‌এতেই শেষ নয়। আগামী দিনে আরও অনেকে আসবে আমাদের দলে।’‌ যদিও বিজেপি–র জেলা সভানেত্রী মালতি রাভার দাবি, যাঁরা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে গেলেন তাঁরা সকলেই ব্যক্তিগত স্বার্থে দলত্যাগ করেছেন।

উল্লেখ্য, কোচবিহারে তৃণমূলের সাংগঠনির অবস্থার হাল ফেরাতে জুলাই মাসে জেলা সভাপতি করা হয় পার্থপ্রতিম রায়কে। গত লোকসভা নির্বাচনের পর প্রায় এক বছর জেলার কার্যনির্বাহী সভাপতি ছিলেন তিনি। তাঁর সভাপতিত্বে দল আরও শক্তিশালী হবে বলেই দাবি করেছেন পার্থপ্রতিমের অনুগামী ও স্থানীয় তৃণমূল কর্মী–সমর্থকরা।

বন্ধ করুন