বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Jalbhara sandesh in chandannagar: মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় চন্দননগরের জলভরা, জিআই প্রাপ্তি কবে?

Jalbhara sandesh in chandannagar: মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় চন্দননগরের জলভরা, জিআই প্রাপ্তি কবে?

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় চন্দননগরের জলভরা

সূর্য মোদক নয় চন্দনগরের অন্যান্য মিষ্টির দোকানেও জল ভরা পাওয়া যায়। সূর্য মোদকের কর্ণধার জানান, জিআই পেলে জলভরা তখন চন্দননগরের হয়ে যাবে।

বাংলার মিষ্টির সুনাম বিশ্বজুড়ে। বাংলার মিষ্টি বলতে যে সব নাম আগে আসে তার মধ্যে অবশ্যই জলভরা সন্দেশ। ইতিমধ্যেই বাংলার রসোগোল্লা পেয়েছে জিআই তকমা। এবার চন্দননগরের জলভরা যাতে জিআই তকমা পায় তার জন্য উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য। এ খবর জানিয়েছেন, ভদ্রেশ্বরের তেলেনিপাড়ার  অন্যতম মিষ্টান্ন প্রতিষ্ঠান সূর্য মোদকের বর্তমান কর্ণধার শৈবাল মোদক।

সোমবার আরামবাগের সভামঞ্চ থেকে জলভরার প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি স্মৃতি রোমন্থন করে বলেন, 'এখানকার সূর্য মোদকের মিষ্টি খুব ফেভারিট। সবাই খায়। আমি আগে নিয়ে যেতাম যখন অটলজি বেঁচে ছিলেন। তিনি খুব ভালবাসতেন মিষ্টি আর মালপোয়া খেতে। আমি আগে সূর্য মোদকের মিষ্টির দোকান থেকে জলভরা নিয়ে যেতাম।'

পড়ুন। সিএনজি গ্যাসের জোগান কেন পর্যাপ্ত নয়? পরিবহণ সচিবকে চিঠি অ্যাপ ক্যাব সংগঠনের

পড়ুন। নয়া সেতুর মাধ্যমে জুড়ে গেল দমদম রোড, মুখ্যমন্ত্রী উদ্বোধন করতেই যান চলাচল শুরু

মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে সূর্য মোদকের নাম আনায় আপ্লুত দোকানের কর্ণধার। শৈবাল মোদক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, 'মুখ্যমন্ত্রী আমাদের জলভরা সম্পর্কে যথেষ্ট ওয়াকিবহাল। আমরা যতবার জলভরা তাঁর জন্য নিয়ে গিয়েছি তিনি নিয়েছেন।' তিনি জানান, জলভরা যাতে জিআই তকমা পায় তর জন্য চেষ্টা করছেন মুখ্যমন্ত্রী। শৈবাল মোদক বলেন,'২০২২ সালে আমরা জিআই-এর আবেদন করেছি। মুখ্যমন্ত্রীর তত্ত্বাবধানেই হচ্ছে। এসডিও-র কাছে এই সংক্রান্ত কাগজপত্র জমা দেওয়া হয়েছে।'

তবে শুধু সূর্য মোদক নয় চন্দনগরের অন্যান্য মিষ্টির দোকানেও জল ভরা  পাওয়া যায়। সূর্য মোদকের কর্ণধার জানান, জিআই পেলে জলভরা তখন চন্দননগরের হয়ে যাবে। মুখ্যমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন একটি জলভরা হাব তৈরির বিষয়েও। শীঘ্রই এ নিয়ে একটি বৈঠক হবে বলে জানান শৈবাল মোদক।

হুগলি জেলার নানা মিষ্টি বেশ জনপ্রিয়। অন্যান্য রাজ্য শুধু নয়, বিদেশ থেকেও এখানকার মিষ্টি নিতে আসেন। চন্দনগরের জলভরার মতো গুপ্তিপাড়ার মাখা সন্দেশও বেশ জনপ্রিয়। 

জলভরার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

১৮১৮ সালে ইংরেজ আমলে হুগলি জেলার ভদ্রেশ্বরের জমিদারের পরোয়ানায় জন্ম হয় এই জলভরা সন্দেশের। হুগলি জেলায় সূর্য মোদকের হাতেই জন্ম হয় এই সন্দেশের।

জমিদার বাড়ির নারীমহলের দাবি ছিল নতুন জামাইকে ঠকানোর জন্য এক অভিনব মিষ্টি তৈরি করতে হবে। সেই মিষ্টিই জলভরা সন্দেশ। যার পরিকল্পনা করেন সূর্য মোদক।

বাংলার মুখ খবর
বন্ধ করুন

Latest News

একাই হাফ ডজন উইকেট নিলেন উসামা মির,মুলতান সুলতানসের কাছে হার লাহোর কালান্দার্সের বেশি টমেটো খেলে শরীরে কী কী ঘটতে পারে? অপকারিতার তালিকা থেকে সতর্ক হোন AI থেকে বাঁচতে UPSC-র ফর্ম পূরণের নিয়মে বড়সড় রদবদলের সিদ্ধান্ত, জানুন বিশদে WPL 2024: গুজরাটকে হারিয়ে MI-এর সিংহাসন ছিনিয়ে নিল RCB, দেখুন পয়েন্ট তালিকা শ'য়ে শ'য়ে কর্মী ছাঁটাই অনলাইন ভ্রমণ সংস্থার, কারণ জানলে খুশি হবেন বিমানযাত্রীরা আমার সৌভাগ্যের প্রতীক- মায়ের উপস্থিতিতেই PSL-এ শতরান করার পর দাবি বাবর আজমের ধনু-মকর-কুম্ভ-মীনের বুধবার কেমন কাটবে? জানুন রাশিফল তেরঙ্গায় মুড়ে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় সম্মানে বিদায় জানানো হল পঙ্কজ উধাসকে, ভিজল চোখ ইনজুরি টাইমের গোলে স্বপ্নভঙ্গ, তুর্কিশ উইমেন্স কাপে ট্রফি হাতছাড়া ভারতের আজ জাতীয় বিজ্ঞান দিবস পালিত হয়, ভারতের ইতিহাসে এই দিনটি সোনার মতো উজ্জ্বল

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.