বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > গাফিলতি! মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের দফতরের প্রকল্প গেল সৌমেন মহাপাত্রের হাতে
পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। ছবি : সংগৃহীত
পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। ছবি : সংগৃহীত

গাফিলতি! মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের দফতরের প্রকল্প গেল সৌমেন মহাপাত্রের হাতে

  • অভিযোগ উঠেছে, অনেক পঞ্চায়েতই রক্ষণাবেক্ষণের কাজে যুক্ত কর্মীদের সঠিক পারিশ্রমিক দিচ্ছে না।

২০১৩–১৪ সালে জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতর পানীয় জল প্রকল্পের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব দিয়েছিল রাজ্যের গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিকে। কিন্তু বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় এবার ফের সেই দায়িত্ব ফিরে গেল জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতরে।

স্বাভাবিকভাবেই এ ঘটনায় পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের হাতে কাজ ও দায়িত্বের ভার কিছুটা কম হয়ে গেল। বিতর্কেও জড়িয়ে পড়ল তাঁর দফতর। এ দিকে, হাত শক্ত হল জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রের।

অভিযোগ উঠেছে, অনেক পঞ্চায়েতই রক্ষণাবেক্ষণের কাজে যুক্ত কর্মীদের সঠিক পারিশ্রমিক দিচ্ছে না। যদিও জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, তাদের তরফ থেকে ২–৩ মাস অন্তর নিয়মমাফিক পঞ্চায়েতগুলিকে টাকা পাঠানো হয়। পঞ্চায়েতের দায়িত্ব, সেই টাকার সঙ্গে আরও কিছু টাকা যোগ করে কর্মীদের নিয়মিত পারিশ্রমিক দেওয়া। কিন্তু এ নিয়ে নিয়মিত টালবাহানা চলায় সম্প্রতি জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতরের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রর সঙ্গে দেখা করেন রক্ষণাবেক্ষণের সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা।

মন্ত্রী জানান, এবার থেকে ওই প্রকল্পের কাজ, পারিশ্রমিক প্রদান— সব জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতর থেকেই করা হবে। এর পরই পানীয় জল প্রকল্পের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পঞ্চায়েতের হাত থেকে কেড়ে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরকে দেওয়া হয়।‌

বন্ধ করুন