বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'মমতা দয়া করলেই আপনার বিরোধী দলনেতা তকমা থাকবে, শুভেন্দুকে কটাক্ষ সৌমেনের
সৌমেন মহাপাত্র । ফাইল ছবি।
সৌমেন মহাপাত্র । ফাইল ছবি।

'মমতা দয়া করলেই আপনার বিরোধী দলনেতা তকমা থাকবে, শুভেন্দুকে কটাক্ষ সৌমেনের

  • শুভেন্দু অধিকারী নন্দীগ্রাম থেকে জিতলেও তাকে বিধায়ক মানতে রাজি নন রাজ্যের সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র।

একুশের বিধানসভা ভোট নিয়ে নন্দীগ্রাম কেন্দ্রের মামলাটি এখনও বিচারাধীন অবস্থায় রয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। মামলা করেছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি ছিল, নন্দীগ্রাম কেন্দ্রে গণনায় কারচুপি করা হয়েছে। এই কেন্দ্র থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারিয়ে জিতেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। আর তা নিয়েই বিস্তর জলঘোলা হয়। মামলা গড়ায় আদালতে। তবে শুভেন্দু অধিকারী নন্দীগ্রাম থেকে জিতলেও তাকে বিধায়ক মানতে রাজি নন রাজ্যের সেচ মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র। নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে মঙ্গলবার নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে এ নিয়ে আরও একবার কটাক্ষ করলেন সৌমেন মহাপাত্র।

শুভেন্দু অধিকারীর উদ্দেশ্যে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, 'আমি আপনাকে বিধায়ক হিসেবে মানি না। আপনি কীভাবে ধমকে চমকে, টাকা দিয়ে ভোটে জিতেছেন সকলেই জানে। আপনি একজন বিশ্বাসঘাতক মানুষ। বিচারে হেরে যাবেন ভয় পেয়ে বিচারকেই সরানোর চেষ্টা করছেন।' একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি থেকে নন্দীগ্রামে জয়ী হওয়ার পর বিরোধী দলনেতা তকমা পেয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এ প্রসঙ্গে সৌমেন মহাপাত্র বলেন, 'মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দয়া করলে তবেই আপনার বিরোধী নেতার তকমা থাকবে, লালবাতি থাকবে। না হলে কিছুই থাকবে না।'

অন্যদিকে, একুশের কলকাতা পুরভোটে নিরঙ্কুশভাবে জয়লাভ করেছে তৃণমূল। ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১৩৪টি ওয়ার্ড তৃণমূলের দখলে এসেছে। কলকাতা পুরসভার ভোট মিটতেই রাজ্যের ৪ পুরনিগমে ভোট ঘোষণা করেছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। এ প্রসঙ্গে বাকি পুরসভাগুলিতে তৃণমূল জয়লাভ করবে বলেই প্রত্যয়ী সৌমেন মহাপাত্র। তিনি বলেন, 'রাজ্যে আরও পুরসভার ভোট রয়েছে। সবগুলোতেই তৃণমূল জয়লাভ করবে। সব পুরসভাতেই ঘাসফুল ফুটবে।'

যদিও এ নিয়ে পাল্টা মন্তব্য করেননি শুভেন্দু অধিকারী। তবে এর আগেও একাধিক ইস্যুকে কেন্দ্র করে এই দুই নেতা একে অপরকে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ করেছেন। প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রামে প্রথমে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ের কথা ঘোষণা করা হলেও পরে জানানো হয় শুভেন্দু অধিকারী জয়ী হয়েছেন। এরপরেই গণনায় কারচুপির অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন