বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > '৫০% পড়ুয়া নিয়ে কেন ক্লাস হবে না?', স্কুল খোলার দাবিতে বিক্ষোভ মালদহে
স্কুল খোলার দাবিতে মালদায় এসআইও'র বিক্ষোভ। নিজস্ব ছবি।
স্কুল খোলার দাবিতে মালদায় এসআইও'র বিক্ষোভ। নিজস্ব ছবি।

'৫০% পড়ুয়া নিয়ে কেন ক্লাস হবে না?', স্কুল খোলার দাবিতে বিক্ষোভ মালদহে

  • রবিবার মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর-২ নং ব্লকের করিয়ালি বাজারে পথসভা করে বিক্ষোভ করেন এসআইও সংগঠনের সদস্যরা।

করোনার বাড়বাড়ন্তের কারণে সমস্ত স্কুল-কলেজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করেছে রাজ্য সরকার। যদিও স্কুল খোলার পক্ষে শিক্ষক এবং অভিভাবকদের একাংশ। এই দাবিতে এবার আন্দোলনে নামল ছাত্রদের সংগঠন স্টুডেন্টস ইসলামিক অর্গানাইজেশন (এসআইও)। ৫০ শতাংশ পড়ুয়া নিয়ে তারা স্কুল খোলার দাবি জানিয়েছে।

রবিবার মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর-২ নং ব্লকের করিয়ালি বাজারে পথসভা করে বিক্ষোভ দেখান এসআইও সংগঠনের সদস্যরা। প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে বিক্ষোভ দেখান এসআইও'র সদস্যরা। তাঁদের বক্তব্য, ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে সরকারি বা বেসরকারি অফিস খোলা থাকলে ৫০ শতাংশ পড়ুয়া নিয়ে কেন ক্লাস করানো সম্ভব নয়? সংগঠনের এই আন্দোলনকে সমর্থন জানান শিক্ষকরাও। অনেক ছাত্রছাত্রী বিক্ষোভে যোগদান করেন। মালদহ জেলা এসআইও সংগঠনের সভাপতি আমিরুল ইসলাম জানান, 'দু'বছর ধরে স্কুল বন্ধ থাকার ফলে এমনিতেই রাজ্যে শিক্ষাক্ষেত্রে অনেক পিছিয়ে গিয়েছে। এর ফলে স্কুলছুটদের সংখ্যা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে।'

এ প্রসঙ্গে রাষ্ট্রসংঘের রিপোর্ট উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'অতিমারির কারণে প্রায় বিশ্বের ৬০ কোটি শিশুর ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ' এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, 'দীর্ঘ লকডাউনের ফলে মানুষের অভাব অনটন বেড়ে গিয়েছে। যার ফলে শিশুরা বাধ্য হয়ে রোজগারের আশায় কাজে ঢুকে পড়ছে।' অনেকেই চলে যাচ্ছে ভিন রাজ্যে। অন্যদিকে, অল্প বয়সে অনেক ছাত্রীর বিয়ে দিয়ে দিচ্ছেন অভিভাবকরা। সেইসঙ্গে, পাল্লা দিয়ে শিশু পাচার দেশে বাড়ছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। প্রসঙ্গত, এর আগে স্কুল খোলার দাবিতে লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে গিয়েছিল এসআইও। আগামী দিনে তারা স্কুল খোলার দাবিতে আরও বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

বন্ধ করুন