বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘আমি অনেকের কাছে শুনেছি, ১০ – ১৫ লক্ষ টাকায় এক একটা টিচারির চাকরি বিক্রি হয়েছিল’
মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। ফাইল ছবি (Saikat Paul)

‘আমি অনেকের কাছে শুনেছি, ১০ – ১৫ লক্ষ টাকায় এক একটা টিচারির চাকরি বিক্রি হয়েছিল’

  • সিপিএমের একটা কাগজ আছে। তার যত রিপোর্টটার আছে তার ম্যাক্সিমাম বউরা টিচারিতে চাকরি পেয়েছিল কী করে? কোয়ালিটিতে পেয়েছিল? না ক্রেডিবিলিটিতে পেয়েছিল? প্রশ্ন মমতার

শিক্ষক নিয়ে দুর্নীতি নিয়ে চতুর্মুখি চাপের মুখে পালটা সিপিএমের বিরুদ্ধে নিয়োগ দুর্নীতির অভিযোগ তুললেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার ২১ জুলাইয়ে কলকাতার ধর্মতলায় তৃণমূলের সমাবেশ থেকে তিনি অভিযোগ করে, শিক্ষকের চাকরি দেওয়ার জন্য ১০ – ১৫ লক্ষ টাকা করে নেওয়া হয়েছে বাম সরকারের জমানায়।

এদিন মমতা বলেন, ‘সিপিএমের আমলে চাকরি হয়েছিল? আমি অনেকের কাছে শুনেছি, ১০ – ১৫ লক্ষ টাকায় এক একটা টিচারির চাকরি বিক্রি হয়েছিল। নাম বলে ছোট করতে পারি না। সিপিএমের একটা কাগজ আছে। তার যত রিপোর্টটার আছে তার ম্যাক্সিমাম বউরা টিচারিতে চাকরি পেয়েছিল কী করে? কোয়ালিটিতে পেয়েছিল? না ক্রেডিবিলিটিতে পেয়েছিল? না নাম্বারে পেয়েছি? ছেলেরা পার্টি করবে আর বউয়েরা চাকরি করবে, এই ভাবে সিপিএম চাকরিগুলো দিয়েছিল, আমরা জানি এগুলো’।

প্রাথমিক, উচ্চ প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী নিয়োগে আদালতে চলছে একাধিক মামলা। ইতিমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতিকে সরিয়ে দিয়েছে আদালত। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতিকে সরিয়ে দিয়েছে রাজ্য সরকার। মোট ৫টি নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। আপাতত রাজ্য সরকারের ভাগ্য ঝুলে রয়েছে ডিভিশন বেঞ্চে।

 

বন্ধ করুন