বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > দিল্লি যেতেই হচ্ছে কেষ্টকে, হাইকোর্টে খারিজ হল অনুব্রতর রক্ষাকবচের আবেদন

দিল্লি যেতেই হচ্ছে কেষ্টকে, হাইকোর্টে খারিজ হল অনুব্রতর রক্ষাকবচের আবেদন

অনুব্রত মণ্ডল। গ্রাফিক্স

শনিবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি চৌধুরীর বিশেষ আদালতে মামলাটির শুনানি হয়। সেখানে অনুব্রতর আইনজীবী দাবি করেন, অনুব্রত অসুস্থ। তাঁর চিকিৎসা প্রয়োজন। তাঁর ফিসচুলা ফেটে রক্ত বেরোচ্ছে।

দিল্লিযাত্রায় রক্ষাকবচ চেয়ে অনুব্রত মণ্ডলের আবেদন খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চ। সঙ্গে একাধিক আদালতে একই মামলা করায় অনুব্রতকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছেন বিচারপতি বিবেক চৌধুরী। আদালতের এই নির্দেশের ফলে অনুব্রতকে দিল্লি নিয়ে যেতে আর কোনও আইনি বাধা রইল না ইডির কাছে।

শনিবার বিচারপতি চৌধুরীর বিশেষ আদালতে অনুব্রত আবেদনের শুনানি হয়। গত বৃহস্পতিবার অনুব্রতকে দিল্লি নিয়ে যেতে চেয়ে ইডির করা আবেদনে সম্মতি জানায় আসানসোলের বিশেষ সিবিআই আদালত। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে একযোগে দিল্লি হাইকোর্ট ও কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন অনুব্রত। শুক্রবার সেই আবেদনের শুনানি হয়নি আদালতে। যদিও বিচারপতি জানান শনিবার সকাল ১১টায় বিশেষ আদালতে মামলাটির শুনানি হবে। তবে নিম্ন আদালতের নির্দেশে কোনও স্থগিতাদেশও দেননি তিনি।

শনিবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি চৌধুরীর বিশেষ আদালতে মামলাটির শুনানি হয়। সেখানে অনুব্রতর আইনজীবী দাবি করেন, অনুব্রত অসুস্থ। তাঁর চিকিৎসা প্রয়োজন। তাঁর ফিসচুলা ফেটে রক্ত বেরোচ্ছে। পালটা ইডির আইনজীবী বলেন, অনুব্রত সুস্থ। তাঁকে দিল্লি নিয়ে যেতে এয়ার অ্যাম্বুলান্সের ব্যবস্থা করতে পারে তারা। দিল্লিতে কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা করা হবে।

দুপক্ষের বক্তব্য শুনে বিচারপতি চৌধুরী অনুব্রতর আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন। অনুব্রতকে কোনও রক্ষাকবচ দেয়নি আদালত। উলটে একই মামলা ২টি আদালতে করে আদালতের সময় নষ্ট করায় অনুব্রতকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছেন তিনি।

বলে রাখি, শনিবার আসানসোল জেলা হাসপাতালে অনুব্রতর স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়। এর পর হাসপাতালের সুপার জানান, অনুব্রতর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করার কোনও কারণ নেই। তাঁর ফিসচুলা থেকে রক্তপাত বন্ধ হয়েছে। তার পর আদালত অনুব্রতর আবেদন খারিজ করায় এবার তাঁর দিল্লিযাত্রা রোখা প্রায় অসম্ভব বলে মনে করছেন আইনজ্ঞদের একাংশ।

 

 

বন্ধ করুন