বাংলা নিউজ > ব্র্যান্ড পোস্ট > সুন্দর চুলের শোভা এখন আপনার হাতের মুঠোয়

সুন্দর চুলের শোভা এখন আপনার হাতের মুঠোয়

সুন্দর চুল পাবেন কী করে?

আমরা তো একঢাল ঘন সুন্দর মাথাভরা চুল চাই, কিন্তু সেটা পেতে হলে জানা দরকার আমাদের চুল কী চায়। চুল চায় খানিকটা যত্ন আর খানিকটা পুষ্টি।

চুল আমাদের সৌন্দর্যে অন্য মাত্রা এনে দেয়। নিজেকে সুন্দর দেখাতে কে না চান! আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজের স্বাস্থ্যোজ্বল চেহারা আর ঘন বাউন্সি চুল দেখলে কার চোখ না মুগ্ধতায় ভরে ওঠে? আমাদের শরীর যদি যথেষ্ট পরিমাণে নিউট্রিশন না পায়, তার ফল সবথেকে বেশি দেখা যায়  ত্বকে আর চুলে। ব্যস্ততার কারণে আর চুলের যত্ন নেওয়ার সঠিক উপায় জানা না থাকলে খুব সহজেই চুল তার জৌলুস হারিয়ে ফেলে, ভঙ্গুর হয়ে যায়। চিন্তা করার কিছু নেই। সঠিক যত্ন ও পুষ্টির জোগান দিলে চুল আবার তার হারানো সৌন্দর্য ফিরে পায়। Biotin tablets এর অনবদ্য উপকারিতা এই ব্যাপারে আপনাকে সাহায্য করবে।

আসুন, আজ আমরা কী করে সুস্থ, সুন্দর, ও উজ্জ্বল চুল অর্জন করা যায় সেই বিষয়ে আলোচনা করি।

আপনার চুল কী চায়

আমরা তো একঢাল ঘন সুন্দর মাথাভরা চুল চাই, কিন্তু সেটা পেতে হলে জানা দরকার আমাদের চুল কী চায়। চুল চায় খানিকটা যত্ন আর খানিকটা পুষ্টি। 

চুলের যত্ন:

চুলের যত্ন নেওয়ার প্রথম পদক্ষেপ হল স্ক্যাল্পের আর্দ্রতা বজায় রাখা। এর জন্য প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ মধু, জবাফুল, পেঁয়াজের রস বেছে নিন। এই উপাদানগুলি চুলে মিশে গিয়ে চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখে, চুলকে শুকনো ভঙ্গুর হতে দেয় না।

স্বাস্থ্যোজ্বল চুল পাওয়ার কয়েকটি টিপস:

  • প্রয়োজনের বেশি বারবার শ্যাম্পু করবেন না।
  • প্রতিবার শ্যাম্পু করার পর হেয়ার কন্ডিশনার ব্যবহার করুন।
  • নিজের চুলের ধরন অনুযায়ী শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার বেছে নিন। 
  • ভেজা চুল ব্রাশ করবেন না বা খুব গরম হাওয়া দিয়ে ড্রাই করবেন না।
  • সুইমিং পুলে অবশ্যই শাওয়ার ক্যাপ ব্যবহার করুন।
  • প্রখর রোদ থেকে চুলকে বাঁচিয়ে রাখুন।
  • নরম মোটা ব্রিসলযুক্ত ব্রাশ ব্যবহার করুন।
  • চুলে হট অয়েল ট্রিটমেন্ট নিন।
  • সম্ভব হলে স্ক্যাল্প মাসাজ নিন।
  • সম্ভব হলে হেয়ার স্পা করান।

 

চুলের পুষ্টি:

সঠিক পরিমাণে পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার সামগ্রিকভাবে আপনার স্বাস্থ্যকে ভালো তো রাখবেই একই সঙ্গে চুলও পুষ্টি পাবে, উপকৃত হবে। স্বাস্থ্যসম্মত ডায়েটের অন্তর্ভূক্ত হল- হোল গ্রেইনস, ফল, শাকসবজি, লিন প্রোটিন আর হেল্দি ফ্যাট। বিশেষ করে চুলের জন্য কয়েকটি পুষ্টিগুণ খুবই উল্লেখযোগ্য, সেগুলি সম্পর্কে জেনে নিই। 

 

প্রোটিন:

প্রোটিন হল কেরাটিনের উৎস। কেরাটিন দিয়ে চুলের স্ট্রাকচার তৈরি হয়। প্রোটিন কঠিনিভূত (হারডেনড) হয়ে কেরাটিনে পরিণত হয়।

 

বায়োটিন:

বায়োটিন চুলের বৃদ্ধি এবং স্বাস্থ্য বজায় রাখতে প্রয়োজন। বায়োটিন প্রোটিন সিন্থেসিসে বিশেষ করে কেরাটিন উৎপাদনে সাহায্য করে। চুলের বৃদ্ধিতে বায়োটিনের ভূমিকা অসীম। বায়োটিনের অভাবে চুল জৌলুস হারায়। মাংস, মাছ, ডিম, অর্গানস, বীজজাতীয় শস্য, বাদাম এবং মিষ্টি আলু  এগুলিতে বায়োটিন পাওয়া যায়। খাবারের সঙ্গে বায়োটিন ট্যাবলেট খেলে আপনার প্রয়োজনীয় বায়োটিনের মাত্রা সম্পূর্ণ করতে অসুবিধা হবে না।

 

আয়রন:

আয়রন সমগ্র শরীরের সঙ্গে সঙ্গে হেয়ার ফলিকলেও অক্সিজেন সরবরাহ করে, যা চুলের বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজন। আয়রনের ঘাটতিতে হেয়ার ফলিকল দুর্বল হয়ে গিয়ে চুল ঝরে পড়ে। পালংশাক, মসুর ডাল, বাদামে আয়রন আছে।

 

ওমেগা ৩:

ঝলমলে, উজ্জল ঘন চুলের জন্য ওমেগা ৩-এর অবদান অপরিসীম। ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডস স্ক্যাল্পে রক্তপ্রবাহ বাড়ায়, হেয়ার ফলিকলগুলোকে প্রয়োজনীয় পুষ্টির জোগান দেয়। চুলের বৃদ্ধি ও ঘনত্ব বাড়াতে এবং চুলের ফ্রিজিনেস কমাতে সাহায্য করে। ওমেগা ৩ হেয়ার ফলিকলে ইনফ্লামেশন কমিয়ে চুল পড়া বন্ধ করে। হেয়ার ফলিকলে ইনফ্লামেশ চুল পড়ে যাওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ। ওমেগা ৩-এর উৎস- কোল্ড-ওয়াটার ফ্যাটি ফিস যেমন স্যামন,  ফ্ল্যাকসিড, ফ্ল্যাকসিড অয়েল ইত্যাদি। সাপ্লিমেন্টস হিসাবে আপনি Omega-3 capsules খেতে পারেন। ওমেগা ৩-এর সব ক’টি উপকার পাবেন।

 

জল:

যথেষ্ট পরিমাণে জল খেলে আপনার স্ক্যাল্পে আর্দ্রতা বজায় থাকবে। স্ক্যাল্পে চুলকানি ও খুসকি হবে না। চুল পড়ে যাওয়া বা পাতলা হয়ে যাওয়া কমবে। 

 

বি ভিটামিনস: 

ভিটামিন বি আট রকমের হয়। এই ভিটামিন রেড ব্লাড সেল তৈরি হতে প্রয়োজন। রেড ব্লাড সেলগুলি রক্তের অক্সিজেন বয়ে নিয়ে যায় এবং হেয়ার ফলিকলে পৌঁছে দেয়। এই ভিটামিন নতুন চুল হতে সাহায্য করে। ভিটামিন বি সমৃদ্ধ খাবারগুলি হল— মটরশুঁটি, টাটকা ফল যেমন কলা, কমলালেবু, হোল গ্রেইন ব্রেড, বাদাম, ফর্টিফায়েড ব্রেকফাস্ট সিরিয়ালস ও লিভার।

 

ভিটামিন সি: 

এই ভিটামিন স্ক্যাল্পে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ প্রতিরোধ করে, খুসকি দৃর করে, হেয়ার ফলিকল পরিষ্কার রাখে এবং নতুন চুল তৈরি হতে সাহায্য করে। এই ভিটামিন চুলকে আর্দ্র করে, নরম ও মসৃণ করে। ভিটামিন সি-এর ঘাটতির কারণে চুল শুকনো ও ভঙ্গুর হয়ে যায় এবং অ্যানিমিয়া হয়। অ্যানিমিয়া চুল পড়ে যাওয়ার একটি কারণ। ভিটামিন সি কোলাজেন তৈরি করতে সাহায্য করে, যা চুলের জন্য প্রয়োজনীয়। সিট্রাস জাতীয় ফল যেমন লেবু ও কমলালেবু, বেলপেপার, টমেটো, ব্রকোলি, ফুলকপি, বাঁধাকপি, আলু এগুলোতে ভিটামিন সি আছে।

 

জিঙ্ক:

হঠাৎ করে চুল পড়তে শুরু করলে জিঙ্ক চুলপড়া প্রতিরোধে খুব কার্যকরী ভূমিকা নেয়। বিভিন্ন রকমের হেয়ার লস যেমন অ্যান্ড্রোজেনেটিক অ্যালোপেশিয়া বা মেল/ফিমেল বল্ডনেসের ক্ষেত্রে জিঙ্ক প্রয়োজনীয়। জিঙ্ক চুল গঠনে সাহায্য করে, ঘনত্ব বাড়ায় এবং হেয়ার ফলিকল শক্ত করে। জিঙ্কের ঘাটতি এবং আধিক্য দু’টি কারণেই চুল পড়ে যেতে পারে। রেড মিট ও পোলট্রিতে প্রচুর জিঙ্ক পাওয়া যায়। এছাড়া বাদাম, হোল গ্রেইন, ব্রেকফাস্ট সিরিয়ালস আর ডেয়ারি প্রডাক্টে জিঙ্ক থাকে।

 

কোলাজেন:

কোলাজেন একটি স্ট্রাকচারাল প্রোটিন যা শরীরে থাকে। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে শরীরে কোলাজেনের ঘাটতি দেখা দেয়। তখন কোলাজেন সাপ্লিমেন্ট ব্যবহার করলে নতুন চুল তৈরিতে এবং চুলের বৃদ্ধিতে ফল পাওয়া যায়। কোলাজেন ক্রিম ও জেল সোজাসুজি স্ক্যাল্পে লাগালে হেয়ার ফলিকলের স্ট্রাকচারকে সাপোর্ট করে ফলে ধূসরবর্ণ চুল গাঢ় হয়। কোলাজেন সাপ্লিমেন্ট ও টপিক্যাল প্রোডাক্ট চুলের আগা ফেটে যাওয়া বন্ধ করে আর চুলকে হাইড্রেট করে। 

 

পুষ্টিকর খাবার ছাড়াও আপনার স্বাস্থ্যরক্ষার জন্য নিয়মিত শরীরচর্চা করুন। আমাদের শরীরে মেলাটোনিন নামে একটি হরমোন নির্গত হয়। এই হরমোন ঘুমের সাইকল নিয়ন্ত্রণ করে আর চুলকে বাড়তে সাহায্য করে। অপর্যাপ্ত ঘুম মেলাটোনিনের নিঃসরণ কমিয়ে দেয় তার ফলে চুল পড়তে শুরু করে। আপনার চুল আপনার শরীর থেকেই পুষ্টি গ্রহণ করে তাই সাস্থ্য ভালো থাকলে তার প্রতিফলন আপনার চুলে দেখতে পাবেন।

 

উপসংহার  

তাহলে বোঝা যাচ্ছে চুল সুন্দর করতে চাইলে আগে স্বাস্থ্য ভালো করা দরকার। আজকের এই ব্যস্ত জীবনে নিজের যত্ন নেওয়ার জন্য সময় বের করাটা খুব মুশকিল, সব সময় সম্ভব হয় না। কিন্তু আপনি যদি একটা রুটিন তৈরি করে নেন তাহলে কাজটা সহজ হয়ে যায়। যেমন প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময় ধরে শরীরচর্চা করুন। জিমে যাওয়া ছাড়াও জোরে হাঁটা, সাঁতার কাটা, নাচ এই সবই শরীরচর্চার অঙ্গ। দিনের শেষে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টার নিরবচ্ছিন্ন ঘুম পরের দিনের কাজের জন্য শরীরের সঙ্গে মনকেও প্রস্তুত করে। স্বাস্থ্যকর, পুষ্টিদায়ক খাবার খাওয়ার অভ্যাস করলে আপনার সঙ্গে সঙ্গে আপনার সমস্ত পরিবারও তার সুফল উপভোগ করবে। খাবারের মধ্য দিয়ে পুষ্টিগ্রহণে কোন অভাব থাকলে হেল্থ সাপ্লিমেন্ট দিয়ে সেটি পূরণ করতে পারবেন। যেমন আপনি Collagen powder ব্যবহার করলে কোলাজেনের উপকারিতা সহজেই পেতে পারেন। এই সব অভ্যাস আপনাকে ভালো তো রাখবেই সেই সঙ্গে আপনার চুলকে করে তুলবে ঘন, মসৃণ আর ঝলমলে।

সতর্কীকরণ (ডিসক্লেমার): এই নিবন্ধটি ব্র্যান্ডের পক্ষে এইচটিব্র্যান্ড স্টুডিও দ্বারা তৈরি করা হয়েছে। এই প্রবন্ধ লেখার কাজে HT Media-র কোনও সাংবাদিক নিযুক্ত ছিলেন না। এই প্রবন্ধে লেখা তথ্যের সত্যনিষ্ঠতা, প্রাসঙ্গিকতা, যথার্থতা, বৈধতা নিয়ে কোনও দাবি করে না HT Media।

ব্র্যান্ড পোস্ট খবর
বন্ধ করুন

Latest News

বাড়িতে লেবুগাছ পোঁতা কি শুভ? কোনদিকে লাগানো উচিত! বাস্তুশাস্ত্র মত জেনে নিন ‘পড়ুয়াদের ধর্মান্তকরণ, জিহাদিদের সঙ্গে যোগ’, অভিযোগ রাজস্থানের ৩ শিক্ষকের নামে স্বপ্নের এইমস হাসপাতাল কল্যাণীতে,১০ টাকায় চিকিৎসা, ভর্তিতে কত লাগবে? বেড কতগুলি? আজ সন্ধ্যায় বৃষ্টি নামবে কলকাতায়, মঙ্গলেও জারি হলুদ সতর্কতা, কতদিন বর্ষণ চলবে? ২৬ ফেব্রুয়ারি–১ মার্চ ১০০ দিনের বকেয়া টাকা মিলবে, কন্ট্রোল রুম খুলছে নবান্ন OFC vs MBSG, ISL 2023-24 Live: ওড়িশাকে হারালেই শীর্ষে উঠবে বাগান,তবে লড়াই কঠিন লোকসভা ভোটে রাজ্যে আসন কমবে তৃণমূলের, নামবে ভোটের হারও, বলছে জনমত সমীক্ষা বিয়ের পরই নামী ফ্যাশন ডিজাইনারের হয়ে ব্রাইডাল ফটোশ্যুট, রকুল-জ্যাকির ছবি দেখে হাঁ নেটদুনিয়া জয়রাম রমেশ কী বলেছেন জানি না, বামেদের সাথে আমার জোট আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে: অধীর আদ্যোপান্ত সিঙ্গল তোমাদের রাণীর দেবযানী! কেমন পুরুষ পছন্দ মধুপ্রিয়ার?

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.