বাংলা নিউজ > ক্রিকেট > ভিডিয়ো: এভাবেও রানআউট হওয়া যায়- আকমলের উইকেট ছুঁড়ে দেওয়া নিয়ে চলছে হাসিঠাট্টা

ভিডিয়ো: এভাবেও রানআউট হওয়া যায়- আকমলের উইকেট ছুঁড়ে দেওয়া নিয়ে চলছে হাসিঠাট্টা

আজব ভাবে রানআউট হলেন কামরান আকমল। 

কামরান আকমল ম্যাচে কিন্তু বিধ্বংসী মেজাজেই ছিলেন। তিনি ১১ বলে ৩৪ রান করে ফেলেন। তাঁর ইনিংসে ছিল তিনটি ছক্কা এবং তিনটি চার। আর এই রানের সৌজন্যে কামরান তাঁর দলকে জয়ের দিকে এগিয়ে নিয়ে যান। শেষ পর্যন্ত তাঁর দল সাত উইকেটে ম্যাচ জেতে।

নিউইয়র্ক ওয়ারিয়র্স এবং আটলান্টা রাইডার্সের মধ্যে ২১ অগস্ট ইউএস মাস্টার্স টি১০ ​​লিগের ম্যাচে অদ্ভূত ভাবে রানআউট হয়েছেন কামরান আকমল। যা নিয়ে চলছে তীব্র চর্চা। কারণ আকমলের রানের গতি কম ছিল। সঙ্গে তিনি যদি লাফিয়ে উইকেটে ব্যাট ছোঁয়াচে পারতেন, তবে রানআউট তাঁকে হতে হত না। কিন্তু তিনি যেন হাল ছেড়ে কার্যত উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে সাজঘরে ফিরে গিয়েছেন।

কামরানমের আউট হওয়ার ধরন দেখে ধারাভাষ্যকররা দাবি করেছেন, ‘আরে কী করছে! ও শরীর ছুঁড়ে দেওয়ার কোনও চেষ্টা করল না, অদ্ভূত!’ ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসের ৪.৩ ওভারে একটি রান নিতে গিয়ে আউট হন আকমল। সেই সময়ে স্ট্রাইক নিয়েছিলেন শহিদ আফ্রিদি। আফ্রিদির শট নাসির হুসেনের কাছে যায়। তিনি বল পেয়ে উইকেটকিপার রবিন উথাপ্পাকে ছুঁড়ে দেন। উইকেট ভাঙেন উথাপ্পা। তবে তার আগে কামরান আকমল কিন্তু দুরন্ত ইনিংস খেলে ফেলেছিলেন। তিনি সেরা লড়াইটাই আউট হওয়ার আগে করে গিয়েছিলেন। ছ'টি বাউন্ডারি সহ মাত্র ১১ বলে ৩৪ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেছিলেন।

ইউএস মাস্টার্স টি১০ ​​লিগে এখনও পর্যন্ত বেশ ভালো মানের ম্যাচ হচ্ছে। বেশ কয়েক জন প্রাক্তন ক্রিকেটার চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্স করছেন। ২১ অগস্ট (সোমবার) আটলান্টা রাইডার্সের বিপক্ষে নিউইয়র্কের ১০ ওভারে ৯৮ রান তাড়া করার সময়ে কামরান আকমল ওপেন করতে নেমে দুরন্ত পারফরম্যান্স করেন।

টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নিয়েছিল নিউইয়র্ক ওয়ারিয়র্স। তারা রাইডার্সকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিল। ১০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৯৭ রান করে আটলান্টা রাইডার্স। আটলান্টার হয়ে ডোয়েন স্মিথ ২৬ বলে ৩৪ সর্বোচ্চ রান করেন। এছাড়া দলের অধিনায়ক রবিন উথাপ্পা ওপেন করতে নেমে ৯ বলে ২৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেছিলেন। ১১ বলে ২১ করেছিলেন আর এক ওপেনার লেন্ডল সিমন্স। নিউইয়র্কের হয়ে সোহেল খান দুই ওভারে ২১ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন।

রান তাড়া করতে নেমে ইনিংসের চতুর্থ ওভারেই আকমল বাঁ-হাতি স্পিনার হরমিত সিং-কে প্রথম চার বলে তিনটি ছক্কা এবং একটি চার হাঁকান। তার আগেও তিনি বিধ্বংসী মেজাজে ছিলেন। সেই সঙ্গে তিনি ১১ বলে ৩৪ রান করে ফেলেন। তাঁর ইনিংসে ছিল তিনটি ছক্কা এবং তিনটি চার। আর এই রানের সৌজন্যে কামরান চার ওভারে তাঁর দলের স্কোর নিয়ে যান বিনা উইকেটে ৬৩ রানে। পরে রানআউট হলেও, তার আগে যা করার তিনি করে ফেলেছিলেন। দলকে সহজ জয়ের দিকে এগিয়ে দিয়েছিলেন। পঞ্চম ওভারের প্রথম দুই বলে ইলিয়াস সানি পরপর ফিরিয়েছিলেন তিলকরত্নে দিলশন (১৪ বলে ২৮ রান) এবং রিচার্ড লেভিকে (১ বলে ০ রান)। তৃতীয় বলে রানআউট হন আকমল। পরে শহিদ আফ্রিদি এবং জনাথন কার্টার ১১ বল বাকি থাকতে লক্ষ্যে পৌঁছে যান।

রোহিতদের প্রস্তুতির রোজনামচা, পাল্লা ভারি কোন দলের, ক্রিকেট বিশ্বকাপের বিস্তারিত কভারেজ, সঙ্গে প্রতিটি ম্যাচের লাইভ স্কোরকার্ড বিস্তারিত ক্রীড়াসূচি - এর জন্য চোখুন HT Bangla - তে

বন্ধ করুন