বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রাজনীতি নয়, ব্যক্তিগত সমস্যা মেটাতে ব্যস্ত যশ-শ্রাবন্তী! তোপ BJP নেত্রী কাঞ্চনার
ভোটের পর থেকে ‘মানুষের সেবা’ করার ইচ্ছে গায়েব কিছু হেরে যাওয়া তারকা প্রার্থীদের। 
ভোটের পর থেকে ‘মানুষের সেবা’ করার ইচ্ছে গায়েব কিছু হেরে যাওয়া তারকা প্রার্থীদের। 

রাজনীতি নয়, ব্যক্তিগত সমস্যা মেটাতে ব্যস্ত যশ-শ্রাবন্তী! তোপ BJP নেত্রী কাঞ্চনার

  • মানুষ আর গিমিকে বিশ্বাস করে না, জানালেন কাঞ্চনা মিত্র। 

২০২১ বিধানসভা ভোটে বিজেপির তুরুপের তাস ছিল একঝাঁক তারকা প্রার্থী। । যশ, শ্রাবন্তী, পায়েল, হিরণ তনুশ্রীদের মতো একঝাঁক ঝকঝকে চেহারাকে ভোটের প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়ে বাজিমাত করতে চেয়েছিল বিজেপি। কিন্তু হিরণ ছাড়া প্রায় সকলেরই হার হয়। আর তারপর থেকেই আর সক্রিয়ভাবে রাজনীতির ময়দানে এদের দেখা মেলেনি। না কখনও যেই অঞ্চল থেকে ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন সেখানে গিয়েছেন, না কোনও রাজনৈতিক সভা বা মিটিংয়ে অংশ নিয়েছেন। 

আর এই নিয়েই সম্প্রতি ক্ষোভ উগরে দিলেন বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা মিত্র। বেশ কিছু বছর ধরে প্রত্যক্ষভাবে রাজনীতির ময়দানে দেখা গিয়েছে তাঁকে। এমনকী, দলের বিভিন্ন মিটিং মিছিলেও অংশ নেন। অবশ্য শুধু কাঞ্চনা নন, বিজেপির অভ্যন্তরের অনেকেই দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তারকা প্রার্থী দাঁড় করানোর সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন। যার মধ্যে অন্যতম বিজেপি নেতা তথাগত রায়। এবার খানিকটা সেই সুরই শোনা গেল কাঞ্চনার গলায়। 

সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কাঞ্চনা বললেন, আরে বাবা মানুষ তো বোকা নয়। এর আগেও তাঁরা রাজনীতির অংশ ছিল না। ভোটের পরেও থাকল না। মনে রাখতে হবে মানুষ আর গিমিকে বিশ্বাস করে না। একজন জনপ্রতিনিধিকে দেখে ভোট দেন। অনেকেরই মত, বিধানসভা ভোটে টিকিট না পেয়ে ক্ষোভ হয়েছে তাঁর। যা পরিষ্কার করে দিল তাঁর এদিনের মন্তব্য। তাঁর কথায়, ‘রাজনীতি করা মানে টিকিট পাওয়া নয়। রাজনীতি মানে সংগঠন। আমরা সংগঠনকে গুরুত্ব দিই। আমাদের দল সংগঠনের উপর দাঁড়িয়ে রয়েছে’।

প্রসঙ্গত, তৃণমূলের তারকা সংসদের সঙ্গে সম্পর্ক, তাঁর সন্তানের বাবা হওয়ার খবরে রোজ সংবাদমাধ্যমের চর্চায় থাকছেন যশ। আর শ্রাবন্তীও খবরে ওই অকই কারণে। তিনি রাজি নন, স্বামীর সঙ্গে ঘর করতে। এদিকে শ্রাবন্তীকে ডিভোর্স দিতে রাজি নন রোশন সিং। বউয়ের সঙ্গে থাকতে চেয়ে তিনি আবার আদালতে মামলাও ঠুকেছেন। আর তনুশ্রী লাগাতার পার্টি করছেন শ্রাবন্তী ও নুসরতের সঙ্গে।

বন্ধ করুন