বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মাদার টেরেসার ছবি থেকে জ্যোতি বসুকে বাদ! নিন্দার পালটা জবাব দিলেন 'বুম্বা দা'
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (ফাইল ছবি)
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (ফাইল ছবি)

মাদার টেরেসার ছবি থেকে জ্যোতি বসুকে বাদ! নিন্দার পালটা জবাব দিলেন 'বুম্বা দা'

  • বৃহস্পতিবার মাদার টেরেসার ১১১তম জন্মদিন উপলক্ষে শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর সঙ্গে তোলা বহু পুরোনো নিজের একটি ছবি নেটমাধ্যেমে ভাগ করে নিয়েছিলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। আর এরপরেই এই ছবি ঘিরে শুরু হয় জোর বিতর্ক।

বৃহস্পতিবার মাদার টেরেসার ১১১তম জন্মদিন উপলক্ষে শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর সঙ্গে তোলা বহু পুরোনো নিজের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু গণ্ডগোল বাধে যখন আসল ছবিটি সামনে আসে। 

এক নেটনাগরিকের সুবাদে সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হতেই শুরু হয়েছে হইচই। আসল ছবিতে দেখা যাচ্ছে প্রসেনজিতের পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী দেবশ্রী রায়। আর মাদার টেরেসার একপাশে বসে রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু। এই আসল ছবি থেকে তাঁদের বেমালুম কেটে বাদ দিয়ে মাদারের সঙ্গে স্রেফ তাঁর ছবি পোস্ট করেছেন প্রসেনজিৎ। ট্রোলারদের তির্যক মন্তব্যের শিকার হতে হয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে।

যদিও ট্রোলারদের সামাল দিতে সিদ্ধহস্ত অভিনেতা। ইনস্টাগ্রামে নতুন পোস্টের মাধ্যমে পরোক্ষভাবেই বার্তা দেন যে তিনি। শুক্রবার ফের এক নতুন ভিডিয়ো পোস্ট করেন তিনি। ছবির অ্য়কশন দৃশ্যের বিটিএস। ভিডিয়োর ক্যাপশনে তিনি লেখেন, 'কীভাবে এক সময়ে আমি এক একটা আক্রমণ সামলাই।' বার্তার সঙ্গে জুড়েছেন একটি হাসির ইমোজি। হ্যাশট্যাগে লেখা বিহাইন্ড দ্য সিন। নেটিজেনের একাংশের মন্তব্য পোস্টের স্মাইলির মতোই ট্রোলারদের মন্তব্যকে হেসে উড়িয়ে দেন অভিনেতা।

উল্লেখ্য, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর ছবি কেটে বাদ দেওয়ার কারণে নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়তে হয়েছিল অভিনেতাকে। নেটিজেনদের দাবি একসময়ে জ্যোতিবাবুর সঙ্গে যথেষ্ট হৃদ্যতা ছিল 'বুম্বা'-দার। এখন তাঁর জ্যোতি বসুকে আর প্রয়োজন নেই তাই ছবির পুনর্নিমাণ করার আগে হয়তো একমুহূর্ত ভাবেননি তিনি। অবশ্য তাঁকে ঘিরে হাজার হাজার ট্রোলিং হলেও এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে পাল্টা কিছু বলেননি টলিপাড়ার এই মেগাতারকা।

প্রসঙ্গত, এইমুহূর্তে প্রসেনজিতের হাতে রয়েছে অতনু ঘোষের ‘শেষ পাতা’ ছবি। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ছবি ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’।

বন্ধ করুন