প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PTI)
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PTI)

Covid-19-সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে লাভ হয়েছে, ৩ মে অবধি ঘরে থাকুন: এক নজরে মোদীর বার্তা

যেভাবে করোনার বিরুদ্ধে আম আদমি লড়ছে, তার প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারত ভালো করলেও সামনের পথ কঠিন। এই জন্য ৩ মে অবধি লকডাউন বৃদ্ধি করল মোদী সরকার। তবে কিছু এলাকায় গরিব মানুষের স্বার্থে ২০ এপ্রিলের পর কিছুটা ছাড় দেওয়া হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

একনজরে দেখুন করোনা মহামারি নিয়ে কী বললেন প্রধানমন্ত্রী-

  • করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ভারত খুব ভালো লড়াই করছে। যতটা ক্ষতি হতে পারত, তার থেকে অনেকটাই কম হয়েছে দেশবাসী নিয়ম মান্য করায়।
  • আপনাদের অনেক কষ্ট হয়েছে। দেশের স্বার্থে অনুগত সৈনিকের মতো আপনারা কাজ করছেন, এটাকে আমি সম্মান করি। 
  • যখন করোনার কোনও কেস ছিল না, তার আগে থেকেই বিমানবন্দরে স্ক্রিনিং শুরু করা হয়। 
  • করোনা রোগীর সংখ্যা ১০০ পেরোনার আগেই বাইরে থেকে আসা  বিদেশিদের কোয়ারেন্টাইন করার সিদ্ধান্ত করা হয়। 
  • ৫৫০ কেসের আগেই দেশে লকডাউন করা হয়। সমস্যা বাড়ার আগেই দেশ করোনা প্রকোপ রোখার চেষ্টা করেছে। 
  • বিশ্বের বড় সামর্থ্য পূর্ণ দেশে করোনার যা হাল, তার থেকে ভারতে পরিস্থিতি অনেক ভালো। অন্য অনেক দেশে ভারতের তুলনায় ২৫-৩০ গুণ বেশি লোক করোনায় আক্রান্ত।যদিও দেড় মাস আগে এই দেশগুলি ভারতের পরিস্থিতিতেই ছিল।
  • ভারত ইনটিগ্রেটেড অ্যাপ্রোচ, হোলিস্টিক অ্যাটিচিউডের মাধ্যমে ভারত করোনার বিরুদ্ধে লড়ছে। সোশ্যাল ডিস্টেন্সিং ও লকডাউনের বড় লাভ পাওয়া গিয়েছে। 
  • আর্থিক দৃষ্টিতে ভারত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, কিন্তু দেশবাসীর প্রাণের কাছে তা কিছু নয়। 
  • সারা বিশ্ব আজ ভারতকে প্রশংসা করছে তার লকডাউনের জন্য ।
  • রাজ্য সরকারগুলি সাধ্যমতো করছে। ২৪ ঘণ্টা ধরে কর্মীরা নিরলস পরিশ্রম করছেন
  • করোনা রণনীতি নিয়ে রাজ্যদের সঙ্গে পরামর্শ করা হয়েছে। সবার একই পরামর্শ যে লকডাউন বৃদ্ধি করা হোক।
  • লকডাউন চলবে ৩ মে অবধি ।
  • একই ভাবে অনুশাসিত হয়ে থাকতে হবে ।
  • কোনও ভাবেই করোনা নতুন জায়গায় ছড়িয়ে পড়তে দেওয়া যাবে না।
  • একটা জায়গাতেও করোনা কেস বৃদ্ধি হওয়া চলবে না ।
  • হটস্পটের ওপর বিশেষ নজর রাখতে হবে ।
  • নতুন হটস্পট যেন না তৈরী হয় সেটা দেখতে হবে ।
  • ২০ এপ্রিল অবধি আরও কড়া ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে লকডাউনের ওপর ।
  • কোন অঞ্চল লকডাউন ভালো ভাবে মানা হচ্ছে সেটা দেখা হবে ।
  • যে সব অঞ্চলে হটস্পট বৃদ্ধি হবে না, নতুন কোনও হটস্পট হওয়ার তৈরী হবে না, সেখানে ২০ এপ্রিলের পর কিছু ছাড় মিলতে পারে ।
  • কিন্তু যদি সে সব জায়গায় আইন ভঙ্গ হয়, তাহলে সেই ছাড় প্রত্যাহার করা হবে ।
  • ২০ এপ্রিল থেকে কিছু জায়গায় সীমিত ছাড় মিলবে ।
  • এই সংক্রান্ত গাইডলাইন কাল দেওয়া হবে ।
  • গরিবদের কথা মাথায় রেখেই এই সুবিধা দেওয়া হবে ।
  • একটি ল্যাব থেকে ২২০ ল্যাব করা হয়েছে  করোনা পরীক্ষার জন্য।
  • এক লাখের ওপর বেড আছে করোনা রোগীর জন্য। ৬০০-র ওপর হাসপাতাল আছে কোভিডের জন্য। এই সকল সুবিধা দ্রুত বৃদ্ধি করা হচ্ছে। 
  • ধৈর্য ধরে, নিয়ম পালন করলে করোনার মতো মহামারিকে হারানো সম্ভব 
  • নিজের বাড়ির বয়স্ক মানুষদের খেয়াল রাখুন। যারা আগে থেকে অসুস্থ তাদের ওপর খুব খেয়াল রাখতে হবে। 
  • লকডাউন ও সামাজিক দূরত্বের পালন করুন। মাস্ক ব্যবহার করুন। 
  • নিজের ইম্যুনিটি বাড়ানোর জন্য আয়ুষের দেওয়া পরামর্শ অবশ্যই মানুন। 
  • আরোগ্য সেতু অ্যাপটি ডাউনলোড করুন। 
  • গরীব পরিবারদের সাহায্য করুন 
  • আপনি ব্যবসায়ী হলে কর্মচারীদের প্রতি সহানুভূতিশীল হন। তাদের চাকরি থেকে বার করবেন না। 
  • স্বাস্থ্যকর্মী সহ দেশের করোনা যোদ্ধাদের সম্মান করুন। 
  • এই সাতটি পরামর্শ মাথায় রাখুন। তিন মে অবধি লকডাউন মেনে চলুন।



বন্ধ করুন