সংখ্যালঘু নিপীটড়নের অভিযোগ তুলে ভারতকে ‘বিশেষ উদ্বেগজনক দেশ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হোক বলে প্রস্তাব দিয়েছে USCIRF প্যানেল।
সংখ্যালঘু নিপীটড়নের অভিযোগ তুলে ভারতকে ‘বিশেষ উদ্বেগজনক দেশ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হোক বলে প্রস্তাব দিয়েছে USCIRF প্যানেল।

ভ্রান্ত ধারণার নয়া মাত্রা, সংখ্যালঘু নিপীড়নের মার্কিন অভিযোগের পালটা দিল্লির

আমেরিকার আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা কমিশনের (USCIRF) প্যানেল প্রস্তাব দিয়েছে, ভারতকে ‘বিশেষ উদ্বেগজনক দেশ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হোক।

ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত রিপোর্টে ভারত সম্পর্কে আমেরিকার দাবি ‘পক্ষপাতদুষ্ট ও প্রতিক্রিয়াশীল’। মঙ্গলবার ট্রাম্প প্রশাসনের অধীনস্থ কমিশনের রিপোর্টের জেরে এমনই মন্তব্য করল নয়াদিল্লি।

সম্প্রতি প্রকাশিত ২০২০ সালের বার্ষিক রিপোর্টে আমেরিকার আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা কমিশনের (USCIRF) প্যানেল প্রস্তাব দিয়েছে, ভারতকে ‘বিশেষ উদ্বেগজনক দেশ’ হিসেবে চিহ্নিত করা হোক। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, ধর্মীয় স্বাধীনতায় বাধা দেওয়া এবং বর্তমানে সেই রকম কাজ প্রশ্রয় দিচ্ছে ভারত সরকার।



নিজের প্রস্তাবের সপক্ষে মার্কিন প্যানেল নাগরিকতা সংশোধন আইনকে কাঠগড়ায় তুলে অভিযোগ করেছে যে, ‘দেশজুড়ে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে হেনস্থা ও হিংসাত্মক কাজে মদত দিচ্ছে ভারত সরকার।’

আমেরিকান কমিশনের এই মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন, ‘USCIRF রিপোর্টে ভারত সম্পর্কে যে মন্তব্য করা হয়েছে, তা আমরা অস্বীকার করছি। ওই রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট ও প্রতিক্রিয়াশীল, যা ভারতের কাছে নতুন নয়। তবে এবার তা নতুন মাত্রায় পৌঁছেছে।’

প্রসঙ্গত, USCIRF রিপোর্টে ভারত-সহ মোট ১৪টি দেশকে সংখ্যালঘু পীড়নের ভিত্তিতে ‘বিশেষ উদ্বেগজনক’ হিসেবে চিহ্নিত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তালিকায় রয়েছে মায়ানমার, চিন, এরিট্রিয়া, ইরান, উত্তর কোরিয়া, পাকিস্তান, সৌদি আরব, তাজিকিস্তান ও তুর্কমেনিস্তান।

শুধু চিহ্নিত করাই নয়, কমিশনের রিপোর্টে ভারত সরকার ও তার অধীনস্থ সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে ওয়াশিংটনের শাস্তিমূলক পদক্ষেপ করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। যদিও সেই সমস্ত প্রস্তাব ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন আদৌ গ্রহণ করবে কি না, সে সম্পর্কে কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি।

বন্ধ করুন